১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

৫ হাজার পয়েন্টের নীচে শেয়ারবাজারের সূচক

৫ হাজার পয়েন্টের নীচে  শেয়ারবাজারের সূচক

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ শেয়ারবাজারে পতন অব্যাহত রয়েছে। বুধবারও পতনে শেষ হয়েছে শেয়ারবাজারের লেনদেন। বুধবারসহ শেয়ারবাজারে টানা ৬ কার্যদিবস পতন হয়েছে। উভয় শেয়ারবাজারের সব সূচক কমেছে। এই পতনের ফলে প্রধান শেয়ারবাজর ঢাক স্টক একচেঞ্জের সূচক ৫ হাজার পয়েন্টের মনস্তাত্ত্কি সীমার নীচে চলে এসেছে। উভয়বাজারেই কমেছে লেনদেনে অংশ নেয়া বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দর। সূচকের পতন অব্যাহত থাকায় আস্থাহীনতার কারণে বিনিয়োগকারীদের অংশগ্রহণও কমছে।

জানা গেছে, ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ২১ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ৪ হাজার ৯৮৬ পয়েন্টে। ডিএসইতে অপর দুই সূচকের মধ্যে শরিয়াহ সূচক ৮ পয়েন্ট এবং ডিএসই-৩০ সূচক ১১ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে যথাক্রমে ১ হাজার ১৫৯ ও ১ হাজার ৭৪৮ পয়েন্টে।

ডিএসইতে লেনদেন হওয়া ৩৫১টি কোম্পানির মধ্যে ১৩২টি বা ৩৮ শতাংশ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বেড়েছে। অন্যদিকে দাম কমেছে ১৬৬টি বা ৪৭ শতাংশ কোম্পানির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৫৩টি বা ১৫ শতাংশ কোম্পানির।

এদিন ডিএসইতে ৩৭৫ কোটি ৫১ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। যা আগের দিন থেকে ১৯ কোটি ৩১ লাখ টাকা কম। আগে দিন লেনদেন হয়েছি ৩৯৮ কোটি ৮২ লাখ টাকার। টাকার অঙ্কে ডিএসইতে সবচেয়ে বেশি লেনদেন হয়েছে মুন্নু সিরামিকের শেয়ার। এদিন কোম্পানির ১৯ কোটি ৯৭ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। লেনদেনে দ্বিতীয় স্থানে উঠে আসা স্টাইল ক্রাফটের ১৫ কোটি ৮২ লাখ টাকার এবং ১৩ কোটি ৪৯ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনের মাধ্যমে তৃতীয় স্থানে উঠে আসে রেনেটা। সেখানে লেনদেনে এরপর রয়েছে - মুন্নু জুট স্টাফলার্স, ইউনাইটেড পাওয়ার, ফরচুন সুজ, সিলকো ফার্মা, স্কয়ার ফার্মা, ব্র্যাক ব্যাংক এবং আইটিসি।

অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই এদিন ৮৮ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১৫ হাজার ২১৫ পয়েন্টে। এদিন সিএসইতে হাত বদল হওয়া ২৫১টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে শেয়ার দর বেড়েছে ৯৮টির, কমেছে ১১৯টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৩৪টির দর। সিএসইতে ১৫ কোটি ৭২ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে।

নির্বাচিত সংবাদ