১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

মালয়েশিয়া এখন মাদক পাচারকারীদের নিরাপদ রুট

মালয়েশিয়াকে ‘নিরাপদ রুট’ হিসেবে বেছে নিয়েছে মাদক চোরাকারবারীরা। কারণ এ অঞ্চলের অন্যান্য দেশের মতো দেশটিতে মাদক চোরাকারবারী প্রতিরোধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হয় না। যদিও মাদক চোরাচালানের অপরাধে মৃতুদ-ের বিধান রয়েছে দেশটিতে। নিউ স্ট্রেইট টাইমস।

অপরাধবিজ্ঞানী কামাল আফেন্দি হাশিম বলেন, মাদকের বিরুদ্ধে যখন যুদ্ধ ঘোষণা করা হয় তখন পার্শ্ববর্তী দেশগুলোতে বিভিন্ন নীতি গ্রহণ করা হয়। সমাজ থেকে মাদক সমস্যা নির্মূলে নেতারা পুলিশ ও অন্যান্য আইন প্রয়োগকারী সংস্থাকে পুরোপুরি দায়িত্ব অর্পণ করেন। তিনি বলেন, এ কারণে চোরাকারবারীদের কাছে ঝুঁকিপূর্ণ নয় এবং উৎকৃষ্ট পন্থা হবে মাদক উৎপাদন না করে শুধু বিক্রি করা। মাদক চোরাকারবারী, সিন্ডিকেট বা ডিলারদের কাছে কেন আমাদের দেশ নিরাপদ রুট হিসেবে বিবেচ্য তার উত্তর হতে পারে এটাই।

পার্শ্ববর্তী দেশ বলতে কোন্ দেশকে বোঝানো হচ্ছে সেটা বলতে অস্বীকৃতি জানান কামাল। এ প্রতিবেশী দেশ ফিলিপিন্স বলে ধারণা করা হচ্ছে। কারণ, ২০১৬ সালে দেশটিতে ক্ষমতা গ্রহণের পর প্রেসিডেন্ট রড্রিগো দুতের্তে সকল মাদক কারবারীকে প্রতিরোধ করতে জনগণের প্রতি আহ্বান জানান। উল্লেখ্য, ফিলিপিন্সে মাদকের বিরুদ্ধে যুদ্ধে পাঁচ থেকে ১২ হাজার মাদক চোরাকারবারী নিহত হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। কামাল আরও বলেন, মালয়েশিয়ায় মাদক সংক্রান্ত সমস্যা নিয়ন্ত্রণে ছিল। সেলানগরে এর আগে বড় একটি চালান আটক করে কর্তৃপক্ষ, যেগুলো অন্যদেশে পাঠানোর জন্য নেয়া হচ্ছিল।