২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বাদুরতলীর স্লুইস খালের বাঁধ স্থাপনা অপসারণ করা জরুরি প্রয়োজন

  বাদুরতলীর স্লুইস খালের বাঁধ স্থাপনা অপসারণ করা জরুরি প্রয়োজন

নিজস্ব সংবাদদাতা, কলাপাড়া ॥ কলাপাড়া পৌরসভা ও টিয়াখালী ইউনিয়নের সীমান্তবর্তী এলাকার দীর্ঘ বাদুরতলী খালটি দখল করে বাড়ি-ঘরসহ বিভিন্ন স্থাপনা তোলা হয়েছে। ফলে দুইপাড়ের মানুষের পানি নিষ্কাশনসহ নিত্যদিনের ব্যবহারের পানি নিয়ে শঙ্কা দেখা দিয়েছে। আন্ধারমানিক নদীর সঙ্গে এ খালটির সংযোগ রয়েছে। যেখানে স্লুইসগেট আছে। কিন্তু স্থানীয় একটি মহল কাগজপত্রে বদ্ধখাল দেখিয়ে মাঝখানে সরকারি কালভার্ট বন্ধ করে দিয়েছে। সেখানে মাছ ধরার জন্য নিজেদের সুবিধামতো ছোট একটি কালভার্ট করেছে। আর মূল কালভার্টের নিচে মাটি দিয়ে ভরাট করে রাখা হয়েছে। তিন থেকে চার কিলোমিটার দীর্ঘ খালটিতে জনগণের মাছ শিকারের কোন সুযোগ নেই। টিয়াখালীর এক মেম্বার এটির নিয়ন্ত্রণ করছে। তাঁরা জেলা প্রশাসন থেকে বদ্ধখাল দেখিয়ে লিজ নেয়ার কথা বলেছেন। এছাড়া খালটির বাদুরতলী থেকে দুই পাড়ে দখল সন্ত্রাসে খালের পরিধি সঙ্কুচিত হয়ে গেছে। ইতোমধ্যে খালের ভরাট অংশ দখল করে তোলা হয়েছে বহু স্থাপনা। স্থানীয়দের দাবি খালের সীমানা নির্ধারণ করে উচ্ছেদ অভিযান করা হোক। নইলে জনস্বার্থে ব্যবহৃত গুরুত্বপুর্ণ এ খালটি দখল দৌরাত্মে হারিয়ে যাবে। খালটির বড় সিকদার বাড়ি পয়েন্টে অপরিকল্পিতভাবে করা কালভার্টটির নিচের ভরাট মাটি অপসারণ করা জরুরি প্রয়োজন। সেখানে খালে পাকা গাইডওয়াল করে দখল করা হয়েছে। খালের মধ্যে টয়লেটসহ স্থাপনা করা হয়েছে। কলাপাড়ার সহকারী কমিশনার (ভূমি) অনুপ দাশ জানান, খালের দখলদারমুক্ত করার অভিযান চলমান রয়েছে। হাজার হাজার মানুষের দাবি স্লুইস সংযুক্ত এ খালটি দখলমুক্ত করা হোক।