১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

রাম মন্দিরের জন্য সোনার ইট দিতে চান মোগল ‘উত্তরাধিকারী’

রাম মন্দিরের জন্য সোনার ইট দিতে চান মোগল ‘উত্তরাধিকারী’

অনলাইন ডেস্ক ॥ নিজেকে শেষ মোগল সম্রাট বাহদুর শাহ্ জাফরের উত্তরাধিকারী বলে দাবিকারী প্রিন্স হাবীবুদ্দিন তুসি অযোধ্যায় রাম মন্দির নির্মাণের জন্য একটি সোনার ইট দেওয়ার প্রস্তাব দিয়েছেন।

ভারতীয় গণমাধ্যম এনডিটিভি জানিয়েছে, ১৫২৯ সালে বাবরি মসজিদ নির্মাণকারী মোগল সম্রাট বাবরের উত্তরাধিকারী হওয়ায় তিনিই বাবরি মসজিদ-রাম জন্মভূমির জমিটির বৈধ মালিক বলে দাবি করেছেন তুসি। জমিটি তার কাছে হস্তান্তর করা হোক, এটিই চান তিনি।

রবিবার তুসি বলেছেন, সুপ্রিম কোর্ট যদি জমিটি তাকে দিয়ে দেয় তাহলে পুরো জমিটি তিনি রাম মন্দির নির্মাণের জন্য দান করবেন।

বাবরি মসজিদ যেখানে নির্মাণ করা হয়েছিল সেখানে একটি রাম মন্দির ছিল, এমন বিশ্বাস ও বিশ্বাসকারীদের অনুভূতির প্রতি শ্রদ্ধাবোধ থেকেই তিনি এমনটি করবেন বলে জানিয়েছেন তুসি।

‘কর সেবকরা’ ১৯৯২ সালের ৬ ডিসেম্বর বাবরি মসজিদ গুড়িয়ে দিয়েছিল।

জমিটি তাকে দেওয়ার দাবি তুলে ৫০ বছর বয়সী তুসি সুপ্রিম কোর্টে একটি পিটিশন দায়ের করেছেন। অযোধ্যার ওই জমিটির মালিকানা নিয়ে বর্তমানে ভারতীয় সুপ্রিম কোর্টে শুনানি চলছে। এর পাশাপাশি অনুমতি পাওয়া গেলে তুসির আবেদনের শুনানিও শুরু হবে।

তুসির যুক্তি, অধোয্যার ওই জমির মামলায় যুক্ত পক্ষগুলোর কারো কাছেই তাদের দাবি প্রমাণ করার মতো নথিপত্র নেই কিন্তু মোগল উত্তরাধিকারী হওয়ায় জমিটির ওপর তার অধিকার আছে। তিনি জানান, ইতোমধ্যেই মন্দির নির্মাণের জন্য পুরো জমিটি দিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি।

তুসি তিনবার অযোধ্যায় গিয়েছিলেন। সেখানে অস্থায়ীভাবে নির্মিত একটি মন্দিরে তিনি প্রার্থনাও করেছিলেন বলে জানিয়েছে এনডিটিভি। গত বছর ওই বিতর্কিত এলাকাটি পরিদর্শনের সময় মন্দিরের জন্য জমিটি দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন তুসি।

রাম মন্দির ধ্বংসের জন্য হিন্দু সম্প্রদায়ের কাছে ক্ষমা প্রার্থনাও করেছেন তিনি। নিজের মাথায় একটি ‘চরণ-পাদুকা’ ঠেকিয়ে প্রতীকি ক্ষমা প্রার্থনাও করেছেন।

নির্বাচিত সংবাদ