১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

শ্রীলঙ্কার জালে বাংলাদেশের ৭ গোল!

শ্রীলঙ্কার জালে বাংলাদেশের ৭ গোল!

অনলাইন ডেস্ক ॥ সাফ অনূর্ধ্ব-১৫ ফুটবলের শিরোপা ধরে রাখার লড়াইয়ে বেশ ভালোভাবেই এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ। টানা দ্বিতীয় জয় তুলে নেওয়ার পথে এবার শ্রীলঙ্কাকে হারিয়েছে বর্তমান শিরোপাধারীরা। যদিও জয়ের ব্যবধান হতে পারত আরও বড়। কিন্তু প্রতিপক্ষকে বিধ্বস্ত করে ৭-১ গোলের ব্যবধানে পাওয়া জয়টিই বা কম কিসে।

ভারতের পশ্চিম বাংলার কল্যাণী স্টেডিয়ামে রবিবার দুপুর সাড়ে ১২টায় অনুষ্ঠিত ম্যাচের শুরু থেকেই শ্রীলঙ্কার রক্ষণে হানা দিতে থাকে বাংলাদেশের কিশোররা। ফলও পেয়ে যায় হাতেনাতে। খেলার ৩২তম মিনিটে গোলের খাতা খুলে বাংলাদেশ। সতীর্থের পাস ধরে শ্রীলঙ্কার গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন ফরোয়ার্ড আল আমিন রহমান।

৪২তম মিনিটে অসাধারণ এক গোল করে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন রকিবুল ইসলাম। মাঝমাঠ থেকে প্রতিপক্ষের এক খেলায়াড়ের পা থেকে বল কেড়ে নিয়ে একক প্রচেষ্টায় চারজনকে কাটিয়ে ডান পায়ের শটে লক্ষ্যভেদ করেন এই মিডফিল্ডার। দুই মিনিট পরেই সতীর্থদের পাস ধরে লঙ্কান গোলরক্ষককে বোকা বানিয়ে নিজের দ্বিতীয় গোল তুলে নেন আল আমিন।

প্রথমার্ধের দাপট বজায় রেখে দ্বিতীয়ার্ধে রীতিমত গোল উৎসব করেছে বাংলাদেশ। ৪৮তম মিনিটে সতীর্থের থ্রু পাসে দুর্দান্ত এক হেডে গোল করে ব্যবধান ৪-০ করেন ফরোয়ার্ড আক মিরাদ। তবে কিছুক্ষণ পরেই বাংলাদেশের গা ছাড়াভাবের ফায়দা তুলে ব্যবধান কমানো গোল করেন লঙ্কান ফরোয়ার্ড ইশান মুহাম্মদ মিহরান।

প্রথম গোল হজম করে যেন গা ঝাড়া দিয়ে উঠে বাংলাদেশ। পেনাল্টি থেকে গোল করে হ্যাটট্রিক পূর্ণ করেন আল আমিন। এরপর ৬৭তম মিনিটে ডি-বক্সের জটলা থেকে জাল খুঁজে নেন বদলি খেলোয়াড় রাব্বি। কিছুক্ষণ বাদেই দলের সপ্তম ও নিজের সপ্তম গোলটি করে শ্রীলঙ্কার কফিনে শেষ পেরেক ঠুকে দেন আল আমিন। তবে এরপরও কমপক্ষে ৩টি গোলের সুযোগ নষ্ট না হলে ব্যবধান হতো আরও বেশি।

এই নিয়ে টানা দ্বিতীয় জয়ে বাংলাদেশের অবস্থান এখন পাঁচ দলের রাউন্ড রবিন লিগের শীর্ষে। এর আগে নিজেদের প্রথম ম্যাচে ভুটানকে ৫-২ গোলে উড়িয়ে দিয়েছিল বাংলাদেশের কিশোর ফুটবলাররা। অপরদিকে ৩ ম্যাচের দুটিতে হেরে খাদের কিনারে চলে গেছে শ্রীলঙ্কা।

লিগ পর্বের শেষ ম্যাচে আগামী ২৭ আগস্ট নেপালের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। ৩১ আগস্ট লিগ ভিত্তিতে সর্বোচ্চ পয়েন্ট পাওয়া দুই দল ফাইনালে মোকাবিলা করবে।

এই মাত্রা পাওয়া