২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

কেইসের মুখেই শিরোপার হাসি

 কেইসের মুখেই শিরোপার হাসি

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ আগামী সপ্তাহেই শুরু হবে ইউএস ওপেন। মৌসুমের শেষ মেজর টুর্নামেন্টের প্রস্তুতি মঞ্চ হিসেবেই বিবেচিত সিনসিনাটি মাস্টার্স। যে কারণে বিশ্ব টেনিস র‌্যাঙ্কিংয়ের প্রায় সব শীর্ষ তারকারাই অংশ নেন ওহিওর এই টুর্নামেন্টে। আর এই টুর্নামেন্টেই বাজিমাত করলেন মেডিসন কেইস। দুর্দান্ত খেলেই সিনসিনাটি মাস্টার্সের শিরোপা জেতেন তিনি।

সিনসিনাটি মাস্টার্সের ফাইনালে রবিবার কঠিন লড়াইয়ের পর মেডিসন কেইস ৭-৫ এবং ৭-৬ (৫) গেমে পরাজিত করেন রাশিয়ার সভেতলনা কুজনেতসোভাকে। সেইসঙ্গে চলতি মৌসুমের দ্বিতীয় শিরোপা জয়ের স্বাদ পান তিনি। এর আগে গত এপ্রিলে ভলভো কার ওপেনেও চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করেছিলেন ২০১৭ ইউএস ওপেনের ফাইনালিস্ট। সব মিলিয়ে এটা মেডিসন কেইসের ক্যারিয়ারের পঞ্চম ট্রফি। সিনসিনাটি মাস্টার্স জয়ের ফলে আগামী সপ্তাহ থেকে শুরু হতে যাওয়া মৌসুমের শেষ গ্র্যান্ডস্লাম টুর্নামেন্টেও নিশ্চিত ফেবারিটের তকমাটা গায়ে মেখে কোর্টে নামবেন মেডিসন কেইস।

তবে সিনসিনাটি মাস্টার্স জয়ের পথটা মোটেও সহজ ছিল না। এই পথে বড় বড় তারকা খেলোয়াড়ের মুখোমুখি হতে হয় মেডিসন কেইসকে। হারিয়েছেন আমেরিকান কিংবদন্তি ভেনাস উইলিয়ামস, রোমানিয়ার সিমোনা হ্যালেপ এমনকি স্প্যানিশ টেনিস তারকা গারবিন মুগুরুজাকেও। সর্বশেষ কুজনেতসোভার বাধা অতিক্রম করেছেন তিনি। যে কারণে আগের চার শিরোপার চেয়ে এটাকেই ক্যারিয়ারের সেরা ট্রফির তালিকায় রাখছেন ২৪ বছরের এই তারকা খেলোয়াড়। এ প্রসঙ্গে মেডিসন কেইস বলেন, ‘অবশ্যই এটা আমার ক্যারিয়ারের জেতা শিরোপাগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বড়। এই টুর্নামেন্টের শুরু থেকেই ড্রটা খুব কঠিন ছিল। আজকেরটাসহ টুর্নামেন্টের প্রথম রাউন্ড থেকেই আমি সত্যিই অসাধারণ মাপের কিছু খেলোয়াড়দের বিপক্ষে লড়াই করেছি এখানে। যে কারণে নিশ্চিত করেই বলছি যে, এই সপ্তাহে ধারাবাহিকভাবেই আমার সেরা টেনিস খেলাটাই খেলছি।’

তবে এক সপ্তাহ আগে যদি কেউ এই টুর্নামেন্টের চ্যাম্পিয়ন হিসেবে তাকে কেউ বিবেচনা করত তাহলে সেটাকে হেসেই উড়িয়ে দিতেন নাকি আমেরিকান তারকা। এ প্রসঙ্গে কেইস বলেন, ‘সপ্তাহ খানিক আগেও যদি কেউ আমাকে এই অবস্থানের কথা বলত তাহলে সেটাকে হেসেই উড়িয়ে দিতাম।’

এদিকে, ক্যারিয়ারের গোধূলিবেলায় এখন সভেতলনা কুজনেতসোভা। তবে ৩৪ বছর বয়সেও টেনিস কোর্টে আলো ছড়াচ্ছেন রাশিয়ান তারকা। সুদীর্ঘ ক্যারিয়ারে দুটি গ্র্যান্ডস্লাম জিতেছেন তিনি। এবার সিনসিনাটি মাস্টার্সেও দেখা গেল তার সেই পুরনো ঝলক। অথচ ওয়াইল্ড কার্ড নিয়েই খেলতে এসেছিলেন এই আসরে। বাঘা বাঘা খেলোয়াড়দের মধ্যে জায়গা করে নিয়েছেন ফাইনালে। ফাইনালে উঠার পথে তিনি হারিয়েছেন বর্তমান বিশ্ব টেনিস র‌্যাঙ্কিংয়ের এক নম্বর খেলোয়াড় এ্যাশলে বার্টি, চেক প্রজাতন্ত্রের ক্যারোলিনা পিসকোভা এবং স্লোয়ানে স্টিফেন্সের মতো খেলোয়াড়কে। তাই হারলেও নিজের পারফর্মেন্স নিয়ে নিঃসন্দেহে সন্তুষ্ট প্রকাশ করতে পারেন এক সপ্তাহ আগেও যিনি বিশ্ব টেনিস র‌্যাঙ্কিংয়ের ১৫৩ নম্বরে অবস্থান করেছিলেন।

তবে হেরে গেলেও প্রতিপক্ষ মেডিসন কেইসকে অভিনন্দন জানাতে মোটেও ভুল করেননি তিনি। এ প্রসঙ্গে কুজনেতসোভা বলেন, ‘মেডিসন আজ একটু বেশিই ভাল খেলেছে। আশা করি, পরবর্তী সময়ে আমরা আরও ভাল ম্যাচ উপহার দিতে পারব। দুর্দান্ত একটা সপ্তাহ কাটানোর জন্য তোমাকে অভিনন্দন জানাই।’ ২০০৯ সালে সর্বশেষ ফ্রেঞ্চ ওপেনের শিরোপা উঁচিয়ে ধরেছিলেন কুজনেতসোভা। তার আগে ২০০৪ সালে ইউএস ওপেনের চ্যাম্পিয়ন হয়েছিলেন রাশিয়ান টেনিসের এই প্রতিভাবান খেলোয়াড়। কয়েকদিন পর শুরু হবে ইউএস ওপেন। মৌসুমের শেষ এই মেজর টুর্নামেন্টের হারানো গৌরব কী পুনরুদ্ধার করতে পারবেন কুজনেতসোভা? পারবেন কী বুড়ো বয়সে আরেকটি চমক দেখাতে? ভক্ত-অনুরাগীদের অপেক্ষা এখন সেটাই দেখার।