১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

প্রেমে ডুবে বিয়ে করেছি সেরা বন্ধুকে বললেন আনুশকা

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ তাদের বিয়ের দেড় বছর হয়ে গেল। স্ত্রী বলেন, স্বামী তার সেরা বন্ধু। স্বামীর জবাব, আগুনে রাগ সামলে দিয়েছেন স্ত্রী।

বিরুষ্কাকে নিয়ে ভক্তদের আগ্রহ বাড়তেই থাকছে। দেশের সবচেয়ে শক্তিশালী এবং জনপ্রিয় জুটিও বলা হচ্ছে তাদের। কিন্তু বিরাট মাঠের মধ্যে এত রাগী, রাগী কেন? একটি ফিল্মি পত্রিকাকে দেয়া সাক্ষাতকারে আনুশকা শর্মা ফাঁস করেছেন অন্য তথ্য। বলেছেন, মাঠের বাইরে বিরাট খুবই শান্ত প্রকৃতির। আমার দেখা সবচেয়ে শান্ত মানুষদের একজন। ব্যক্তিগত জীবনে খুবই ধীরস্থির ভঙ্গি রয়েছে ওর। সত্যিই কী তাই? আনুশকা যোগ করছেন, আপনারা যে কাউকে জিজ্ঞেস করতে পারেন। আমার বন্ধুদের জিজ্ঞেস করতে পারেন, আমার টিমের সঙ্গে কথা বলে দেখতে পারেন। আনুশকা জোর দিয়েই বলে দিচ্ছেন, মাঠের মধ্যে যে আক্রমণাত্মক বিরাটকে দেখা যায়, সেটা মাঠের বাইরে একদমই দেখা যায় না। ব্যক্তিগত জীবনে ও মোটেও আগ্রাসী নয়। আমার দেখা সবচেয়ে শান্ত মানুষদের একজন। যদিও মাঝে মধ্যে আমি ওকে দেখে বলে ফেলি, বাহ রে, এতটা ধীরস্থির হলে কী করে তুমি! তা হলে মাঠের মধ্যের আগ্রাসী বিরাট? সেটার কী ব্যাখ্যা? আনুশকার মতে, বিরাট ওর ক্রিকেট নিয়ে খুবই আবেগপ্রবণ। সেটাই হয়তো মাঠের মধ্যে বেরিয়ে আসে। কিন্তু আমি বলে দিতে পারি, মাঠের বাইরে সেসবের কিছুই দেখতে পাওয়া যায় না।

বিয়ের পরে এই প্রথম এতটা খোলাখুলিভাবে বিবাহিত জীবন এবং বিরাট কোহলিকে নিয়ে কথা বলছেন আনুশকা। ফাঁস করেছেন যে, বিরাট তাকে খুব ভাল বুঝতে পারেন। সেই কারণেই তাদের দাম্পত্য জীবন দারুণভাবে এগোচ্ছে। যে কোন সম্পর্ক সফল হওয়ার ক্ষেত্রে পরস্পরকে বোঝার ব্যাপারটা সবচেয়ে বেশি করে দরকার বলে মনে করেন আনুশকা। তিনি বলছেন, আমার বিয়ে হয়েছে সেরা বন্ধুর সঙ্গে। যাকে আমি সবচেয়ে বেশি বিশ্বাস করি। আমি এমন একজনকে বিয়ে করেছি যাকে আমি এতটা ভালবাসি তার ভিতরে থাকা দারুণ মানুষটার জন্য। এখানেই না থেমে বলিউড অভিনেত্রী যোগ করছেন, জীবনে চলার পথে ভুল বোঝাবুঝির শিকার হওয়ার পরে এমন একজনের সঙ্গে দেখা হলো, যে সম্পূর্ণভাবে তোমাকে বুঝতে পারে। আমার ক্ষেত্রে ঠিক সেটাই হয়েছে। সেই কারণে ওখানেই আমার পৃথিবীতে বাকি সবকিছু শেষ হয়ে যায়। আর কিছু পড়ে থাকে না। দু’জনেই ব্যস্ততম তারকা। বিরাট কোহলি ক্রিকেটার, তিনি বলিউড অভিনেত্রী। তবু যখনই দু’জনে সময় পান একসঙ্গে সময় কাটানোর চেষ্টা করেন। তিনি এবং বিরাট একসঙ্গে থাকার সময় কী রকম অনুভূতি হয়? বিরাট-প্রেমে ডুবে গিয়ে আনুশকার জবাব, আমাদের দু’জনেরই তখন মনে হয় যেন বাকি পৃথিবীর আর কোন কিছুর অস্তিত্ব নেই। শুধু আমরা দু’জনেই আছি। আসলে আমরা দু’জনেই একে অন্যের মধ্যে নিজেদের পৃথিবী খুঁজে পাই। কারণ আমাদের দু’জনের জীবনে খুব মিল আছে।

সম্ভবত দু’জনকেই যে বহির্জগতে অনেকে ভুল বোঝেন, সে দিকেই ইঙ্গিত করেছেন ভারতীয় ক্রিকেটের ‘ফার্স্ট লেডি’। আরও বলেছেন, বিয়ের আগে আমরা যখন ডেট করছিলাম, তখনও একই রকম অনুভূতি ছিল। দু’জনে ডুবে থাকতাম দু’জনের মধ্যে। তার কারণ আমাদের দু’জনের জীবনের অনেক মিল। আজ আমি খুব খুশি কারণ এমন একজনকে পেয়েছি যাকে আমি মন থেকে এত চেয়েছি। সেই আমার সংসার।

নিজের ক্যারিয়ারে ব্যস্ততার মধ্যে বিয়ে করা নিয়েও এই সাক্ষাতকারে খোলামেলাভাবে কথা বলেছেন আনুশকা। তার সাফ কথা, আমাদের ইন্ডাস্ট্রির চেয়ে আমাদের দর্শকরা অনেক এগিয়ে। এখন আর কেউ ওভাবে চিন্তা করে না যে, নায়িকা থাকতে কী করে অল্প বয়সে কেউ বিয়ে করে ফেলল! দর্শকরা অভিনেতা-অভিনেত্রীদের ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে আর ভাবিতই নন। স্ক্রিনে তোমার কি পারফর্মেন্স, সেটাই তারা দেখতে চান। আনুশকার সোজাসাপ্টা বক্তব্য, আমাদের এই অহেতুক মানসিক অবস্থান থেকে বেরিয়ে আসতে হবে। আমি ২৯ বছর বয়সে বিয়ে করেছি, যেটাকে অভিনেত্রী হিসেবে বেশ তরুণ বয়সই ধরা হয়। কিন্তু আমি বিয়ে করেছি, কারণ আমি প্রেমে পড়েছিলাম। আমি এখনও প্রেমে পড়ে আছি। বিয়েটা সেই প্রেমের খুবই স্বাভাবিক পরিণতি।

তাহলে ফিল্ম? বিরাট-প্রেমের জয়গান গেয়ে আনুশকার জবাব, এখন আর কেউ দেখতে চান না, আমি বিবাহিত নাকি সন্তানের মা। পর্দায় কি ঘটবে, সেটাই তাদের কাছে আসল। তার মুখে যেন সেই বিখ্যাত বাংলা গান, বেশ করেছি, প্রেম করেছি, করবই তো।

এই মাত্রা পাওয়া