২৪ আগস্ট ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

চিত্রশালায় মাদ্রাসা শিক্ষার্থীদের সাংস্কৃতিক পরিবেশনা

  • সংস্কৃতি সংবাদ

স্টাফ রিপোর্টার ॥ মানবিক বাংলাদেশ বিনির্মাণে চাই সংস্কৃতির আলোকরেখা। মনের ভেতরের সুপ্ত সুকুমার বৃত্তি জাগিয়ে দূর করতে সামাজিক অন্ধকার। শিল্প-সাহিত্যের ¯্রােতধারায় গড়ে উঠবে আলোকিত মানুষ। শিল্পের আশ্রয়ে সেই সুন্দরতম সমাজ গড়ার লক্ষ্যে কাজ করছে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি। দেশের ১৬ কোটি মানুষের মাঝে শিল্পসংস্কৃতির আলো ছড়িয়ে দেয়ার তেমন একটি প্রয়াস দেখা গেল মঙ্গলবার। সৃজনশীলতার পথ ধরে মাদ্রাসার শিক্ষার্থীরা পরিবেশন করল বহুমাত্রিক সাংস্কৃতিক পরিবেশনা। গানের সুরে জেগে উঠল প্রচলিত ধারার বাইরে থাকা সেসব শিক্ষার্থীর প্রাণ। তাদের কণ্ঠে উঠে এলো কবিতার শিল্পিত উচ্চারণ। সেই সঙ্গে হামদ-নাত ও নাটিকার উপস্থাপনা। শ্রাবণ সন্ধ্যায় শিল্পকলা একাডেমির চিত্রশালা মিলনায়তনে ‘শিক্ষা ও শিল্পের আলো ছড়াব আমরা তারুণ্যের জয়গানে’ শীর্ষক এ সাংস্কৃতিক পরিবেশনা উপস্থাপন করে গোপালগঞ্জ জেলার বিভিন্ন মাদ্রাসার একঝাঁক শিক্ষার্থী।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ। একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকীর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন বাংলাদেশ পুলিশের ঢাকা বিভাগীয় কমিশনার হাবিবুর রহমান ও গোপালগঞ্জের জেলা প্রশাসক সাহিদা সুলতানা। স্বাগত বক্তব্য দেন গোপালগঞ্জ জেলা শিল্পকলা একাডেমির কালচারাল অফিসার আল মামুন বিন সালেহ। অনুভূতি ব্যক্ত করেন গোপালগঞ্জ জেলার নিলখী দাখিল মাদ্রাসার দশম শ্রেণীর শিক্ষার্থী তাহেরা খানম। শুভেচ্ছা জ্ঞাপন করেন গোপালগঞ্জ ছালেহিয়া কামিল স্নাতকোত্তর মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মোঃ আবু সাঈদ ও জেলা শিল্পকলা একাডেমির সাধারণ সম্পাদক খোন্দকার এহিয়া খালেদ সাদি।

সভাপতির বক্তব্যে লিয়াকত আলী বলেন, দেশের ১৬ কোটি মানুষের মাঝে শিল্পসংস্কৃতির আলো ছড়িয়ে দেয়ার মাধ্যমে শিল্প-সংস্কৃতি ঋদ্ধ সৃজনশীল মানবিক বাংলাদেশ গড়ে তোলার লক্ষ্যে শিল্পকলা একাডেমি বিভিন্ন সাংস্কৃতিক কর্মযজ্ঞ বাস্তবায়ন করে চলেছে। মাদক, জঙ্গীবাদ ও অপসংস্কৃতির হাত থেকে দেশের তরুণ প্রজন্মকে বাঁচাবার জন্য একাডেমি নিয়মিত সংস্কৃতির বিভিন্ন বিষয়ে কর্মশালা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করছে। সেই কর্মপ্রবাহে মাদ্রাসা শিক্ষার্থীদের সংস্কৃতির মূল ধারার সঙ্গে যুক্ত করার লক্ষ্যে সাজানো হয়েছে এ আয়োজন। আলোচনা শেষে গোপালগঞ্জ জেলার ছালেহিয়া কামিল স্নাতকোত্তর মাদ্রাসা, মহিলা ফাজিল মাদ্রাসা, করপাড়া ইউনিয়ন দাখিল মাদ্রাসা, উলপুর মহিলা দাখিল মাদ্রাসা ও নিলখী দাখিল মাদ্রাসার শিক্ষার্থীরা পরিবেশন করে দেশাত্ববোধক গান। সম্মেলক কণ্ঠে গীত হয় ‘ধন ধান্য পুষ্প ভরা আমাদের এই বসুন্ধরা’, ‘আমি বাংলায় গান গাই’ ও ‘যে মাটির বুকে ঘুমিয়ে আছে লক্ষ মুক্তি সেনা’। এছাড়াও পরিবেশিত হয় হামদ ও নাত, নাটিকা এবং কবিতা আবৃত্তি।

শিল্পের পাঁচ শাখায় এ্যাপ্রিসিয়েশন কোর্স ॥ শিল্পকলা একাডেমি আয়োজিত ‘শিল্পবোধ ও নান্দনিক চেতনা’ শীর্ষক পাঁচ শাখায় এ্যাপ্রিসিয়েশন কোর্সের উদ্বোধন হয় মঙ্গলবার। শিল্প সমালোচনা, শিল্প অনুধাবন, শিল্প নির্মাণ ও লেখালেখির চর্চার লক্ষ্যেই পরিচালিত কোর্সসমূহ হলো চলচ্চিত্র, চারুকলা, নাটক, সঙ্গীত ও নৃত্য। বিকেলে একাডেমির জাতীয় চিত্রশালা মিলনায়তনে কোর্সের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ। একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন শিল্পসমালোচক মইনুদ্দিন খালেদ, চলচ্চিত্র নির্মাতা ও শিক্ষক জাহিদুর রহিম অঞ্জন, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের নাটক ও নাট্যতত্ত্ব বিভাগের অধ্যাপক ড. আফসার আহমেদ ও সহযোগী অধ্যাপক ড. সোমা মুমতাজ এবং সরকারী সঙ্গীত কলেজের শিক্ষক কমল খালিদ।

নির্বাচিত সংবাদ
এই মাত্রা পাওয়া