১১ আগস্ট ২০১৯

স্মার্ট ক্রিকেট বল

স্মার্ট ক্রিকেট বল

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ প্রযুক্তি ক্রিকেটে কতটা সহযোগিতা করতে পেরেছে, কতটা বিতর্কিত সিদ্ধান্ত নিয়ে এসেছে, নির্ভুল সিদ্ধান্তে কতটুকু অবদান রাখতে পারছে- এসব আলোচনা-সমালোচনার মাঝেই প্রযুক্তির নতুন প্রয়োগ যুক্ত হতে চলেছে খেলাটার সাথে। পেটের ভেতরে মাইক্রোচিপ সংযুক্ত করে ‘স্মার্ট ক্রিকেট বল’ তৈরি করার কথা জানিয়েছে কুকাবুরা।

অস্ট্রেলিয়ার ক্রীড়া সরঞ্জাম প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান কুকাবুরা জানাচ্ছে, দেশটির ঘরোয়া লিগ বিগ ব্যাশের আসছে মৌসুমেই এই স্মার্ট বল ব্যবহার করা হতে পারে।

নতুন ধরনের ‘স্মার্ট ক্রিকেট বল’-এর একটা প্রাথমিক পরীক্ষা অবশ্য হয়ে গেছে। সেটিও আবার বিখ্যাত লর্ডস গ্রাউন্ডের ইনডোরের নেটে। চলতি অ্যাশেজ সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টের আগে এ বলে নেটে অনুশীলন করেছেন জস বাটলার।

ইংলিশদের তারকা ব্যাটসম্যান বাটলার অনুশীলন শেষে ভোট দিয়েছেন প্রযুক্তি যুক্ত নতুন বলের দিকেই। জানিয়েছেন টেস্ট ক্রিকেটেও এটির ব্যবহার দেখতে মুখিয়ে তিনি, ‘অবশ্যই, আমি এটিকে টেস্ট ক্রিকেটে দেখতে চাই। উন্নত পর্যায়ের কোচিংয়ে এটা হবে দারুণ সংযোজন। তাৎক্ষণিক তথ্য মেলাটা হবে চমৎকার এক ব্যাপার। দেখে মনে হচ্ছে, ক্রিকেটে ব্যবহার হওয়া সাধারণ বলের মতোই আচরণ হবে এই বলের।’

যদিও স্মার্ট বলের পরীক্ষা-নিরীক্ষাটা করা হয়েছে মূলত ওয়ানডে ও টি-টুয়েন্টির সাদা বলকে ঘিরেই। তবে টেস্টের লাল বলেও এটি একসময় ব্যবহার করা সম্ভব হবে বলছে প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠানটি।

বলা হচ্ছে, বলের গতির পরিসংখ্যান অতিস্বল্প সময়ে দেবে এই স্মার্ট বল। তাৎক্ষণিকভাবে কয়েকধাপে যেমন- বোলার বল ছোঁড়ার সময়ের গতি, পিচের পর বাউন্স করার পূর্বের গতি, বাউন্স করার পরের গতি আরও নিখুঁতভাবে জানতে সহযোগিতা করবে মাইক্রোচিপ সংযুক্ত বল। পেসারদের পাশাপাশি স্পিনারদের একই পয়েন্টের বিষয়গুলোও আরও নিখুঁতভাবে জানাতে পারবে।

মাঠ আম্পায়ারের জটিল ও গুরুত্বপূর্ণ সব তাৎক্ষণিক সিদ্ধান্তের ক্ষেত্রে, ঘাসে স্পর্শ করা প্রশ্নবিদ্ধ ক্যাচের ক্ষেত্রে, কট বিহাইন্ড বা এলবিডব্লিউর ক্ষেত্রে ডিআরএস তথা, আম্পায়ার্স ডিসিশন রিভিউ সিস্টেমেও স্মার্ট বল যাতে কার্যকরী ভূমিকা রাখতে পারে সে বিষয়ে আরও পরীক্ষা-নিরীক্ষা চলছে।

বিগ ব্যাশের পরীক্ষামূলক চালুর পর বিশ্বের ফ্র্যাঞ্চাইজি টি-টুয়েন্টি লিগগুলো এই স্মার্ট বল ব্যবহারে আগ্রহী হবে বলে প্রত্যাশা করা হচ্ছে। সেখানে পরীক্ষা সফল হলে এটি আন্তর্জাতিক অঙ্গনের জন্য বিবেচনা করার চেষ্টা হবে। স্পোর্ট-কর নামের একটি প্রতিষ্ঠান কুকাবুরার সঙ্গে স্মার্ট বল নিয়ে কাজ করছে। যে প্রতিষ্ঠানটির প্রধান অস্ট্রেলিয়ার সাবেক তারকা পেসার মাইকেল ক্যাসপ্রোভিচ।