১৮ আগস্ট ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সাম্প্রদায়িক অপশক্তির মূলোৎপাটন করতে হবে ॥ কাদের

নিজস্ব সংবাদদাতা, নোয়াখালী, ১৪ আগস্ট ॥ সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী এবং আওয়াামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, এই মাস হলো শোকের মাস, অন্ধকারের মাস। এ মাস এলে অপশক্তিরা তৎপর হয়ে ওঠে। এরা কোন দলের নয়, এরা গোটা জাতি ও বাংলাদেশের শত্রু। এদের বিষদাঁত ভেঙ্গে দিতে হবে। বঙ্গবন্ধুকন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এ দেশ থেকে সাম্প্রদায়িক অপশক্তির মূল উৎপাটনই করা হবে আমাদের ঈদের দিনের প্রার্থনা।

তিনি সোমবার নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার বড় রাজাপুর গ্রামে নিজ এলাকায় ঈদ-উল-আজহার নামাজ আদায় শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন। ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘এবার ঈদে শেষ পর্যন্ত মানুষ স্বস্তিতে বাড়ি ফিরেছে। শেষটা যার ভাল, সেটাই ভাল। আমি আশা করি, যারা ঘরে ফিরেছেন, ঈদের পরেও তারা নিরাপদে কর্মস্থলে ফিরে আসবেন।’

সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘(ঈদযাত্রার) মাঝখানে নদীতে প্রচ- স্রোত ও ভারি বৃষ্টির জন্য চলাচল কিছুটা বিঘিœত হয়েছে। পশুবাহী গাড়ির জন্য কোথাও কোথাও সমস্যা হয়েছে। ঢাকা-চট্টগ্রাম, ঢাকা-সিলেটসহ ঢাকা-ময়মনসিংহ সব রুটই ভাল ছিল। একটি রুটে সমস্যা হয়েছে, ঢাকা-টাঙ্গাইল রুটের বঙ্গবন্ধু সেতুর ওপারে নলকা পর্যন্ত সমস্যা হয়েছে। তবে সেটা গতকাল ছিল না।’

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন নোয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও নোয়াখালী-৪ আসনের সংসদ সদস্য একরামুল করিম চৌধুরী, বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা, কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি খিজির হায়াতসহ জেলা ও উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ। এর আগে মন্ত্রী তার মা-বাবার কবর জিয়ারত এবং স্থানীয় মুসল্লি ও নেতাকর্মীদের সঙ্গে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করেন।

পাঁচমাস ছয়দিন পর নিজ এলাকায় কাদেরকে পেয়ে আবেগাপ্লুত নেতা-কর্মীরা : দীর্ঘদিন পর নিজের এলাকায় গেলেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। রবিবার বিকেলে নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে গেলে ওবায়দুল কাদেরকে দেখতে ভিড় জমান দলীয় নেতাকর্মীরা।

দীর্ঘদিন অসুস্থ থাকার পর সিঙ্গাপুরে চিকিৎসা শেষে সুস্থ হয়ে দেশে ফিরে এই প্রথম নিজের নির্বাচনী এলাকায় যান ওবায়দুল কাদের। পরে সর্বস্তরের নেতাকর্মীর সঙ্গে পর্যায়ক্রমে পবিত্র ঈদ-উল-আজহার শুভেচ্ছা বিনিময় করেন এবং নেতাকর্মীদের খোঁজখবর নেন তিনি।

দীর্ঘদিন পর ওবায়দুল কাদেরকে কাছে পেয়ে আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন দলীয় নেতাকর্মীরা। অসুস্থতার সময় নেতাকর্মীদের আন্তরিক ভালবাসা এবং সুস্থতার জন্য দোয়া করায় সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন ওবায়দুল কাদের।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, নোয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এ এইচ এম খায়রুল আনম সেলিম চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক সংসদ সদস্য একরামুল করিম চৌধুরী, কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি খিজির হায়াত খান, বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা, পৌরসভা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহাম্মদ রেয়াজুল হক লিটন, সাধারণ সম্পাদক কাউন্সিলর আবুল খায়ের প্রমুখ। এরপর নিজের নির্বাচনী এলাকা কবিরহাট উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রয়াত নেতাদের কবর জিয়ারত করেন এবং দলীয় নেতাকর্মীর সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন তিনি।

উল্লেখ্য, সিঙ্গাপুরে দুই মাস ১০ দিন চিকিৎসাধীন থাকার পর গত ১৫ মে দেশে ফেরেন ওবায়দুল কাদের। দেশে আসলেও শারীরিক কারণে তিনি নিজ গ্রামে আসতে পারেননি। প্রায় পাঁচ মাস ৬ দিন পর তিনি নিজ নির্বাচনী এলাকায় আসেন এলাকাবাসীর সঙ্গে ঈদ-উল-আজহা উদযাপন করতে।