১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সোনারগাঁয়ে মসজিদের ইমামকে গলাকেটে হত্যা

স্টাফ রিপোর্টার, নারায়ণগঞ্জ ॥ এবার নারায়ণগঞ্জে দিদারুল ইসলাম (২৬) নামে মসজিদের এক ইমামকে গলাকেটে হত্যা করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে পুলিশ সোনারগাঁ উপজেলার মোগরাপাড়া ইউনিয়নের মল্লিকপাড়া গ্রামের নারায়ণদিয়া বায়তুল জালাল জামে মসজিদের ভেতর থেকে ইমামের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। রাতের যে কোন সময় নারায়ণদিয়া বায়তুল জালাল জামে মসজিদের ইমামকে কুপিয়ে জবাই করে হত্যা করে দুর্বত্তরা। নিহত দিদারুল ইসলাম খুলনা জেলার তেরখাদা উপজেলায় রাজাপুর গ্রামের মৃত আফতাব উদ্দিন ফরাজির ছেলে।

এদিকে, শেরপুরে ফরিদা বেগম নামে এক বৃদ্ধাকে গলা কেটে হত্যা করা হয়েছে।

নারায়ণগঞ্জ পুলিশ ও স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, বৃহস্পতিবার ভোরে মুসল্লিরা ফজরের নামাজ পড়তে এসে ইমামের হুজুরাখানায় (ইমামের কক্ষে) তার জবাই করা অবস্থায় মরদেহ পড়ে থাকতে দেখে। পরে তারা আশপাশের লোকজনকে বিষয়টি জানান। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। এ নৃংশস হত্যাকা-ের খবর পেয়ে শত শত নারী-পুরুষ ঘটনাস্থলে ছুটে আসে। মসজিদ কমিটির সহসভাপতি মোঃ আলী আকবর জানান, ঈদের ছুটিতে ইমাম দিদারুল ইসলাম বাড়ি গিয়েছিলেন। মঙ্গলবার মসজিদের নামাজ পড়ানো কাজে যোগ দেন। এর একদিন পরেই এ নৃংশস হত্যাকা-ের ঘটনাটি ঘটল। গত মাসের ২৬ জুলাই এই মসজিদে ইমাম হিসেবে দিদারুল ইসলাম যোগদান করেছিলেন। স্থানীয় মুসল্লিরা জানান, দিদারুল ইসলাম গত ২৬ জুলাই পার্শ্ববর্তী ছোট কাজীরগাঁ গ্রামের মসজিদের ঈমামের পরিচয়ে ওই মসজিদে ইমামতি করতে আসেন।

সোনারগাঁ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) হেলাল উদ্দিন জানান, ইমাম দিদারুল ইসলাম বুধবার এশার নামাজের পর রাতের খাবার খেয়ে ঘুমাতে যান। ফজরের নামাজের আযানের সময় স্থানীয় মুসল্লিরা তার জবাই করা লাশ দেখতে পেয়ে পুলিশকে খবর দেয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠায়। তিনি আরও জানান, তার কোন শত্রুতা আছে কিনা বা কি কারণে তাকে হত্যা করা হয়েছে তা তদন্তে বের হয়ে আসবে। তিনি আরও জানান, নিহত ইমামের আত্মীয়-স্বজনদের খবর দেয়া হয়েছে। আত্মীয়-স্বজনরা এলে মামলা নেয়া হবে। ঘটনাস্থলে যাওয়া নারায়ণগঞ্জ জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সার্কেল-বি) মোঃ খোরশেদ আলম জানান, ইমামকে কেন, কি কারণে খুন করা হয়েছে তা আমরা তদন্ত করে দেখছি। ঘটনাস্থল থেকে একটি ছোরা উদ্ধার করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, মঙ্গলবার রাত থেকে বুধবার সকাল পর্যন্ত যে কোন সময় নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লার পূর্ব শাহী মহল্লা এলাকায় আবুল কালাম (৫০) নামে এক নৈশ প্রহরীকে গলা কেটে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা।

শেরপুরে বৃদ্ধা ॥ নিজস্ব সংবাদদাতা, শেরপুর থেকে জানান, শেরপুরে ফরিদা বেগম (৬০) নামে এক বৃদ্ধকে গলা কেটে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। বুধবার রাতে শহরে গৌরীপুর মহল্লায় ওই ঘটনা ঘটে। নিহত ফরিদা স্থানীয় মৃত আব্দুস সালামের স্ত্রী। ওই ঘটনায় শেরপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) আমিনুল ইসলাম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

নিহতের পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, প্রতিদিনের মতো ফরিদা বেগম বাসায় একা অবস্থান করছিল। ফরিদা বেগমের নাতি শিহাব রাত সাড়ে ১১টার দিকে বাড়ি ফিরে অনেকক্ষণ ডাকাডাকি করলেও গেট না খোলায় পাশের বাড়ি থেকে হাতুড়ি এনে তালা ভেঙ্গে ঘরে ঢুকে দাদির গলাকাটা লাশ দেখে। তার চিৎকারে স্থানীয়রা ঘটনাস্থলে গিয়ে ওই বৃদ্ধার গলাকাটা লাশ দেখে এবং ঘরের সব কিছু লন্ডভন্ড দেখতে পেয়ে পুলিশকে খবর দেয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে বৃদ্ধার গলাকাটা লাশ উদ্ধার করে। এদিকে ওই ঘটনায় ইতোমধ্যে পিবিআইয়ের সহযোগিতা নিয়ে অধিকতর তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

এ ব্যাপারে শেরপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) আমিনুল ইসলাম বলেন, কে বা কারা বৃদ্ধার গলা কেটে ফেলে রেখেছে। আমরা ঘটনার রহস্য উদঘাটনের চেষ্টা করছি।