১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

পেয়ারা ব্যবাসায়ীকে মারধর॥ চট্টগ্রামে ডিবি পুলিশ ক্লোজ

পেয়ারা ব্যবাসায়ীকে মারধর॥ চট্টগ্রামে ডিবি পুলিশ ক্লোজ

নিজস্ব সংবাদদাতা,পটিয়া,২০ আগস্ট॥ একডজন পেয়ারা ৩০ টাকায় না দেওয়ায় ডিবি পুলিশ চট্টগ্রামের কর্ণফুলী উপজেলার মইজ্জ্যারটেকে পেয়ারা ব্যবসায়ীকে মারধরের ঘটনায় ডিবি পুলিশের এএসআই মো. জাহিদ হোসেনকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। ডিবি পুলিশ বরখাস্ত হওয়ার বিষয়টি মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৮টায় নিশ্চিত করেছেন নগর পুলিশের উপ-কমিশনার (বন্দর জোন) মুস্তাইন হোসেন। এদিকে, পুলিশের উপর হামলা, পুলিশ বক্স ভাঙচুর ও সরকারি কাজে বাধা দেওয়ায় কর্ণফুলী থানায় ১৬৩ জনের বিরুদ্ধে পুলিশ বাদী হয়ে একটি মামলা করেছেন। এতে গ্রেফতার করা হয়েছে কর্ণফুলী এলাকার এনামুল হোসেন আকাশ (২২), মো. রাব্বি (২২), আশিকুর রহমান ইমন (২০) ও আবদুল মান্নান (৩৫) নামের চারজনকে। মামলার বাদী কর্ণফুলী থানার এসআই নাছির উদ্দিন। গত সোমবার রাত সাড়ে ৭টায় মইজ্জ্যারটেকে পেয়ারা ব্যবসায়ীকে মারধর ও মৃত্যুর গুজবে উত্তেজিত জনতা পুলিশের উপর হামলা করেন। ওই সময় চট্টগ্রাম-কক্সবাজার আরকান মহা সড়কের শাহ আমানত সেতু থেকে শুরু করে কর্ণফুলী এলাকায় দীর্ঘ যানজট সৃষ্টি হয়। পরে দাঙ্গা পুলিশ গিয়ে লাঠি চার্জ, ফাঁকা গুলি করে পরিস্থিতি রাত সাড়ে ৯টার দিকে স্বাভাবিক করে।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ডিবি পুলিশ গত সোমবার সন্ধ্যায় মইজ্জ্যারটেক এলাকায় এক পেয়ারা ব্যবসায়ীকে মারধর ও মৃত্যুর গুজব নিয়ে যে তান্ডব হয়েছে এতে পুলিশ বাদী হয়ে ১৬৩জনের বিরুদ্ধে কর্ণফুলী থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। আসামীদের মধ্যে ৩৩জন এজাহারনামীয় ও ১৩০জন অজ্ঞাতানাম আসামী রয়েছে। নির্ভরযোগ্য সূত্র জানিয়েছে, পেয়ারা ব্যবসায়ী মারধর করার ঘটনায় ডিবি পুলিশের জাহিদকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। ঘটনা তদন্তের জন্য ডিবি পুলিশের এক সহকারী কমিশনারকে প্রধান করে তিন সদস্য বিশিষ্ট একটি কমিটি গঠন করেছে। তদন্ত কমিটির রির্পোট পেলেই ডিবি পুলিশের জড়িত অন্যদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে উপ-কমিশনার (বন্দও জোন) মুস্তাইন হোসেন জানান।

নগর পুলিশের সহকারী কমিশনার (কর্ণফুলী জোন) জাহিদুল ইসলাম জানিয়েছেন, পুলিশের উপর হামলা, পুলিশ বক্স ভাঙচুর ও সরকারি কাজে বাধা দেওয়ার ঘটনায় কর্ণফুলী থানায় একটি মামলা হয়েছে। এতে ১৬৩জন আসামী রয়েছে। তাদের মধ্যে ৪জনকে গ্রেফতার করে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।