১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

কাঁঠালবাড়ি ঘাটে ঢাকামুখী যাত্রীদের ভীড়

কাঁঠালবাড়ি ঘাটে ঢাকামুখী যাত্রীদের ভীড়

নিজস্ব সংবাদদাতা, মাদারীপুর ॥ আজ রবিবার প্রথম কর্মদিবসে ঢাকামুখী যাত্রীদের ঢল নেমেছে কাঁঠালবাড়ি ঘাটে। সকালের দিকে আকাশ মেঘলা থাকায় লঞ্চ ও স্পীডবোটের পাশাপাশি ফেরিতেও যাত্রীদের প্রচন্ড ভীড় দেখা গেছে। দুপুরের পর আবহাওয়ার উন্নতি হওয়ায় চাপ আরো বেড়ে গেছে। দক্ষিনাঞ্চল থেকে ছেড়ে আসা প্রতিটি যানবাহন ও কাঁঠালবাড়ি ঘাটে নেমে স্পীডবোটে ও লঞ্চগুলোতে বাড়তি ভাড়া আদায়ের অভিযোগ করেন যাত্রীরা।

ঘাটের একাধিক সুত্রে জানা যায়, আজ রবিবার বেলা বাড়ার সাথে সাথে শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি নৌপথ হয়ে দক্ষিনাঞ্চলের যাত্রীদের ভীড় বাড়তে শুরু করেছে। কাঁঠালবাড়ি ঘাট থেকে ছেড়ে যাওয়া প্রতিটি ফেরি, লঞ্চ, স্পীডবোটেই যাত্রী চাপ। লঞ্চে অতিরিক্ত যাত্রী ও ভীড় সামাল দিতে ঘাটে পুলিশ, র্যাব, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটসহ আইন শৃংখলা রক্ষাবাহিনী নিয়োজিত রয়েছে। ফেরিতে যানবাহনের চাপ কম থাকলেও যাত্রীদের পর্যাপ্ত চাপ রয়েছে। স্পীডবোটেও চাপ ছিল সহনীয় পর্যায়ে। যশোর, বরিশাল, খুলনাসহ দক্ষিনাঞ্চলের বিভিন্ন জেলা থেকে প্রতিটি যানবাহন বোঝাই হয়ে যাত্রী কাঁঠালবাড়ি ঘাটে আসছে। ঘাট পর্যন্ত আসতে যাত্রীদের গুনতে হচ্ছে দেড় থেকে দ্বিগুন ভাড়া। স্পীডবোট ও কিছু কিছু লঞ্চেও বাড়তি ভাড়া আদায়ের অভিযোগ উঠেছে। নদী পাড়ি দিয়ে শিমুলিয়া ঘাট থেকে বাড়তি ভাড়া গুনে গন্তব্যে পৌছাতে হচ্ছে।

কাঁঠালবাড়ি লঞ্চ ঘাটের ট্রাফিক ইন্সপেক্ট আক্তার হোসেন জানান, লঞ্চে সকাল থেকেই যাত্রীদের অতিরিক্ত চাপ রয়েছে। আজ সারাদিনই ঢাকামুখো যাত্রীদের চাপ থাকবে। তবে দু‘এক দিনের মধ্যে চাপ কমে স্বাভাবিক হবে। এ সময় একটু ভীড় থাকবেই-প্রতি বছরই থাকে।’

মাদারীপুরের কাঁঠালবাড়ী ফেরি ঘাটের ব্যবস্থাপক আব্দুস সালাম জানিয়েছেন, ‘দঞ্চিণাঞ্চলের ২১ জেলার মানুষ ঢাকার সঙ্গে যাতায়াতের জন্য কাঁঠালবাড়ি-শিমুলিয়া নৌপথ ব্যবহার করেন। রবিবার প্রথম কর্মদিবসেও ঈদে যাত্রী সেবায় ১৮ ফেরি, ৮৭ লঞ্চ, ২‘শতাধিক স্পিডবোট চলাচল করছে।’

এই মাত্রা পাওয়া