২৪ আগস্ট ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

চাপ দিয়ে জবানবন্দি নেওয়া হয়েছে ॥ দাবি মিন্নির বাবার

চাপ দিয়ে জবানবন্দি নেওয়া হয়েছে ॥ দাবি মিন্নির বাবার

অনলাইন ডেস্ক ॥ বরগুনায় প্রকাশ্যে রিফাত শরীফকে কুপিয়ে হত্যা মামলার প্রধান সাক্ষী ও তার স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নিকে তড়িঘড়ি করেই জবানবন্দি দেওয়ানোর অভিযোগ উঠেছে। পাঁচ দিনের রিমান্ডের আদেশ হলেও দুই দিন পরই গতকাল শুক্রবার তাকে গোপনে বরগুনার বিচার বিভাগীয় হাকিম আদালতে পাঠানো হয়। সেখানে তিনি বিচারকের কাছে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন বলে পুলিশ জানিয়েছে।

এ নিয়ে আজ শনিবার সকালে আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নির বাবা মোজাম্মেল হক কিশোর নিজ বাড়িতে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘দেশবাসী শুনে রাখেন, আমার মেয়ের কিছু হলে আমি আত্মহত্যা করমু। আমার মেয়েকে চাপ দিয়ে জবানবন্দি নেওয়া হয়েছে।’

তিনি বলেন, মিন্নি নির্দোষ, রিফাত হত্যার পেছনে শুরু হয়েছে নোংরা রাজনীতি। প্রশাসনের লোকেরা শোনেন, আপনারা সঠিক তদন্ত করেন তাহলে রিফাত হত্যার মূল রহস্য বেরিয়ে আসবে।

মোজাম্মেল হক কিশোর বলেন, সারাদেশের মানুষ দেখেছেন আমার মেয়ে কিভাবে তার স্বামীকে রক্ষার জন্য সন্ত্রাসীদের সঙ্গে লড়াই করেছে। একটি প্রভাবশালী মহল আমার মেয়েকে ফাঁসিয়ে খুনিদের আড়াল করতে চাইছে।

এ বিষয়ে বরগুনা পুলিশ সুপার (এসপি) মো. মারুফ হোসেন সাংবাদিকদের জানান, আইন তার নিজস্ব গতিতে চলবে। এখানে জোর-জবরদস্তির কিছু নেই। আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন মিন্নি। এছাড়াও মামলায় আরও কয়েকজন সন্দেহভাজন পুলিশের নজরে রয়েছে বলেও জানান তিনি।

প্রসঙ্গত, গত ২৬ জুন সকাল সাড়ে ১০টার দিকে রিফাতকে স্ত্রীর সামনে প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। এ সময় স্বামীকে বাঁচাতে মিন্নি প্রাণপণ চেষ্টা করে ব্যর্থ হন। তিনি বারবার চিৎকার করলেও কেউ এগিয়ে আসেনি। এ ঘটনার ভিডিও ইন্টারনেটে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ার পর সারা দেশে ব্যাপক আলোচিত হয়। ওই দিন রাতে রিফাত শরীফের বাবা আবদুল দুলাল শরীফ ১২ জনকে আসামি করে মামলা করেন।

নির্বাচিত সংবাদ
এই মাত্রা পাওয়া