২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ঝিকরগাছা পৌরসভার নির্বাচন হয়নি ১৯ বছর

স্টাফ রিপোর্টার, যশোর অফিস ॥ সীমানা সংক্রান্ত জটিলতার মামলার অজুহাতে দীর্ঘ ১৯ বছর হলেও ঝিকরগাছা পৌরসভার নির্বাচন হয়নি। অথচ যে তিনটি ইউনিয়নের সঙ্গে সীমানা সংক্রান্ত জটিলতার সমস্যা রয়েছে, সে সব ইউনিয়নের নির্বাচন একদিনও বন্ধ থাকেনি। ফলে পৌরবাসী অবিলম্বে নির্বাচনের দাবি জানিয়ে আসছেন অনেকদিন ধরে। পৌরসভা তথ্যসূত্রে জানা গেছে, ১৯৯৮ সালে ৪ এপ্রিল উপজেলা সদরের ৯ দশমিক ৪৩ বর্গকিলোমিটার আয়তনের ঝিকরগাছা পৌরসভা ঘোষণা করা হয়। তখন নবগঠিত পৌরসভার প্রশাসক নিয়োগ করা হয়েছিল। এরপর ২০০১ সালের ২ এপ্রিল ঝিকরগাছা পৌরসভার প্রথম নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এরপর আর কোন নির্বাচন হয়নি। তাই ওই নির্বাচন প্রথম এবং শেষ। সে নির্বাচনে মেয়র (তখন ছিল চেয়ারম্যান) নির্বাচিত হন বর্তমান উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মোন্তফা আনোয়ার পাশা জামাল। ২০০৬ সালের প্রথমদিকে পৌরসভার সীমানা বাড়ানো হয়। এতে সদর ইউনিয়নের মল্লিকপুর, ফারাসাতপুর, পদ্মপুকুর, পানিসারা ইউনিয়নের পুরন্দপুর, কাউরিয়া ও গদখালী ইউনিয়নের বারবাকপুর ও বামনআলী গ্রামের অংশবিশেষ পৌরসভায় অন্তর্ভুক্ত হয়।

অভিযোগ আছে, এসব অঞ্চল বিএনপির ভোটার অধ্যুষিত হওয়ায় তারা নির্বাচনের কথা মাথায় রেখে এ কাজ করেছিলেন। কিন্তু এসব অঞ্চল প্রত্যন্ত এলাকা হওয়ায় পৌরসভায় অন্তর্ভুক্ত না হতে এলাকাবাসী নানা রকম প্রতিবাদ কর্মসূচী পালন করেন। শেষমেষ কাউরিয়া গ্রামের শাহিনুর রহমান, বামনআলী গ্রামের শাহাদৎ হোসেন ও মল্লিকপুর গ্রামের সাইফুজ্জামান পৌরসভায় অন্তর্ভুক্ত না হতে হাইকোর্টে পৃথক তিনটি রিট পিটিশন দায়ের করেন। আর এতেই আটকে যায় ঝিকরগাছা পৌরসভার নির্বাচন। ফলে ২০০৬ সালের নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা স্থগিত করেন হাইকোর্ট।

বান্দরবানে মাটির দেয়াল চাপায় বৃদ্ধের মৃত্যু

নিজস্ব সংবাদদাতা, বান্দরবান, ৯ সেপ্টেম্বর ॥ লামা উপজেলায় মাটির ঘরের দেয়াল ধসে পড়ে বানু মিয়া (৮০) নামের এক বৃদ্ধের মৃত্যু হয়েছে। সোমবার ভোরে উপজেলার গজালিয়া ইউনিয়নের দুর্গম পাহাড়ী সাপমারা ঝিরি এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। বানু মিয়া সাপমারা ঝিরির বাসিন্দা মৃত ওসমান গণির ছেলে।

জানা যায়, দীর্ঘদিন ধরে বানু মিয়া বড় ভাইয়ের বাড়িতে একটি মাটির ঘরে একা থাকতেন। প্রতিদিনের মতো রবিবার রাতেও তিনি ওই ঘরে ঘুমিয়ে পড়েন। এক পর্যায়ে সোমবার ভোর ৪টার দিকে মুষলধারে বৃষ্টি শুরু হলে ঘরের ভেতরে পানি ঢুকে পড়ে। এতে মাটির দেয়াল ভিজে ধসে পড়লে ঘটনাস্থলেই মারা যান বানু মিয়া।