১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

৯০ হাজার কোটি টাকার সঞ্চয় পত্র বিক্রি

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ গত অর্থবছর শেষে সঞ্চয়পত্র বিক্রি ৯০ হাজার কোটি টাকা ছাড়িয়ে গেছে। অতীতের সব রেকর্ড ভেঙ্গে এই অঙ্ক আগের বছরের চেয়ে প্রায় ১৫ শতাংশ বেশি। রবিবার জাতীয় সঞ্চয় অধিদফতর সঞ্চয়পত্র বিক্রির সর্বশেষ যে তথ্য প্রকাশ করেছে তাতে দেখা যায়, গত ২০১৮-১৯ অর্থবছরে সব মিলিয়ে ৯০ হাজার ২৮০ কোটি টাকার সঞ্চয়পত্র বিক্রি হয়েছে। এর মধ্যে আগে বিক্রি হওয়া সঞ্চয়পত্রের মেয়াদ পূর্তির কারণে আসল এবং সুদ পরিশোধ করা হয়েছে ৪০ হাজার ৩৪১ কোটি টাকা। এ হিসাবে নিট বিক্রির পরিমাণ হচ্ছে ৪৯ হাজার ৯৩৯ কোটি ৪৮ লাখ টাকা।

সঞ্চয় অধিদফতরের তথ্যমতে, গত ২০১৮-১৯ অর্থবছরে সঞ্চয়পত্র বিক্রি থেকে ২৬ হাজার ১৯৭ কোটি টাকা ঋণ নেয়ার লক্ষ্য থাকলেও বিক্রি বেড়ে যাওয়ায় পরে তা বাড়িয়ে ৪৫ হাজার কোটি টাকা করা হয়। কিন্তু অর্থবছর শেষে দেখা যায়, সেই ধার গিয়ে প্রায় ৫০ হাজার কোটি টাকায় গিয়ে ঠেকেছে।

২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেটে সঞ্চয়পত্র থেকে ২৭ হাজার কোটি টাকা ঋণ নেয়ার লক্ষ্য ধরেছে সরকার। এবার সঞ্চয়পত্র থেকে ঋণের লক্ষ্য কম ধরা হয়েছে। তবে ব্যাংক থেকে ধার করার লক্ষ্যমাত্রা বেশ বাড়ানো হয়েছে। ২০১৮-১৯ অর্থবছরের ব্যাংক খাত থেকে সরকারের ঋণের লক্ষ্য ধরা হয়েছিল ৪২ হাজার ২৯ কোটি টাকা। সঞ্চয়পত্র বিক্রি বাড়ায় পরে সেই লক্ষ্য কমিয়ে ৩০ হাজার ৮৯৫ কোটি টাকায় নামিয়ে আনা হয়।

এদিকে বিক্রি কমাতে ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেটে সঞ্চয়পত্রে বিনিয়োগে উৎসে করের হার ৫ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ১০ শতাংশ নির্ধারণ করা হয়। পরে পেনশনভোগীদের জন্য সঞ্চয়পত্রে পাঁচ লাখ টাকা পর্যন্ত কর হার কমিয়ে ৫ শতাংশ বহাল রাখা হয়। পরে ২৯ জুলাই সংবাদ সম্মেলনে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল ঘোষণা দেন, সব ধরনের সঞ্চয়পত্রে পাঁচ লাখ টাকা পর্যন্ত বিনিয়োগে উৎসে করের হার ১০ শতাংশ থেকে কমিয়ে ৫ শতাংশ কাটা হবে।