১৯ আগস্ট ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সুুরের স্রোতধারায় ছায়ানটের রবীন্দ্র উৎসব সমাপ্ত

 সুুরের স্রোতধারায় ছায়ানটের রবীন্দ্র উৎসব সমাপ্ত

স্টাফ রিপোর্টার ॥ সন্ধ্যা থেকেই শুরু হলো রবীন্দ্র সুরের ধারা। সেই সুরস্রোতে কেটে গেল স্রোতাদের সুন্দরতম সময়। সঙ্গীতানুরাগীদের জন্য মধুরতম সেই সময়টি কেটেছে শঙ্করের ছায়ানট সংস্কৃতি ভবন মিলনায়তনে। শুক্রবার থেকে ছায়ানটের আয়োজনে শুরু হয়েছিল দুই দিনব্যাপী রবীন্দ্র উৎসব। শনিবার ছিল সে উৎসবের সমাপনী দিন। প্রথম দিনের মতো দ্বিতীয় দিনেও গানপ্রেমীদের সরব উপস্থিতিতে পরিপূর্ণ ছিল মিলনায়তন।

নৃত্য-গীতের সঙ্গে আবৃত্তিতে সজ্জিত ছিল সমাপনী আয়োজন। সম্মেলক বলেন ‘আকাশ জুড়ে শুনিনু’ শীর্ষক গানের মাধ্যমে শুরু অনুষ্ঠান। পরের পরিবেশনায় গানের সুরে তাল রেখে পরিবেশিত হয় নাচ। গীত হয় ‘আমার প্রাণের মানুষ’ শীর্ষক সঙ্গীত। একক গানে শিল্পীরা গেয়ে শোনান রবীন্দ্রনাথের নানা পর্যায়ের গান। শ্রাবণী মজুমদার গেয়ে শোনান ‘জগতে আনন্দযজ্ঞে আমার নিমন্ত্রণ’। সুদীপ সরকার পরিবেশন করেন ‘লক্ষ্মী যখন আসবে’। দীপ্তি তালুকদার গেয়ে শোনান ‘তোমার সুরে ধারা’। আব্দুল ওয়াদুদ শোনান ‘মনে হলো পেরিয়ে এলাম’। নাঈমা ইসলাম নাজ পরিবেশিত গানের শিরোনাম ছিল ‘আজি বিজন ঘরে’। লিলি ইসলাম পরিবেশন করেন ‘কে দিল আবার আঘাত’। শ্রেয়া ঘোষ পূজা গেয়ে শোনান ‘পূর্ণপ্রাণে চাবার যাহা’। সুবাহ আকবর গেয়ে শোনান ‘তোমারি সেবক করো হে’, নুসরাত জাহান সাথী ‘কাছে থেকে দূর রচিল’, সামিয়া আহসান ‘তোমারে জানি নে হে’, আঁখি হালদার ‘তুমি কোন কাননের ফুল’, চঞ্চল বড়াল ‘আমার প্রাণে গভীর গোপন’, সুতপা সাহা ‘এখনো তারে চোখে দেখি নি’, নাসরিন সুলতানা বাঁধন ‘বিরহ মধুর হল আজি’, মানসী সাধু ‘যেথায় তোমার লুট হতেছে’ গান গেয়ে শোনান। এছাড়াও সম্মেলক কণ্ঠে শিল্পীরা গেয়ে শোনান ‘বজ্রে তোমার বাজে বাঁশি’, পাগলা হাওয়ার বাদল দিনে’, ‘পারবি না কি যোগ দিতে’, ‘অরূপ তোমার বাণী’ ও এই তো তোমার প্রেম’। জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশনের মধ্য দিয়ে শেষ হয় উৎসব।