১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

তবু নেতৃত্ব ছাড়ছেন না রুট

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ২০১৭-১৮ মৌসুমে অস্ট্রেলিয়ায় গিয়ে পাঁচ টেস্টের এ্যাশেজ ৪-০ ব্যবধানে হেরেছিল জো রুটের ইংল্যান্ড। এবার ঘরের মাটিতে ট্রফি পুনরুদ্ধারে তারা নেমেছিলে নিজেদের ক্রিকেট ইতিহাসে প্রথম ওয়ানডে বিশ্বকাপের টাটকা স্মৃতি সঙ্গী করে। কিন্তু ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে চতুর্থ টেস্টে বড় হারের পর নিশ্চিত হয়ে গেল এ্যাশেজ পুনরুদ্ধার হচ্ছে না। শেষ টেস্টে ড্র করলেও সিরিজ খোয়াতে হবে। মাথার ওপর কঠিন খড়গ। টানা দুটি এ্যাশেজে এমন ব্যর্থতা সত্ত্বেও অধিনায়কের দায়িত্ব ছাড়ার কোন ইচ্ছা নেই বলে জানিয়েছেন ইংল্যান্ড টেস্ট অধিনায়ক জো রুট, ‘অবশ্যই আমি অধিনায়ক হিসেবেই এই দলকে এগিয়ে নিয়ে যেতে চাই। আমাকে যে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে তা আমি কঠোর পরিশ্রমের মাধ্যমেই পালন করব। সেরাটাই বের করে আনতে চাই। এজন্য যত পারব ম্যাচ জয়ের চেষ্টা করব। সিরিজ হারলেই একটা বিষণœতা কাজ করে। সেটা আমাকে মাথায় পেতে নিতে হবে। নিজের এবং দলের ঠিক জায়গাটা বের করে আনতে হবে।’

এজবাস্টনে এ্যাশেজের প্রথম টেস্টে ২৫১ রানের বড় ব্যবধানে হারে ইংল্যান্ড। লর্ডসের দ্বিতীয় টেস্ট ড্র হয়। হেডিংলিতে বেন স্টোকসের অতিমানবীয় ইনিংসে ভর করে ১ উইকেটের নাটকীয় জয়ে ১-১এ সমতা ফিরিয়েছিল ইংলিশরা। কিন্তু ওল্ডট্র্যাফোর্ডে চতুর্থ টেস্টের শেষদিনে শেষ বেলায় ১৮৫ রানের হারে আশা শেষ হয়ে যায় রুটদের। ট্রফিটা আর পুনরুদ্ধার করা হচ্ছে না। পাঁচ টেস্টে সফরকারী অস্ট্রেলিয়া এখন ২-১ ব্যবধানে এগিয়ে। বৃহস্পতিবার ওভালে শুরু পঞ্চম ও শেষ টেস্ট। ২৮ বছর বয়সী রুট বলেন, ‘এ রকম পরিস্থিতি থেকেই দল হিসেবে অনেক কিছু শেখার থাকে। আমরা অনভিজ্ঞ দল ছিলাম। আমাদের দ্রুত শিখতে হবে বিষয়গুলো। আমরা যতটা ভাল পারফর্মেন্স আশা করেছিলাম ততটা পারিনি। ধারাবাহিকতা দেখাতে পারিনি এই সিরিজে। আমরা ওভালে ঘুরে দাঁড়িয়ে সিরিজে সমতা ফেরানোর চেষ্টা করব।’

সিরিজে নিজেও ব্যাট হাতে ব্যর্থ হয়েছেন রুট। চার ম্যাচে তার গড় ৩০.৮৭। এরই মাঝে তিনটি ‘ডাক (০)’ মেরেছেন তিনি, যার মাঝে দুটিই গোল্ডেন ডাক। এক সিরিজে কোন ইংলিশ অধিনায়কের এত শূন্য রানের ইনিংস আর নেই। রুট যেখানে বর্ণহীন, অস্ট্রেলিয়ার স্টিভেন স্মিথ পুরো সিরিজজুড়েই আলো ছড়িয়েছেন। ইংল্যান্ড অধিনায়ক মানছেন, স্মিথই দুই দলের পার্থক্যটা গড়ে দিয়েছেন, ‘স্মিথকে সরিয়ে রাখলে দুই দলের খুব একটা পার্থক্য নেই। তার বিপক্ষে বল করাটা খুব কঠিন। আমরা তাকে আউট করার উপায় খুঁজে পাইনি, এটাই আমাদের ভুগিয়েছে। পুরো সিরিজেই বোলাররা দাপট দেখিয়েছে। দুই দলেই অনেক অভিজ্ঞ ক্রিকেটার আছেন যারা পারফর্ম করেনি। আমাদের দলটা অনেক দিক দিয়েই অনভিজ্ঞ। আমাদের এখন অনেক কিছুই দ্রুত শিখতে হবে। আমরা যতটা ভাল খেলতে চেয়েছিলাম ততটা ভাল খেলতে পারিনি। এটা আর হতে দেয়া যাবে না।’ শেষ ম্যাচের ফলাফল এ্যাশেজ নির্ধারণে আর প্রভাব না ফেললেও টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের কথা মাথায় রেখেই ওভালে জয় চান রুট, ‘অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সব ম্যাচই গুরুত্বপূর্ণ। আমরা গ্রীষ্মটা জয় দিয়েই শেষ করতে চাই। টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের কথাও মাথায় রাখতে হবে। আমি জানি এ্যাশেজ আর ফিরছে না। তবু শেষ ম্যাচের পয়েন্টটা গুরুত্বপূর্ণ। আমাদের এখন সব ভুলে সামনের দিকে তাকাতে হবে। নিজেদের উজার করে দিয়ে এগিয়ে যেতে হবে।’