২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

‘বঙ্গবন্ধু স্মারক বক্তৃতামালা’র দ্বিতীয়পর্ব অনুষ্ঠিত

‘বঙ্গবন্ধু স্মারক বক্তৃতামালা’র দ্বিতীয়পর্ব অনুষ্ঠিত

সংস্কৃতি ডেস্ক ॥ ‘বঙ্গবন্ধু স্মারক বক্তৃতামালা’ কর্মসূচীর দ্বিতীয়পর্ব মঙ্গলবার বিকাল ৪টায় বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালা সেমিনার কক্ষে অনুষ্ঠিত হয়। স্মারক বক্তৃতা প্রদান করেন কথাসাহিত্যিক সেলিনা হোসেন। ‘মানবিক দর্শনের ঋদ্ধ মানুষ : শেখ মুজিবুর রহমান’ শিরোনামে বক্তৃতায় বঙ্গবন্ধুর জীবনের নানা দিক তুলে ধরেন তিনি। অনুষ্ঠানের শুরুতে বঙ্গবন্ধুসহ সকল শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধাজ্ঞাপন করে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। এরপর শিশুদের সমবেত কণ্ঠে ‘ধন্য মুজিব ধন্য’ এবং ‘যতদিন রবে পদ্মা মেঘনা’ গান পরিবেশিত হয়। দেশের বরেণ্য লেখক ও গবেষকগণ বঙ্গবন্ধুর জীবন ও কর্মের ওপর মূল্যবান বক্তব্য নিয়ে ‘বঙ্গবন্ধু স্মারক বক্তৃতামালা’ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি। নিয়মিত এ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ১০০টি স্মারক বক্তৃতার আয়োজন করা হবে। গত ৭ আগস্ট ২০১৯ ‘বঙ্গবন্ধু স্মারক বক্তৃতামালা’ কর্মসূচীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠিত হয়। প্রথমপর্বে স্মারক বক্তৃতা উপস্থাপন করেন জাতীয় অধ্যাপক ড. রফিকুল ইসলাম। ‘বাংলার রাজনৈতিক নেতৃত্ব এবং বঙ্গবন্ধু’ শিরোনামে বক্তৃতায় অবিভক্ত বাঙলার রাজনৈতিক নেতৃত্বের তুলনামূলক আলোচনা করা হয়। এদিকে ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার ভয়াবহতা নিয়ে স্থাপনা শিল্প ‘আগস্ট-২১’ বঙ্গবন্ধু এ্যাভেন্যুয়ে ২০০৪ সালে ২১ আগস্ট ২৪ জন মানুষকে হত্যা এবং জননেত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার অপচেষ্টার মধ্যদিয়ে একটি দৃষ্টিভঙ্গি, একটি স্বপ্ন ও বিশ্বাসকে হত্যা করবার ঘৃণিত প্রয়াস চালানো হয়েছিল যা আমাদের স্তম্ভিত করেছিল। এই শোক শক্তিতে পরিণত করার লক্ষ্যে ২১ আগস্ট ২০১৯ সন্ধ্যা ৭টায় নন্দনমঞ্চে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি আয়োজন করেছে ৫১ শিল্পীর অংশগ্রহণে স্থাপনা শিল্প ‘আগস্ট-২১’। ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার ভয়াবহতা নিয়ে লিয়াকত আলী লাকীর পরিকল্পনায় স্থাপনা শিল্পের কিউরেটর হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন শিল্পী ও অধ্যাপক শাহ্জাহান আহমেদ বিকাশ। উক্ত আয়োজনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ এমপি। বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক ঋত্বিক নাট্যপ্রাণ লিয়াকত আলী লাকীর সভাপতিত্বে অনুভূতি ব্যক্ত করেন শিল্পী অধ্যাপক শাহজাহান আহমেদ বিকাশ।