১৯ জুলাই ২০১৯

মাঝারি মাত্রার ভূমিকম্পে কাঁপল ঢাকাসহ বিভিন্ন এলাকা

স্টাফ রিপোর্টার ॥ মাঝারি মাত্রার ভূমিকম্পে কেঁপে উঠল ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন এলাকা। শুক্রবার বেলা তিনটা ২২ মিনিটে এই ভূকম্পন অনুভূত হয়েছে। এর উৎপত্তি স্থল ছিল ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্য অরুণাচল সীমান্ত। রিখটার স্কেলে ভূমিকম্পটির মাত্রা ছিল ৫.৫। যাকে বিশেষজ্ঞরা মাঝারি মাত্রার ভূমিকম্প বলে অভিহিত করে থাকেন। তবে ভূমিকম্পের ফলে দেশের কোথাও কোন ক্ষয়ক্ষতির খবর পাওয়া যায়নি।

আবহাওয়া অধিদফতর জানিয়েছে আগারগাঁও পর্যবেক্ষণ কেন্দ্র থেকে এর উৎপত্তিস্থল ৪৯৯ কিলোমিটার উত্তর-পূর্বে অবস্থিত। সিলেট জেলা থেকে এর দূরত্ব ৩২৫ কিলোমিটার। ভারতের অরুণাচল প্রদেশের ক্যামেং জেলার বমডিলা এলাকায় উৎপত্তি স্থলের ১৬.৮ কিলোমিটার গভীরে ভূকম্পনটি সংঘটিত হয়েছে।। যুক্তরাষ্ট্রের ভূতাত্ত্বিক জরিপ দফতরের (ইউএসজিএস) তথ্য অনুযায়ী, বাংলাদেশ সময় শুক্রবার বিকেল তিনটা ২২ মিনিটে এই ভূমিকম্প হয়। যার মাত্রা ছিল রিখটার স্কেলে ৫ দশমিক ৫। আর জার্মান ভূতাত্ত্বিক গবেষণা সংস্থা জিএফজেডের হিসাবে ভূমিকম্পের মাত্রা ছিল রিখটার স্কেলে ৫ দশমিক ৬।

এদিকে ভারতের অসম, নাগাল্যান্ড, মেঘালয় রাজ্য এবং ভুটানেও এ ভূকম্পন অনুভূত হয়েছে। তবে তাৎক্ষণিকভাবে হতাহত বা ক্ষয়ক্ষতির কোন তথ্য পাওয়া যায়নি। বিশেষজ্ঞরা বলছেন রিখটার স্কেলে ৪ থেকে ৪ দশমিক ৯৯ মাত্রাকে মৃদু ভূম্পিকম্প হিসেবে ধরা হয়। এছাড়া ৫ থেকে ৫ দশমিক ৯৯ মাত্রাকে ‘মাঝারি’, ৬ থেকে ৬ দশমিক ৯৯ মাত্রাকে ‘শক্তিশালী’, ৭ থেকে ৭ দশমিক ৯৯ মাত্রাকে ‘ভয়াবহ’ এবং মাত্রা ৮-এর বেশি হলে ‘অত্যন্ত ভয়াবহ’ ভূমিকম্প বিবেচনা করা হয়।

তারা বলছেন, মাটির গঠন প্রকৃতি ছাড়াও অপরিকল্পিত নগরায়ণের কারণে রাজধানী ঢাকাও সবচেয়ে বেশি ভূমিকম্প ঝুঁকিতে রয়েছে। এছাড়া ঢাকা পাশেই ভূমিকম্পের উৎস রয়েছে। ফলে আশপাশে কোন স্থান থেকে বড় ধরনের ভূমিকম্প হলে ঢাকা ঝুঁকিকে পড়ে যেতে পারে বলে মনে করছেন তারা।

তারা বলছে দেশের ভেতর থেকে দীর্ঘদিন বড় ধরনের ভূমিকম্পের উৎপত্তি না হলেও দেশের উত্তর-পূর্ব অঞ্চলে প্রায়ই বড় ধরনের ভূমিকম্পের উৎপত্তির ঘটনা ঘটছে। যার ঢেউ দেশের উপরে এসে পড়ছে। এছাড়া দেশের ভেতরের ভূমিকম্প হওয়ার মতো কয়েকটি চ্যুতি বা ফাটল রেখাও রয়েছে। যার একটি ঢাকা কাছে মধুপুরে অবস্থিত মধুপুর ফল্ট নামে পরিচিত।

সিলেট ॥ শুক্রবার বিকেলে সিলেটে মৃদু ভূমিকম্প অনুভূত হয়। দুপুর ৩টা ২২ মিনিটে ৩/৪ সেকেন্ড স্থায়ী এ ভূকম্পনে কোথাও কোন ক্ষয়ক্ষতির খবর পাওয়া যায়নি। সিলেট আবহাওয়া অফিস জানিয়েছেন, শুক্রবারের ভূমিকম্পের মাত্রা ছিল ৫.৫। এই ভূমিকম্পের উৎপত্তিস্থল ভারতের অরুণাচল প্রদেশ। যা বাংলাদেশের সিলেট সীমান্ত থেকে প্রায় সাড়ে ৩শ’ কিলোমিটার দূরে।