২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ইসি ভবনে অগ্নিকাণ্ডে ইভিএমের যন্ত্রপাতি নষ্ট

  • তদন্ত কমিটি গঠন

স্টাফ রিপোর্টার ॥ রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন কমিশন ভবনের নিচতলায় রবিবার রাতে অগ্নিকা-ের ঘটনায় ইভিএমের (ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন) যন্ত্রপাতি নষ্ট হয়েছে। তবে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ তুলনামূলক অনেক কম। অগ্নিকা-ের ঘটনায় ছয় সদস্যবিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করেছে নির্বাচন কমিশন। কমিটিকে তিন কার্যদিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করার সময়সীমা বেঁধে দেয়া হয়েছে। রবিবার রাতে শেরেবাংলানগর নির্বাচন কমিশন ভবনের নিচতলার বেজমেন্টে অগ্নিকা-ের ঘটনাটি ঘটে। ফায়ার সার্ভিস এ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স সদর দফতরের ডিউটি অফিসার লিমা খানম জানান, রাত এগারোটা ছয় মিনিটে তারা আগুন লাগার সংবাদ পান। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের ১০টি ইউনিট ঘটনাস্থলে হাজির হয়। রাত সাড়ে বারোটায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। তদন্ত সাপেক্ষে অগ্নিকা-ের কারণ ও ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ জানা যাবে বলেও এই কর্মকর্তা জানান।

তবে নির্বাচন কমিশনের সিসি ক্যামেরার ফুটেজে পাওয়া তথ্যের বরাত দিয়ে একজন উর্ধতন কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, সিসি ক্যামেরার ফুটেজে রাত সোয়া দশটার দিকে স্পার্ক করার দৃশ্য দেখা যায়। এরপর কয়েক মিনিট পরেই ধোঁয়া দেখা যায়। সার্বিক পর্র্যবেক্ষণে রাত সাড়ে দশটার দিকে আগুন ভালভাবে লাগে বলে ধারণা করা হচ্ছে। যেখানে আগুন লেগেছিল, সেখানে ইভিএমের মেশিনপত্র ছিল। সেখানে ইভিএম প্রকল্পের দুইটি সিসি ক্যামেরা আছে। ক্যামেরা দুইটির ফুটেজ পর্যালোচনা করা হচ্ছে। এটি স্বাভাবিক আগুন না কোন নাশকতা তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

এদিকে সোমবার বেলা একটার দিকে নির্বাচন ভবন চত্বরে আগুন লাগার স্থান পরিদর্শন শেষে জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, নির্বাচন ভবনে লাগা আগুনে সামান্য ক্ষতি হয়েছে। আগুন লাগার কারণে সেখানে পানি দিয়েছে ফায়ার সার্ভিস। যা ক্ষতি হয়েছে তার অধিকাংশই হয়েছে পানির কারণে। পানি দেয়ার কারণে ইভিএম মেশিন ও মনিটর এবং ব্যালট সরঞ্জামাদি ক্ষতি হয়েছে। তবে তা বেশি নয়।