১৮ আগস্ট ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

নরসিংদী ও গাইবান্ধায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৪

নরসিংদী ও গাইবান্ধায়  সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৪

অনলাইন ডেস্ক ॥ নরসিংদীর শিবপুরে যাত্রীবাহী বাস ও সিএনজির মুখোমুখি সংঘর্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীসহ দুজন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও তিনজন। নিহতরা হলেন- শিবপুরের ধানুয়া গ্রামের হারুন মিয়ার মেয়ে লামিয়া আক্তার (২৪) ও একই উপজেলার বৈলাব গ্রামের সিএনজি চালক রিপন মিয়া (৩৫)। নিহত লামিয়া আক্তার পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী।

গতকাল মঙ্গলবার রাতে শিবপুরের চান্দারটেক এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

এ দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন লামিয়ার মা ও প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা আসমউল হুসনা, মজিবুর রহমান (২৬) ও রহিম (৩৮)।

পুলিশ জানায়, মঙ্গলবার রাতে উপজেলার চান্দারটেক এলাকায় ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা রয়েল পরিবহনের সঙ্গে ইটাখলাগামী একটি সিএনজির মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই সিএনজিচালক রিপনের মৃত্যু হয়।

দুর্ঘটনার পর স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে শিবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। সেখানে চিকিৎসকরা লামিয়াকে মৃত ঘোষণা করেন।

অন্যদের নরসিংদী সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য আহত দুজনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।

পুলিশ ঘাতক বাসটিকে আটক করেছে। তবে চালক ও হেলপার পলাতক রয়েছে।

অন্যদিকে গাইবান্ধায় মাইক্রোবাসের সঙ্গে সিএনজির সংঘর্ষে দুইজন নিহত হয়েছেন। এ সময় আহত হয়েছেন সিএনজির চার যাত্রী। মঙ্গলবার রাত ১০টার দিকে গাইবান্ধা-সুন্দরগঞ্জ সড়কের দাড়িয়াপুর এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন সদরের খোলাহাটি ইউনিয়নের মাঠ বাজার গ্রামের মাজনু মিয়ার ছেলে সিএনজিচালক খোরশেদ আলম (৩২) ও সুন্দরগঞ্জ উপজেলার লেংগার বাজারের আবুল হোসেনের ছেলে রোমান মিয়া (৩৪)।

পুলিশ জানায়, গাইবান্ধা থেকে একটি সিএনজি যাত্রী নিয়ে দাড়িয়াপুর বাজারের দিকে যাচ্ছিল। এ সময় গাইবান্ধাগামী বিয়ের যাত্রী বহনকারী মাইক্রোবাস দাড়িয়াপুর এলাকায় পৌঁছালে সিএনজির সঙ্গে সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই সিএনজির চালক নিহত হন। সেই সঙ্গে পাঁচজন আহত হন। ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা স্থানীয়দের সহায়তায় আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান রোমান। পরে আহত চারজনকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

সদর থানা পুলিশের ওসি খাঁন মো. শাহারিয়ার বলেন, মাইক্রোবাসের সঙ্গে সিএনজির সংঘর্ষে দুইজন নিহত এবং চারজন আহত হন। আহতদের রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।