২২ আগস্ট ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

আগস্ট মাসের মধ্যে মালয়েশিয়ায় শ্রম-বাজার সৃষ্টির পথ উন্মুক্ত হবে : প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী

আগস্ট মাসের মধ্যে মালয়েশিয়ায় শ্রম-বাজার সৃষ্টির পথ উন্মুক্ত হবে :  প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী

নিজস্ব সংবাদদাতা, গোপালগঞ্জ ॥ প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ বলেছেন, শ্রম-বাজার সৃষ্টির লক্ষ্যে নানা কর্মসূচী হাতে নেয়া হয়েছে। মালয়েশিয়ার বাজার খোলার প্রথম ধাপ ইতিমধ্যে আমরা পেরিয়েছি। সেখানে অবৈধভাবে বসবাসকারীদের ফেরত আসার পথ উন্মুক্ত হয়েছে এবং ১ আগস্ট থেকে ফেরত পাঠানোর জন্য তারা সিদ্ধান্ত নিয়েছে। মালয়েশিয়ায় প্রবেশের পথ এখনও উন্মুক্ত না হলেও সেখানে আগস্ট মাসের মধ্যেই শ্রম-বাজার সৃষ্টির পথ উন্মুক্ত হবে। শনিবার দুপুর ১২ টায় গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের মাজারে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, মালয়েশিয়া থেকে অবৈধ অভিবাসীদের ফেরত আসতে আগে জরিমানা দিতে হতো ৩ হাজার রিঙ্গিত। আমাদের সুপারিশে ওরা এখন ৭’শ রিঙ্গিতের বিনিময়ে ওখান থেকে বের হওয়ার ব্যবস্থা করেছে।

অবৈধ পথে বিদেশে যাওয়া এবং পথে পানিতে ডুবে বা অন্য কোনভাবে মারা যাওয়ার বিষয়টিকে মার্ডারের সঙ্গে তুলনা করে মন্ত্রী বলেন, এ বিষয়টি নিয়ে আমরা খুবই আতংকিত। কারণ, এরা কেউ একা যায় না, সংগঠিতভাবে যায়। যারা এজেন্ট বা দালাল আছে - এরাই এই যাওয়ার ব্যবস্থাটা করে দেয় এবং এরাই এসব ঘটনার জন্য দায়ী। আমার দেশের একটাও নাগরিক এভাবে বিদেশে মারা যাক - এটা আমরা চাই না।

মন্ত্রী আরও বলেন, এ বিষয়টি শুধুমাত্র মন্ত্রণালয় বা একা মন্ত্রীর পক্ষে সামাল দেয়া সম্ভব নয়। যেসব যুবকরা অবৈধভাবে বিদেশের পথে পা বাড়ায় তাদের অধিকাংশই আমাদের গ্রাম-গঞ্জের। তাদেরকে কেউ উদ্বুদ্ধ করে নিয়ে যায়। এমন ধরণের মানুষকে পেলে তাকে ধরা হবে। এব্যাপারে ডিসি’দেরকেও জানানো হয়েছে। কেউ বৈধ পথে গেলে তাকে সর্বোচ্চ সহযোগিতা করা হবে। কিন্তু অবৈধপথের সহযোগিতাকারী শয়তানদেরকে পেলেই ধরা হবে।

বিদেশে বিশেষকরে মধ্যপ্রাচ্যে গিয়ে আমাদের মা-বোনদেরকে নানা হয়রানী ও নির্যাতণের শিকার হতে হয় - এ বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, আমাদের দেশের মেয়েরা সেখানে যাওয়ার আগে সঠিকভাবে কাউন্সেলিং ও প্রশিক্ষণ নিয়ে গেলে এ সমস্যাগুলো থাকবে না।

এর আগে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ টুঙ্গিপাড়ায় পৌঁছেন এবং স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ সঙ্গে নিয়ে জাতির পিতার সমাধিসৌধে ফুল দিয়ে তাঁর প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন এবং ফাতেহা পাঠ ও মোনাজাত শেষে তিনি জাতির পিতার কবর জিয়ারত করেন।

এসময় ওয়েজ-আর্নার কল্যাণ বোর্ডের মহা-পরিচালক কাজী জুলহাস, বোয়েসেলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মরণ কুমার চক্রবর্তী, যুগ্ম-সচিব জাহিদ হোসেন, গোপালগঞ্জ জেলা প্রশাসক শাহিদা সুলতানা, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি চৌধুরী এমদাদুল হক ও সাধারণ সম্পাদক মাহাবুব আলী খান, সিলেটের বিভিন্ন উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ ও স্থানীয় প্রশাসনের উর্দ্ধতণ কর্মকর্তারা সেখানে উপস্থিত ছিলেন।