২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

আজ বাংলাদেশ আফগানিস্তান লড়াই

আজ বাংলাদেশ আফগানিস্তান লড়াই
  • বিশ্বকাপ বাছাই ফুটবল

রুমেল খান ॥ প্রতিপক্ষ চেনা। যদিও সর্বশেষ সাক্ষাত বছর চারেক আগে। হেড টু হেডের পরিসংখ্যানেও জয়-হার-ড্রতে সমতা (৫ ম্যাচে ১ জয়, ১ হার ও ৩ ড্র)। এই অবস্থায় দুটি দল যদি আবারও মুখোমুখি হয়, তাও আবার ফিফা বিশ্বকাপের বাছাইপর্বের মতো গুরুত্বপূর্ণ আসরে, তাহলে ফল কি হতে পারে? বলা মুশকিল, তাই না? হ্যাঁ, এ রকম ইন্টারেস্টিং একটি ম্যাচেই আজ নিরপেক্ষ ভেন্যুতে বাংলাদেশ দল আজ মুখোমুখি হচ্ছে আফগানিস্তানের (‘ই’ গ্রুপ)। রাত আটটায় খেলাটি হবে তাজিকিস্তানের দুশানবের রিপাবলিকান সেন্ট্রাল ন্যাশনাল স্টেডিয়ামে (আফগানিস্তানে যুদ্ধাবস্থা বিরাজ করায় এবং নিরাপত্তার ঘাটতি থাকায় ফিফা এই নিরপেক্ষ ভেন্যু ঠিক করেছে)। খেলাটি সরাসরি সম্প্রচার করবে বাংলা টিভি।

বাংলাদেশের গ্রুপের বাকি দলগুলো হচ্ছেÑ ভারত, ওমান ও বিশ্বকাপের স্বাগতিক কাতার। এই গ্রুপে ইতোমধ্যেই দুটি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়েছে। যাতে ওমান ২-১ গোলে ভারতকে এবং কাতার ৬-০ গোলে আফগানিস্তানকে হারিয়ে শুভসূচনা করেছে।

বাংলাদেশের ব্রিটিশ কোচ জেমি ডে বলেছেন, ‘আমাদের খেলোয়াড়দের প্রস্তুতি বেশ ভাল হয়েছে এবং গত দুটি ফ্রেন্ডলি ম্যাচে আমি তাদের খেলা দেখে অনেক সন্তুষ্ট হয়েছি। আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে ম্যাচটি আমাদের জন্য অনেক কঠিন হতে যাচ্ছে, তার কারণ তাদের কিছু ফুটবল ইউরোপের বিভিন্ন দেশের মাইনর লীগ খেলে। তবে এ নিয়ে আমরা মাথা ঘামাতে চাই না। চাই নিজেদের সেরা ও স্বাভাবিক খেলাটাই খেলতে। আমরা এখন দল হিসেবে আগের চেয়ে অনেক পরিণত। গত কয়েক ম্যাচে আমাদের ফলাফল বেশ আশাব্যঞ্জক। সেই ম্যাচগুলোর নৈপুণ্যের ধারাবাহিকতাই আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে ম্যাচে বজায় রাখতে চাই।’

বাংলাদেশের অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়ার বলেন, ‘আফগানিস্তান শক্তিশালী প্রতিপক্ষ। তাদের সঙ্গে ম্যাচটি যথেষ্ট প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ হবে বলে মনে করি। আমরা তাজিকিস্তানে গত ৯ দিন ধরে অনুশীলন করেছি। প্রস্তুতি ভালই। সেই সঙ্গে আফগানদের বিরুদ্ধে সেরা নৈপুণ্য প্রদর্শন করে তাদের কাছ থেকে পূর্ণ তিন পয়েন্ট ছিনিয়ে নেয়ার জন্য আমরা দলের সবাই তৈরি ও রোমাঞ্চিত।’

আফগানিস্তানের কোচ আনৌস দস্তগীর বলেছেন, ‘ফিফা বিশ্বকাপের বাছাইপর্বে আমরা বাংলাদেশের সঙ্গে খেলতে মুখিয়ে আছি। তাদের সঙ্গে খেলাটা একটু ভিন্নমাত্রার হবে বলে মনে করি। কাতারের মতো বাংলাদেশেরও আছে একাধিক ভাল খেলোয়াড় এবং নতুন কোচ। এর আগে আমরা বাংলাদেশের সঙ্গে ৫ বার মুখোমুখি হয়ে ১ বার হেরেছি, ১ বার জিতেছি। তবে সেসব পরিসংখ্যান এখন অতীত। তাছাড়া কেউই বলতে পারবে না মঙ্গলবারের ম্যাচে কারা জিতবে। তবে একটা কথা জোর দিয়ে বলতে পারি, আমার দলের খেলোয়াড়রা বাংলাদেশ দলের খেলোয়াড়দের চেয়ে শারীরিকভাবে এবং টেকনিক্যালি অনেক এগিয়ে আছে। এটাই আমাদের প্লাস পয়েন্ট।’

আফগানিস্তানের অধিনায়ক ফারশাদ নূর বলেন, ‘মঙ্গলবার বাংলাদেশ এবং আফগানিস্তান উভয়দলের জন্যই ম্যাচটি হবে অনেক ইন্টারেস্টিং। খেলাটি অনেক উপভোগ্য হবে বলে আশা করি। আমরা নিজেদের সর্বোচ্চটা দিয়েই খেলব। আমাদের আক্রমণভাগ শক্তিশালী। আশা করি এই দিকটাই দুই দলের মাঝে পার্থক্য গড়ে দেবে।’

সোমবার বাংলাদেশ-আফগানিস্তান উভয়দলই পরস্পরকে মোকাবেলার আগে শেষবারের মতো অনুশীলনে নিজেদের ঝালিয়ে নেয়।

আফগানিস্তানের মুখোমুখি হওয়ার আগে দুটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলেছে বাংলাদেশ দল। প্রথম ম্যাচে তারা তাজিকিস্তানের শীর্ষ লীগের দল এএফসি কুকটশের কাছে ২-০ গোলে হেরে যায়। দ্বিতীয় ম্যাচে সিসকা পামিরের সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করে।

আফগানদের সঙ্গে বাংলাদেশের ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে টার্ফে। এ কারণে জামাল ভূঁইয়ারা একটু আগেভাগেই সেখানে গেছেন। যাতে করে তারা টার্ফ, আবহাওয়া এবং কন্ডিশনের সঙ্গে খাপ খাইয়ে নিতে পারেন।

বাংলাদেশের ‘ই’ গ্রুপের পাঁচ দলের মধ্যে ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে সবচেয়ে এগিয়ে কাতার। ৫৫তম অবস্থানে আছে এশিয়ান কাপের চ্যাম্পিয়নরা। বাকিরাও র‌্যাঙ্কিংয়ে এগিয়ে বাংলাদেশের (১৮৩তম) চেয়ে। ওমান ৮৬তম, ভারত ১০১তম এবং আফগানিস্তান ১৪৯তম স্থানে আছে। তাই বাংলাদেশের জন্য লড়াইটা খুব সহজ হবে না।