২১ আগস্ট ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বিদেশী বিনিয়োগ বাড়ায় চাহিদার শীর্ষে জেএমআই সিরিঞ্জ

বিদেশী  বিনিয়োগ বাড়ায় চাহিদার শীর্ষে জেএমআই সিরিঞ্জ

অর্থনৈতিক রিপোর্টারর ॥ জেএমআই সিরিঞ্জ অ্যান্ড মেডিকেল ডিভাইস লিমিটেডে জাপানের বহুজাতিক কোম্পানি নিপ্রো করপোরেশনের বিনিয়োগ করেছে। জেএমআইয়ের কাছ থেকে নিপ্রোর ১ কোটি ১১ লাখ শেয়ার কেনার কারণে কোম্পানিটির বিদেশীদের শেয়ার ধারনের অংশে বড় ধরনের পরিবর্তন এসেছে। একইসঙ্গে কোম্পানিটির সঙ্গে বিদেশী কোম্পানিটির চুক্তির কারণে শেয়ারবাজারে কোম্পানিটির চাহিদা বেড়েছে। বুধবারে কোম্পানিটির সবচেয়ে বেশি টাকার শেয়ার লেনদেন করেছে। বিদেশী বিনিয়োগ বাড়ায় কোম্পানিটি এখন থেকে বহুজাতিক কোম্পানির মর্যাদা পাবে বলে মনে করছেন বাজার সংশ্লিষ্টরা।

জানা গেছে, জাপানের নিপ্রো করপোরেশন জেএমআইয়ের ১ কোটি ১১ লাখ শেয়ার কেনার আগ্রহ প্রকাশ করার পর কোম্পানিটির পর্ষদ নিপোর শেয়ার কেনার বিষয়ে তাদের সম্মতি দেয়। পরবর্তীতে শেয়ারবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড একচেঞ্জ কমিশনও তাতে অনুমতি দেয়। কোম্পানিটির অনুমোদিত মূলধন বাড়ানোর পর শেয়ার বিক্রি সম্পন্ন হয়। মূলত এই টাকা দিয়ে ব্যাংক ঋণ পরিশোধের কারণে পরবর্তীতে কোম্পানিটির আয়েও বড় ধরনের ইতিবাচক প্রভাব পড়ছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে জেএমআই সিরিঞ্জের কোম্পানি সচিব মোহাম্মদ তারেক হোসেন খান বলেন, জেএমআই গ্রুপের আরো তিনটি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে নিপ্রো কাজ করছে। চতুর্থ প্রতিষ্ঠান হিসেবে জেএমআই সিরিঞ্জের শেয়ার কেনার মাধ্যমে এর অংশীদার হয়। বিশ্বের ৫৭টিরও বেশি দেশে নিপ্রোর কার্যক্রম রয়েছে। মেডিকেল ডিভাইসের অনেক ধরনের পণ্যও রয়েছে তাদের। ফলে যৌথভাবে নিপ্রো ও জেএমআইয়ের ভালো ব্যবসা করার সুযোগ রয়েছে।

জানা গেছে, ৩০ জুন সমাপ্ত ২০১৮ হিসাব বছরের জন্য ৩০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দিয়েছে কোম্পানিটি। সমাপ্ত হিসাব বছরে এর শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৬ টাকা ৮৬ পয়সা ও শেয়ার প্রতি নিট সম্পদমূল্য (এনএভিপিএস) ৭১ টাকা ২৭ পয়সা।

২০১৭ সালের সমাপ্ত হিসাব বছরের জন্য ৩০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দেয় কোম্পানিটি। আলোচ্য সময়ে এর ইপিএস হয় ৬ টাকা ৭৮ পয়সা ও এনএভিপিএস ৬৭ টাকা ৬৪ পয়সা।

ডিএসইতে বুধবার শেয়ারটির সর্বশেষ দর ৫ দশমিক ৮০ শতাংশ বা ৩০ টাকা ৪০ পয়সা বেড়ে দাঁড়ায় ৫১৩.৪০ টাকায়। দিনভর দর ৪৯৩ টাকা থেকে ৫১৯ টাকা ৯০ পয়সার মধ্যে ওঠানামা করে। সমাপনী দর ছিল ৫১৩ টাকা ৪০ পয়সা। সারাদিনে কোম্পানিটির ৫ লাখ ৮ হাজার ৩৭ টি শেয়ার লেনদেন হয়েছে, যার বাজার মূল্য ২৫ কোটি ৮৭ লাখ টাকা।

২০১৩ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত এ কোম্পানির অনুমোদিত মূলধন ১০০ কোটি ও পরিশোধিত মূলধন ২২ কোটি টাকা। রিজার্ভে রয়েছে ৬৩ কোটি ৪০ লাখ টাকা। কোম্পানির মোট শেয়ারের মধ্যে ৩০ দশমিক ৪২ শতাংশ উদ্যোক্তা-পরিচালক, ৩ দশমিক ১৩ শতাংশ প্রতিষ্ঠান, ৫০ দশমিক ২৩ শতাংশ বিদেশী ও ১৬ দশমিক ২২ শতাংশ রয়েছে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের হাতে।

নির্বাচিত সংবাদ