২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

শেরপুরে গাছে বেঁধে নির্যাতন ॥ ৪ আসামির জামিন নামঞ্জুর

শেরপুরে গাছে বেঁধে নির্যাতন ॥ ৪ আসামির জামিন নামঞ্জুর

নিজস্ব সংবাদদাতা, শেরপুর ॥ শেরপুরের নকলায় ডলি খানম (২২) নামে অন্তঃসত্ত্বা এক গৃহবধূকে গাছে বেঁধে নির্যাতনের চাঞ্চল্যকর মামলায় হাজতি ৪ আসামির জামিনের আবেদন ফের নামঞ্জুর হয়েছে। আজ রবিবার দুপুরে উভয় পক্ষের দীর্ঘ শুনানী শেষে জেলা ও দায়রা জজ মোঃ মুজিবুর রহমান তাদের জামিনের আবেদন নামঞ্জুর করেন। এরা হচ্ছেন নির্যাতিতা গৃহবধূর ভাসুর আবু সালেহ (৫২), সলিমুল্লাহ (৪৪), জা লাখী আক্তার (৩৪) ও তাদের আত্মীয় তোফাজ্জল হোসেন (৫৫)। একইসাথে আদালত ইসমাইল হোসেন (২০) নামে এক আসামিকে পুলিশ রিপোর্ট দাখিল পর্যন্ত অন্তবর্তীকালীন জামিন মঞ্জুর করেছেন। এ নিয়ে এ মামলায় এক নারী আসামিসহ এখন পর্যন্ত ২ আসামির জামিন হলো। অন্যদিকে ওই মামলায় এখনও পলাতক রয়েছেন সেনাসদস্য নেছার উদ্দিন, স্থানীয় পৌর কাউন্সিলর রূপালী বেগম ও তার স্বামী আমিরুল ইসলাম।

দায়রা আদালতে আসামিদের জামিন নামঞ্জুরের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ভারপ্রাপ্ত পিপি এডভোকেট অরুন কুমার সিংহ রায়। অন্যদিকে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা নকলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আলমগীর হোসেন বলেন, মামলার তদন্তের ক্ষেত্রে অনেকটাই অগ্রগতি হয়েছে। পলাতক আসামিদের গ্রেফতারেও চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ১০ মে নকলা উপজেলার কায়দা গ্রামে জমিসংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে ওই অন্ত:স্বত্ত্বা গৃহবধূকে গাছে বেঁধে বর্বরোচিত নির্যাতন এবং নির্যাতনে গৃহবধূর গর্ভের সন্তান নষ্টের ঘটনা ঘটে। ওই ঘটনায় ৩ জুন আদালতে একটি নালিশী মামলা দায়ের করেন নির্যাতিতা গৃহবধূর স্বামী। এরপর নির্যাতনের একটি ভিডিও ভাইরাল হলে তোলপাড় শুরু হয়। এর প্রেক্ষিতে পুলিশ সুপার কাজী আশরাফুল আজীমের দ্রুত পদক্ষেপে গত ১১ জুন এক সেনা সদস্যসহ ওই গৃহবধূর ৩ ভাসুর ও জাসহ ৯ জনকে স্ব-নামে ও অজ্ঞাতনামা আরও ৩/৪ জনের বিরুদ্ধে থানায় একটি মামলা গ্রহণ করা হয়।