১৯ নভেম্বর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

শনিবার ‘রাজহংস’ উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী

শনিবার ‘রাজহংস’ উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক ॥ বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বহরে যুক্ত হতে সর্বাধুনিক প্রযুক্তির চতুর্থ বোয়িং ৭৮৭ ড্রিমলাইনার উড়োজাহাজ দেশে আসছে বৃহস্পতিবার।

শনিবার সকাল ১১টায় হজরত শাহজালাল আর্ন্তজাতিক বিমানবন্দরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ‘রাজহংস’ নামে উড়োজাহাজটি উদ্বোধন করবেন বলে বিমানের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

বিমানের জনসংযোগ শাখার উপমহাব্যবস্থাপক তাহেরা খন্দকার জানান, বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজহংস বিমানবন্দরে অবতরণের পর ওয়াটার ক্যানন স্যালুটের মাধ্যমে স্বাগত জানানো হবে।

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স ২০০৮ সালে মার্কিন উড়োজাহাজ নির্মাতা প্রতিষ্ঠান বোয়িং কোম্পানির সঙ্গে ১০টি নতুন বিমান ক্রয়ের জন্য চুক্তিবদ্ধ হয় ।

এরই মধ্যে ৪টি বোয়িং ৭৭৭-৩০০ ইআর, ২টি বোয়িং ৭৩৭-৮০০ ও ৩টি বোয়িং ৭৮৭-৮ ড্রিমলাইনার উড়োজাহাজ বিমান বহরে যুক্ত হয়েছে।

‘রাজহংস’ বিমান বহরে যুক্ত হওয়ার মধ্য দিয়ে সম্পাদিত চুক্তির আওতায় ১০টি উড়োজাহাজের সবই বিমান বুঝে পাবে। এই উড়োজাহাজ যুক্ত হওয়ার মধ্য দিয়ে বিমানের বহরে উড়োজাহাজের সংখ্যা দাঁড়াবে ১৬টি।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, টানা ১৬ ঘণ্টা উড়তে সক্ষম এই ড্রিমলাইনার চালাতে অন্যান্য বিমানের তুলনায় ২০ শতাংশ কম জ্বালানির দরকার হবে। ২৭১ আসনের রাজহংসে বিজনেস ক্লাসের আসন রয়েছে ২৪টি। এসব আসন সর্ম্পূণ ফ্ল্যাটবেড হওয়ায় ভ্রমণ আরামদায়ক ও স্বচ্ছন্দ হবে। উড়োজাহাজটিতে ইন্টারনেট ও ফোন কল করাসহ অন্যান্য আধুনিক সুবিধা রয়েছে।

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বহরে যুক্ত হতে যাওয়া চারটি ড্রিমলাইনারের নাম পছন্দ ও বাছাই করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এগুলো হলো- আকাশবীণা, হংসবলাকা, গাঙচিল ও রাজহংস।

এর আগে ৪টি বোয়িং ৭৭৭-৩০০ ইআর, ২টি বোয়িং ৭৩৭-৮০০ইআর এগুলোর নামও- পালকি, অরুণ আলো, আকাশ প্রদীপ, রাঙা প্রভাত, মেঘদূত এবং ময়ূরপঙ্খী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দিয়েছেন।

২০২০ সালের মার্চ-জুন মাসের মধ্যে কানাডা কমার্শিয়াল কোম্পানি থেকে স্বল্প পাল্লার ৩টি নতুন ড্যাশ৮-কিউ৪০০ উড়োজাহাজ বিমানের বহরে যুক্ত হবে বলে বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়।