০৭ আগস্ট ২০১৯

বিশ্ব দক্ষতা প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে যাচ্ছে বাংলাদেশ

বিশ্ব দক্ষতা প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে যাচ্ছে বাংলাদেশ

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ প্রথম বারের মতো বিশ্ব দক্ষতা প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে যাচ্ছে বাংলাদেশ। আগামী ২২-২৭ আগস্ট রাশিয়ার কাজানে অনুষ্ঠিতব্য এই প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশ দুটি ট্রেডে অংশ নেবে। ইতোমধ্যে এর জন্য নির্বাচিত প্রতিযোগীদের প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ চলছে। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের অধীন জাতীয় দক্ষতা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ এক্ষেত্রে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে।

দেশে জাতীয় পর্যায়ে অনুষ্ঠিত রাইজিং স্টার প্রতিযোগিতার মধ্য দিয়ে দুটো ট্রেডে নির্বাচিত দুই চ্যাম্পিয়ন-ফ্যাশন ডিজাইন এ নাফিসা ছাদাফ আচঁল এবং কনফেকশনারি এ্যান্ড প্যাটিসেরিতে তানজিম তাবাস্সুম ইসলাম প্রতিযাগিতায় অংশ নেবে। সরকার আশাবাদী এই দুই প্রতিযোগী বিশ্ব প্রতিযোগিতায় সফলতা দেখাবেন। দেশে প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পর তাদের গ্রুমিং চলছে এবং এই ক্ষেত্রে সহায়তা করছে, হোটেল রেডিসান, হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টাল ও কুপারস। ফ্যাশন ডিজাইনে সহায়তা করছেন বিজিএমইএ। সংশ্লিষ্ট শিল্প দক্ষতা পরিষদ সামগ্রিক সহায়তা করছে।

সোমবার এনএসডিএ এর নির্বাহী চেয়ারম্যান মোঃ ফারুক হোসেন এক সংবাদ সম্মেলনে একথা জানান। বিশ্ব দক্ষতা প্রতিযোগিতা ২০১৯ এ অংশ নিতে সরকারের প্রস্তুুতি সম্পর্কে অবহিত করতে এই সংবাদ সম্মেলন আয়োজন করা হয়। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সচিব সাজ্জাদুল হাসান এই প্রেস কনফারেন্সে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। এনএসডিএ এর সদস্য, কর্মকর্তাগন, শিল্প দক্ষতা পরিষদের প্রতিনিধি, প্রতিযোগী, টেকনিক্যাল এক্সপার্ট প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। সাজ্জাদুল হাসান বলেন, দেশের জনগোষ্ঠীকে জনশক্তিতে রূপান্তর ও দক্ষ জনশক্তি হিসেবে তাদের কর্মসংস্থান ও আত্মকর্মসংস্থানের কোন বিকল্প নেই। সরকারের রাজনৈতিক ইসতেহারেও বলা হয়েছে ‘‘তারুণ্যের শক্তি বাংলাদেশের সমৃদ্ধি”। এই ইশতেহারে তরুণ যুব সমাজকে দক্ষ জনশক্তিতে রূপান্তর ও কর্মসংস্থানের অঙ্গীকার করা হয়েছে।

নির্বাহী চেয়ারম্যান মো. ফারুক হোসেন জাতীয় দক্ষতা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ এর দায়িত্ব নিয়ে একটি উপস্থাপনার মধ্য দিয়ে বলেন, বাংলাদেশ ওয়ার্ল্ড স্কিলস এর ৭৯ তম সদস্য। এমন একটি বিশ^ পর্যায়ের প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশের অংশ গ্রহণ গৌরবের। জাতীয় দক্ষতা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ জাতীয়, আঞ্চলিক ও বিশ^ পর্যায়ের সকল দক্ষতা প্রতিযোগিতায় অংশ নেবে এবং দেশের দক্ষতা উন্নয়নের অবস্থান বিশ^ব্যাপী প্রচার করবে। এতে আর্ন্তজাতিক বাজারে বাংলাদেশের দক্ষ জনশক্তি রফতানি বৃদ্ধি পাবে।