১৯ নভেম্বর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

শোকের মাতমে তাজিয়া মিছিলে মানুষের ঢল

শোকের মাতমে তাজিয়া মিছিলে মানুষের ঢল

অনলাইন রিপোর্টার ॥ পবিত্র আশুরা উপলক্ষে রাজধানীর পুরান ঢাকার নাজিমুদ্দিন রোডের হোসেনি দালান থেকে তাজিয়া মিছিল শুরু হয়েছে।

আজ মঙ্গলবার সকাল ১০টার দিকে কারবালার মর্মান্তিক শোকের স্মরণে ইমামবাড়া থেকে তাজিয়া মিছিল বের করা হয়। মিছিলে কারবালার রক্তাক্ত স্মৃতির স্মরণে মানুষের ঢল নেমেছে।

মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা.)-এর প্রিয় দৌহিত্র হযরত ইমাম হোসাইন (রা.) এ দিনে কারবালা প্রান্তরে হত্যার স্মরণে মুসলমান সম্প্রদায় বিশেষ করে শিয়া সম্প্রদায় মহরম মাসে তাজিয়া মিছিল বের করে।

ঢাকায় হোসেনী দালান ঘিরে শিয়াদের তাজিয়া মিছিলের ঐতিহ্য কয়েকশ’ বছরের।

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) তাজিয়া মিছিলে পাইক (শরীর রক্তাক্ত করা) দলভুক্ত ব্যক্তিদের দা, ছোরা, কাঁচি, বর্শা, বল্লম, তরবারি, লাঠি ইত্যাদি নিয়ে অংশগ্রহণ নিষিদ্ধ করেছে।

মিছিলের সামনে রয়েছে কালো কাপড়ের ইমাম হোসেনের (র.) তাজিয়া (প্রতীকী কবর)। নারী-পুরুষ শিশুদের হাতে অসংখ্য কালো, লাল ও সবুজ নিশান। তরুণদের (ভেস্তা) হাতে হাতে বিচিত্র আলাম (দীর্ঘ লাঠির মাথায় পতাকা)।

হোসনি দালান ইমামবাড়ার প্রশাসনিক কর্মকর্তা মির্জা মোহাম্মদ নাকি আসলাম জানান, ৪০০ বছর ধরে পুরান ঢাকায় শোকের মাতম অর্থাৎ তাজিয়া মিছিল বের করা হয়। কারবালায় ইমাম হোসেনসহ তার পরিবারকে হত্যার মধ্যদিয়ে যে বিষাদময় ঘটনা ঘটেছে ইতিহাসে তার পুনরাবৃত্তি হবে না। মিছিলে বিভিন্ন ধর্ম ও গোষ্ঠীর মানুষ অংশ নিয়েছে।

এদিকে, তাজিয়া মিছিল উপলক্ষে ইমামবাড়া এবং আশেপাশের এলাকায় কঠোর নিরাপত্তা নেওয়া হয়েছে। অতিরিক্ত পুলিশসহ আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনীর সদস্যরা সদা তৎপর রয়েছেন।

মির্জা মোহাম্মদ আসলাম বলেন, নিরাপত্তা নিয়ে তারা সন্তুষ্ট। সরকার সর্বাত্মক চেষ্টা করছে যেন নিরাপদে মিছিল শেষ করতে পারি।

মিছিলটি পুরান ঢাকার ইমামবাড়া থেকে বকশীবাজার, উর্দুরোড হয়ে ধানমন্ডিতে গিয়ে শেষ হবে বলে জানান আসলাম।