২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

কলকাতার ওই দুর্ঘটনার দায় ‘আরসালান নয়, তার বড় ভাইয়ের’

জনকণ্ঠ ডেস্ক ॥ কলকাতায় মধ্যরাতে গাড়িচাপায় দুই বাংলাদেশীর মৃত্যুর ঘটনায় নামকরা রেস্তরাঁ ‘আরসালান’র মালিকের ছোট ছেলেকে গ্রেফতারের চার দিন পর পুলিশ বলছে, আরসালান পারভেজ নয়, তার বড় ভাই রাঘিব পারভেজ এই দুর্ঘটনা ঘটিয়েছেন। খবর আনন্দবাজারের।

ঘটনার পরদিন দুবাইয়ে পালিয়ে যাওয়া রাঘিবকে দেশে ফিরিয়ে এনে এরইমধ্যে গ্রেফতার করা হয়েছে। কলকাতা পুলিশের গোয়েন্দা প্রধান মুরলীধর শর্মার বরাত দিয়ে এতে বলা হয়, ‘দুর্ঘটনার রাতে ঘাতক জাগুয়ারের স্টিয়ারিং ছিল আরসালানের দাদা রাঘিব পারভেজের হাতে। বড় ছেলেকে বাঁচাতে আত্মসমর্পণ করানো হয় ছোট ছেলেকে।’ গত শুক্রবার মধ্যরাতে কলকাতার লাউডন স্ট্রিটের কাছে গাড়িচাপায় মারা যান বাংলাদেশী নাগরিক কাজী মুহাম্মদ মঈনুল আলম (৩৬) ও ফারহানা ইসলাম তানিয়া (২৮)। মঈনুল গ্রামীণফোনের রিটেইল সাপোর্ট ম্যানেজার এবং তানিয়া সিটি ব্যাংকের ধানমণ্ডি শাখার সিনিয়র অফিসার ছিলেন।

কলকাতার সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়, রাত ২টার দিকে একটি জাগুয়ার তীব্র গতিতে শেক্সপিয়র সরণি ধরে বিড়লা প্ল্যানেটোরিয়ামের দিক থেকে কালীমন্দিরের দিকে যাচ্ছিল। লাউডন স্ট্রিটের কাছে সেটি একটি মার্সিডিজকে সজোরে ধাক্কা মেরে রাস্তার পাশে ট্রাফিক পুলিশের একটি পোস্টে ঢুকে পড়ে। মঈনুল, তার চাচাত ভাই মোঃ শফী রহমত উল্লাহ এবং তানিয়া তুমুল বৃষ্টির মধ্যে ওই পুলিশ পোস্টে আশ্রয় নিয়েছিলেন। গাড়িটি মঈনুল ও তানিয়াকে চাপা দেয়। পরদিন এ ঘটনায় কলকাতার নামি রেস্তরাঁ আরসালানের মালিক আখতার পারভেজের ছেলে আরসালানকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এডিনবরা বিশ্ববিদ্যালয়ে বিজনেস ম্যানেজমেন্ট পড়ে আসা আরসালান কলকাতার কেন্দ্রস্থলের পার্ক সার্কাস মোড়ের রেস্তরাঁ ‘আরসালানে’র মালিকানা পেয়েছেন পৈত্রিক সূত্রে।