১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

নতুন ভূমিকায় স্পিন জাদুকর শেন ওয়ার্ন

নতুন ভূমিকায় স্পিন জাদুকর শেন ওয়ার্ন

অনলাইন ডেস্ক ॥ ক্রিকেট ছাড়তে না ছাড়তেই কোচিংয়ে হাতেখড়ি কয়েছিল অসি স্পিন জাদুকর শেন ওয়ার্নের। ২০০৮ সালে আইপিএলের প্রথম আসরেই ক্রিকেটার কাম কোচ হিসেবে রাজস্থান রয়্যালসকে শিরোপা জিতিয়েছিলেন তিনি। এরপর ২০১১ সাল পর্যন্ত এই দলের কোচের ভূমিকায় দেখা যায় তাকে।

এরপর দীর্ঘ সময় পার হয়ে গেছে। শেন ওয়ার্নকে আর কোচের ভূমিকায় দেখা যায়নি। দীর্ঘ আট বছর পর আবারও কোচ হতে যাচ্ছেন ওয়ার্ন। এবার ইংল্যান্ডের নতুন ফর্ম্যাটের ক্রিকেট টুর্নামেন্ট ‘দ্য হান্ড্রেডস’-এ তিনি প্রধান কোচ হিসেবে দায়িত্ব নিচ্ছেন লর্ডস কেন্দ্রীক ফ্রাঞ্চাইজির।

দলটির নাম এখনও ঠিক হয়নি। তবে পুরুষ ও নারী, উভয় দলের হেড কোচ চূড়ান্ত হয়ে গেছে। ওয়ার্ন দায়িত্ব নিচ্ছেন ছেলেদের দলের। লর্ডস ফ্রাঞ্চাইজির নারী দলের প্রধান কোচ হচ্ছেন, অস্ট্রেলিয়া নারী দলের সাবেক প্রধান কোচ লিজা কেইটলি।

দ্য হান্ড্রেডস- কোচ হিসাবে ওয়ার্ন যোগ দিলেন সাবেক দুই অসি সতীর্থর সঙ্গে। সাইমন ক্যাটিচ এবং অ্যান্ড্রু ম্যাকডোনাল্ড আগেই ইসিবি’র এই নতুন টুর্নামেন্টে কোচিং করানোর জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন। ক্যাটিচ কোচ হচ্ছেন ম্যানচেস্টার ফ্রাঞ্চাইজির। ম্যাকডোনাল্ড দায়িত্ব নিচ্ছেন বার্মিংহ্যামের।

শেন ওয়ার্নের নতুন দলটি গঠন করা হবে মেরিলিবোর্ন ক্রিকেট ক্লাব (এমসিসি), মিডলসেক্স, এসেক্স এবং নর্দাম্পটনশায়ারের সমন্বয়ে। এই দলগুলো থেকে ক্রিকেটার নিয়েই গঠন করা হবে লর্ডসের ফ্রাঞ্চাইজিটি।

তুন এই চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করে রীতিমত উত্তেজিত ওয়ার্ন। তিনি বলেন, ‘নতুন টুর্নামেন্টে লর্ডস ভিত্তিক দলের হেড কোচ হওয়ার প্রস্তাব পেয়ে গর্বিত মনে হচ্ছে নিজেকে। সম্পূর্ণ নতুন একটা টুর্নামেন্টে আধুনিক ক্রিকেটারদের সঙ্গে কাজ করার সুযোগ মিলছে। এটা সত্যিই রোমাঞ্চকর বিষয়। আমি এমনই সুযোগের অপেক্ষায় ছিলাম। আশা করি নতুন এই চ্যালেঞ্জ বেশ উপভোগ্য হবে এবং লর্ডসের সমর্থকদের প্রচুর আনন্দ উপহার দিতে পারব।’

ওয়ার্ন আরও বলেন, ‘ক্রিকেট যখনই কোনও মোড় নিয়েছে, আমি সামনে থাকার চেষ্টা করেছি। ঠিক যেমনটা আইপিএল শুরু হওয়ার সময় আমার মনে হয়েছিল। একদম নতুন একটা টুর্নামেন্ট আইপিএলে রাজস্থানের দায়িত্ব নিয়ে ছিলাম ক্যাপ্টেন ও কোচ হিসেবে। শুরুতেই আমরা চ্যাম্পিয়ন হই। দ্য হান্ড্রেডসও একটা নতুন টুর্নামেন্ট। এই ফর্ম্যাটটা আমার মনে ধরেছে। নিশ্চিতভাবেই অত্যন্ত উত্তেজক রূপ নিতে চলেছে এই টুর্নামেন্টে। তাই আরও একবার চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করার সিদ্ধান্ত নিলাম।’

অন্যদিকে লিজা কেইটলি এই টুর্নামেন্টের একমাত্র নারী কোচ। লর্ডস ক্রিকেট ফ্রাঞ্চাইজির দায়িত্ব নেওয়ার আগে তিনি অস্ট্রেলিয়ার জাতীয় দলকে কোচিং করিয়েছেন। এছাড়া নারী বিগ ব্যাশ লিগে ওয়েস্টার্ন অস্ট্রেলিয়া ও পার্থ স্কোর্চার্স দলের কোচ ছিলেন তিনি।

এই মাত্রা পাওয়া