১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

গাজীপুরে ভগ্নিপতিসহ আন্তঃজেলা মাদক ব্যবসায়ী আটক ৪

গাজীপুরে ভগ্নিপতিসহ আন্তঃজেলা মাদক ব্যবসায়ী  আটক  ৪

স্টাফ রিপোর্টার, গাজীপুর ॥ গাজীপুরে এক নারী ও তার ভগ্নিপতিসহ আন্তঃজেলা মাদক ব্যবসায়ী চক্রের চারজনকে আটক করেছে র‍্যাব-১’র সদস্যরা। এসময় তাদের কাছ থেকে সাড়ে ৭সহস্্রাধিক পিস ইয়াবা টেবলেট, বিয়ার ও ফেন্সিডিলসহ মাদক বিক্রির নগদ দেড় লক্ষাধিক টাকা এবং মোটরসাইকেল জব্দ করা হয়েছে। রবিবার র‍্যাব-১ এর অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল মোঃ সারওয়ার-বিন-কাশেম এ তথ্য জানিয়েছেন।

আটককৃতরা হলো- জামালপুর জেলার ইসলামপুর থানার গাওকুরা গ্রামের আব্দুর রহিমের ছেলে মোঃ ফারুক হোসেন (৩৭), সিরাজগঞ্জের শাহাদাৎপুর থানার দারিয়াপুর গ্রামের আলী হোসেনের মেয়ে মোছাঃ আক্তারা বেগম (২৮), তার ভগ্নিপতি (ছোট বোনের স্বামী) নেত্রকোনা জেলা সদর থানার কাটলী গ্রামের হাসেম উদ্দীনের ছেলে শফিকুল ইসলাম ওরফে রমজান (২৯) ও টাঙ্গাইল জেলার কালীহাতী থানার কোকডহরা গ্রামের মৃত রতন চন্দ্র শীলের ছেলে গৌতম চন্দ্র শীল (৩২)। তারা গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের বিভিন্ন এলাকায় বসবাস করতো।

র‍্যাব-১এর ওই কর্মকর্তা জানান, কক্সবাজার থেকে মাদকের একটি বড় চালান নিয়ে কতিপয় মাদক ব্যবসায়ী গাজীপুর হয়ে ঢাকার দিকে আসছে। আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর চোখকে ফাঁকি দিতে তারা কখনো যাত্রীবাহী বাসে করে, কখনো পঁচনশীল মৌসুমী শাক-সবজি বহনকারী ট্রাকে, কখনো ধান, ভূট্টা, আম বহনকারী গাড়িতে করে, আবার কখনো কখনো ব্যক্তিগত গাড়িতে করে মাদকের ওই চালানটি নিয়ে আসছিল।

এ গোপন সংবাদ পেয়ে র‍্যাব-১’র সদস্যরা গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের নলজানী এলাকার টেলিফোন এক্সচেঞ্জের দক্ষিণ পাশে ওয়্যারলেস গেইট-বিআরটিএ (বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি) ডিপো সড়ক সংলগ্ন জনৈক মোঃ আমিনুল ইসলামের বাড়ির ২য় তলার ফ্ল্যাটে শনিবার অভিযান চালিয়ে আন্তঃজেলা মাদক ব্যবসায়ী চক্রের ওই চারজনকে আটক করে। এসময় আটককৃতের কাছ থেকে জিপার ব্যাগে ভর্তি ৭ হাজার ৫৮৫ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট, ২১ ক্যান বিয়ার, ২৩ বোতল ফেন্সিডিল, নগদ ১ লাখ ৬০ হাজার ৮০ টাকা এবং ১ টি মোটর সাইকেল জব্দ করা হয়।

র‍্যাব’র কর্মকর্তা আরো জানান, আটককৃতরা একটি সংঘবদ্ধ আন্তঃজেলা মাদক চোরাচালানকারী চক্রের সক্রিয় সদস্য। তারা দীর্ঘদিন ধরে কক্সবাজার জেলার সীমান্তবর্তী এলাকা টেকনাফ দিয়ে মায়ানমার হতে অবৈধভাবে চোরাচালানের মাধ্যমে ইয়াবার চালান বিমান, ট্রেন অথবা সড়ক পথে রাজধানী ঢাকাসহ আশপাশে এলাকায় নিয়ে এনে বিক্রয় ও সরবরাহ করে আসছিল। আটক চালানটি এই চক্রের অন্যতম সদস্য গাজীপুর মহানগরীর সদর থানা এলাকার দুলাল। সে টেকনাফ হতে ইয়াবার চালান ঢাকায় নিয়ে আসে। এরপর দুলাল মাদকের চালানটি শফিকুল ও ফারুকের কাছে হস্তান্তর করে। আটককৃতদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

র‍্যাব’র জিজ্ঞাসাবাদে আটককৃতরা জানায়, তারা ইয়াবা ট্যাবলেটের চালান অভিনব পন্থায় পেটের ভিতরে করে টেকনাফ থেকে নিয়ে আসত। তারা এ পন্থার প্রাথমিক পর‍্যায়ে ইয়াবা ট্যাবলেটের চালান যাতে নষ্ট না হয় সেজন্য কনডমের ভিতরে ৫০ পিস করে টেবলেট রেখে তা কসটেপ দিয়ে পেঁচিয়ে গিলে খেয়ে ফেলে। পেটের ভিতরে ঢুকিয়ে তারা ইয়াবা ট্যাবলেটের চালানটি ঢাকায় নিয়ে আনে। পরে তারা বেশী করে পানি অথবা অন্য খাবার খেয়ে পেটে চাপ সৃষ্টি করে সেগুলো খালি স্থানে বের করে। পরবর্তীতে ইয়াবার চালানটি পলিথিনের জিপারে ভরে দেশের বিভিন্ন এলাকায় সরবরাহ ও বিক্রি করে বলে র‍্যাব কর্মকর্তা ।