২৪ আগস্ট ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বলিউডের প্রচলিত ধারার ব্যতিক্রম দিব্যাঙ্কা বেদী

বলিউডের প্রচলিত ধারার ব্যতিক্রম দিব্যাঙ্কা বেদী

অনলাইন ডেস্ক ॥ বাবা মায়ের পথে পা রাখা। অনেক দিন ধরে এটাই ট্রেন্ড বলিউডের স্টার কিডদের। কিন্তু প্রচলিত ধারারও ব্যতিক্রম থাকে। সেটাই দেখালেন দিব্যাঙ্কা বেদী।

দিব্যাঙ্কার বাবা হিন্দি ছবির পরিচিত খলনায়ক রঞ্জিত। কিন্তু দিব্যাঙ্কা ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে আগ্রহী নন। তাঁর মন পড়ে থাকে পাহাড়ে। তিনি পর্বতারোহী। শুধু পাহাড়ই নয়। তরুণী দিব্যাঙ্কা ওরফে গিগি-কে আরও অনেক কিছু হাতছানি দিয়ে ডাকে। তাঁর আকর্ষণ বহুমুখী। পাহাড়ে যখন ওঠেন না, তখন তিনি গয়নার নক্সা করেন। রক ক্লাইম্বার দিব্যাঙ্কা আবার জুয়েলারি ডিজাইনারও বটে। ক্লাইম্বিং এমন একটা স্পোর্টস, যা সব সামাজিক ও আর্থিক ব্যবধান ভেঙে দেয়, মনে করেন দিব্যাঙ্কা। অভিযানমূলক এই খেলায় অংশ নিয়ে বিভিন্ন ধরনের মানুষের সঙ্গে তাঁর যোগাযোগ তাঁকে সমৃদ্ধ করেছে, বলছেন রঞ্জিত-কন্যা। রক ক্লাইম্বিং-এর আন্তর্জাতিক মঞ্চেও তিনি ভারতকে তুলে ধরেছেন। অংশ নিয়েছিলেন দু’দিনের ইভেন্টে। সেখানে ছিলেন ১৫টি দেশ থেকে গিয়েছিলেন প্রতিযোগীরা। ভারত থেকে গিয়েছিলেন আট জন পুরুষ এবং ন’জন মহিলা ক্লাইম্বার। তাঁদের মধ্যে একজন দিব্যাঙ্কা। পাহাড় তাঁর কাছে নেশা। আনন্দ আর উত্তেজনা মেশানো অভিযান থেকে তিনি শিখতেও পারেন অনেক কিছু। সবথেকে বড় কথা, পাহাড় তাঁকে বিনীত হতে শেখায়। মন থেকে ইগো মুছে ফেলতে বারবার পাহাড়ের কাছে ছুটে যান রঞ্জিতের মেয়ে। কতবার পাহাড়ে উঠলে তবে আরোহী বলা যায়? জানেন না দিব্যাঙ্কা। জানতে চানও না। তাঁর স্বপ্ন, আরও পথ চলা। আরও নতুন নতুন জায়গা আবিষ্কার করা। তাঁর কাছে তীর্থস্থান হল হাম্পি। প্রতি বছর ডিসেম্বরে তুঙ্গভদ্রার তীরে দাক্ষিণাত্যের এই ঐতিহাসিক শহরে গিয়ে রক ক্লাইম্বিং করেন তিনি। ভারতের বাইরে ইংল্যান্ড, ফ্রান্স, গ্রিসেও রক ক্লাইম্বিং করেছেন দিব্যাঙ্কা। গানবাজনা-গয়নার নক্সা-রক ক্লাইম্বিং। তিনটি তিন মেরুর শখ। কী করে সামলান ভিন্নমুখী প্যাশন? দিব্যাঙ্কার কথায়, সবই তাঁর কমফর্ট জোন। পৃথিবীটা তার কাছে খেলার মাঠ। সময় অমূল্য। তিনি শুধু জানেন তাঁকে আরও নতুন নতুন জায়গা খুঁজে পেতে হবে। দিব্যাঙ্কার গয়নার বুটিকের নাম ‘আম্রপালী’। তাকে নিয়েও অনেক স্বপ্ন রঞ্জিত-দুহিতার। শৃঙ্গের মতোই স্বপ্নকে শীর্ষে নিয়ে যেতে চান তিনি। উদার হতে চান পাহাড়ের মতো। বত্রিশ বছর বয়সী দিব্যাঙ্কার আরও একটি নেশা বই পড়া। প্রিয় লেখক চেতন ভগত এবং পাওলো কোয়েলহো। সেন্ট জোসেফ কনভেন্ট স্কুলের ছাত্রী দিব্যাঙ্কা জয় হিন্দ কলেজ থেকে ফ্যাশন ডিজাইনিং নিয়ে স্নাতক হন। প্রিয় ডিজাইনার মনীশ মলহোত্র। সিনেমাও দেখেন দিব্যাঙ্কা। প্রিয় অভিনেতা অমিতাভ বচ্চন, অক্ষয় কুমার এবং হৃতিক রোশন। পছন্দের নায়িকা দীপিকা পাড়ুকোন ও প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। প্রিয় পরিচালক কর্ণ জোহর। তবে নিজে বলিউডের থেকে থাকতে ভালবাসেন পাহাড় আর বইয়ের মাঝেই।

সূত্র : আনন্দবাজার পত্রিকা

নির্বাচিত সংবাদ
এই মাত্রা পাওয়া