১৯ আগস্ট ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

আদালতে রিফাত ফরাজীর স্বীকারোক্তি

  • রিফাত হত্যা মামলা

মোস্তফা কাদের, বরগুনা ॥ চাঞ্চল্যকর রিফাত শরীফ হত্যা মামলায় গ্রেফতারকৃত ২নং আসামি রিফাত ফরাজী দায় স্বীকার করে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দী দিয়েছে। শনিবার বিকেল ৩টায় রিফাত ফরাজীকে বরগুনার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করা হয়। আদালতের বিচারক মোহাম্মাদ সিরাজুল ইসলাম গাজী তার বক্তব্য রেকর্ড করেন। সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় জবানবন্দী শেষ হয়। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা বরগুনা থানার পরিদর্শক মোঃ হুমায়ূন কবির এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এনিয়ে হত্যার দায় স্বীকার করে এখন পর্যন্ত ১৪ আসামি স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দিয়েছে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা আদালত প্রাঙ্গণে উপস্থিত গণমাধ্যমকর্মীদের জানান, রিফাত ফরাজীর দ্বিতীয় মেয়াদের সাতদিনের রিমান্ডের ষষ্ঠদিনে তাকে আদালতে হাজির করা হয়। রিফাত ফরাজী স্বেচ্ছায় ১৬৪ ধারায় দায় স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দী দিয়েছেন।

বিচারে খুশি রিফাতের বাবা, আত্মহত্যা করতে চান মিন্নির বাবা ‌‌॥ আমার ছেলে রিফাতকে যারা হত্যা করেছে তাদের বিচার হচ্ছে তাই আমি খুশি। তবে যেদিন আমার ছেলের আত্মা শান্তি পাবে সেদিনই আমি শান্ত হব। ছেলে হারানোর ব্যথা সেই বোঝে যার ছেলে অকালে মারা যায়। শনিবার (২০ জুলাই) দুপুরে বরগুনা সদর থানার সামনে দাঁড়িয়ে কথাগুলো বলেন রিফাত শরীফের বাবা দুলাল শরীফ। রাজনৈতিক ভাবে আপনি প্রভাবিত হচ্ছেন কি না? এমন প্রশ্নের জবাবে দুলাল শরীফ বলেন, ছেলে হারানোর শোকে আমি কাতর। রাজনৈতিক প্রভাব এখানে এলো কোথা থেকে। ছেলে হত্যার বিচার পেলেই আমি খুশি। এ সময় তিনি বাকি আসামিদের দ্রুত গ্রেফতার করার জন্য প্রশাসনের সুদৃষ্টি কামনা করেন।

অপরদিকে শনিবার সকালে নিজ বাড়িতে বসে আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নির বাবা মোজাম্মেল হক কিশোর সাংবাদিকদের বলেন, সারাদেশের মানুষ দেখেছে আমার মেয়ে কিভাবে তার স্বামীকে রক্ষার জন্য সন্ত্রাসীদের সঙ্গে লড়াই করেছে। একটি প্রভাবশালী মহল আমার মেয়েকে ফাঁসিয়ে খুনীদের আড়াল করতে চাইছে। দেশবাসী শুনে রাখেন, আমার মেয়ের কিছু হলে আমি আত্মহত্যা করব। আমার মেয়েকে চাপ দিয়ে জবানবন্দী নেয়া হয়েছে। মিন্নি নির্দোষ, রিফাত হত্যার পেছনে শুরু হয়েছে নোংরা রাজনীতি। প্রশাসনের লোকেরা শোনেন, আপনারা সঠিক তদন্ত করেন তাহলে রিফাত হত্যার মূল রহস্য বেরিয়ে আসবে।