১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

কোচ ডোমিঙ্গো দায়িত্ব বুঝে নেবেন আজ

কোচ ডোমিঙ্গো দায়িত্ব বুঝে নেবেন আজ

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ মঙ্গলবারই ঢাকায় এসে পড়েছেন বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের নতুন প্রধান কোচ দক্ষিণ আফ্রিকান রাসেল ডোমিঙ্গো। আজ তিনি দলের দায়িত্ব বুঝেও নেবেন।

ডোমিঙ্গোকে আপাতত দুই বছরের জন্য নিয়োগ দিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। ২০২১ সালের আগস্ট পর্যন্ত ডোমিঙ্গোর মেয়াদ থাকছে। এর মধ্যে তিনি বৈশ্বিক আসর বলতে পাবেন টি২০ বিশ্বকাপ। যেটি আগামী বছর অক্টোবরে অস্ট্রেলিয়ায় অনুষ্ঠিত হবে। যদি ডোমিঙ্গোর তত্ত্বাবধানে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের উন্নতি লক্ষ্য করা যায়, বিসিবি তাতে সন্তুষ্ট হয়, তাহলে চুক্তি বাড়বে। তখন ২০২৩ সালের ওয়ানডে বিশ্বকাপ পর্যন্ত চুক্তি বাড়বে। বিশ্বকাপ ২০২৩ সালের ৯ ফেব্রুয়ারি থেকে ২৬ মার্চ পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হবে। তার মানে বিসিবি সন্তুষ্ট হলে আরও দুই বছরের চুক্তি হবে।

বিশ্বকাপের পরই কোচিং প্যানেল পরিবর্তন করে ফেলে বিসিবি। বিশ্বকাপে বাংলাদেশ অষ্টম নম্বরে থাকে। ম্যাচ জিতে তিনটি। সেমিফাইনালে খেলার স্বপ্ন নিয়ে গিয়ে এমন ব্যর্থতা হতাশাই শুধু দিয়েছে। আর তাই প্রধান কোচ ইংল্যান্ডের স্টিভ রোডসকে বিদায় করে দেয় বিসিবি। সেই সঙ্গে মেয়াদ শেষ হওয়া পেস বোলিং কোচ ওয়েস্ট ইন্ডিজের কোর্টনি ওয়ালশের সঙ্গেও চুক্তি বাড়ানো হয়নি। স্পিন কোচ ভারতের সুনীল জোশীর সঙ্গে আর চুক্তি করেনি বিসিবি। রোডসকে বিদায় করার পরই কোচ খোঁজার জন্য মাঠে নেমে পড়ে বিসিবি। শুরুতে পেস বোলিং কোচ হিসেবে দক্ষিণ আফ্রিকা চার্ল ল্যাঙ্গাভেল্টকে নিয়োগ দেয়। যিনি মঙ্গলবার ঢাকায় এসে পৌঁছান। আজ মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে জাতীয় দলের কন্ডিশনিং ক্যাম্পেও থাকবেন। স্পিন বোলিং কোচ হিসেবে নিউজিল্যান্ডের ড্যানিয়েল ভেট্টরিকেও নিয়োগ দেয় বিসিবি। আর সন্তুষ্ট হওয়ায় ব্যাটিং কোচ হিসেবে দক্ষিণ আফ্রিকান নিল ম্যাকেঞ্জি, ফিল্ডিং কোচ দক্ষিণ আফ্রিকান রায়ান কুকের সঙ্গে চুক্তি বাড়িয়ে নেয় বিসিবি। শেষ পর্যন্ত গত ১৭ আগস্ট ডোমিঙ্গোর নিয়োগ চূড়ান্ত করে সংবাদমাধ্যমে জানিয়েও দেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন।

বিসিবির তালিকায় যে কোচরা ছিলেন, তাদের মধ্যে নিউজিল্যান্ডের সাবেক কোচ মাইক হেসন ওপরের সারিতেই ছিলেন। কিন্তু তার সঙ্গে বনাবনি না হওয়ায় ডোমিঙ্গোকেই শেষ পর্যন্ত বেছে নেয়া হয়। ডোমিঙ্গোই একমাত্র কোচ, যিনি এবার কোচের দৌড়ে থাকাদের মধ্যে বাংলাদেশে এসে সাক্ষাতকার দিয়ে যান। ৭ আগস্ট সাক্ষাতকার দেয়ার ২০ দিনের মধ্যে ডোমিঙ্গোকে নিয়োগ দিয়েছে বিসিবি।

ডোমিঙ্গোকে পছন্দ করার কারণও জানিয়ে দিয়েছিলেন বিসিবি সভাপতি। তিনি বলেছিলেন, ‘তার অভিজ্ঞতা অনেক। আমরা তার কোচিং পরিকল্পনায় সন্তুষ্ট। দলকে এগিয়ে নিতে কি করতে হবে সে বিষয়ে স্পষ্ট ধারণা দিয়েছেন তিনি।’

বাংলাদেশের কোচ হতে পেরে খুশি ডোমিঙ্গোও। ২০১৪ সালের টি২০ বিশ্বকাপে ও ২০১৫ সালের ওয়ানডে বিশ্বকাপে দক্ষিণ আফ্রিকাকে সেমিফাইনালে তোলা এ কোচ বাংলাদেশের কোচ হয়েই জানিয়েছিলেন, ‘বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের কোচ হিসেবে দায়িত্ব পাওয়াটা অনেক বড় সম্মানের। আমি বাংলাদেশের দায়িত্ব নিতে আগ্রহী ছিলাম এবং বাংলাদেশের লক্ষ্য পূরণে সর্বাত্মক চেষ্টা করব। বর্তমান খেলোয়াড়দের নিয়ে কাজ করার জন্য আমি মুখিয়ে আছি। উদীয়মান খেলোয়াড় বের করে আনাই আমার প্রধান লক্ষ্য।’ বাংলাদেশকে ক্রিকেটের পরাশক্তি হিসেবেও তৈরি করতে চান ডোমিঙ্গো। তিনি জানিয়েছিলেন, ‘সবকিছু খাপে খাপে মিলে গেলে বাংলাদেশ একদিন ক্রিকেটের সত্যিকারের পাওয়ার হাউস হয়ে উঠবে। আর এই বিষয়টাই আমাকে বেশ শিহরিত করে।’

এই কোচ আজ বাংলাদেশ ক্রিকেটের দায়িত্ব নেবেন। আজ থেকে তার বাংলাদেশ ক্রিকেটের সঙ্গে পথচলাও শুরু হয়ে যাবে। ডোমিঙ্গো সাক্ষাতকারে পরিকল্পনা দুই ভাগে উপস্থাপন করেছিলেন। একটি ২০২০ টি২০ বিশ্বকাপ, আরেকটি ২০২৩ ওয়ানডে বিশ্বকাপ। তিনি শুরুতে ২০২০ সালের টি২০ বিশ্বকাপে ভাল কিছু করে দেখানোর মতো দল তৈরি করতে চান। এরপর স্বল্প ওভারের বিশ্বকাপ শেষ হলে ওয়ানডে বিশ্বকাপের জন্য এগিয়ে যেতে চান। ২০২৩ সালের বিশ্বকাপে বাংলাদেশকে শিরোপার দাবিদার হিসেবে গড়ে তুলতে চান। ডোমিঙ্গোর পথ চলা আজ শুরু হলেও ৫ সেপ্টেম্বর যে আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে প্রথম টেস্ট খেলতে নামবে বাংলাদেশ, এ টেস্টই প্রথম এ্যাসাইনমেন্ট হবে ডোমিঙ্গোর। আজ বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের দায়িত্বও বুঝে নেবেন তিনি।

এই মাত্রা পাওয়া