২০ অক্টোবর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

গাইবান্ধায় কলার মোচা এখনও জনপ্রিয় সবজি

গাইবান্ধায় কলার মোচা এখনও জনপ্রিয় সবজি

নিজস্ব সংবাদদাতা, গাইবান্ধা ॥ কলার মোচা এখনও গাইবান্ধায় সর্বস্তরের মানুষের জনপ্রিয় একটি সবজি। কলার মোচা থেকে তৈরী তরকারি, ভর্তা, ডাল এবং ঝোলের তরকারি বেশ সু-স্বাদু। এ কারণে কলার মোচা এ জেলার অনেক দরিদ্র বিপন্ন মানুষের জীবন জীবিকার অন্যতম পেশায় পরিণত হয়েছে।

মূলত: একটি কলার গাছে কলা ধরা শুরু করলে প্রথমেই বের হয় বেগুনি রংয়ের লম্বাটে থোর। এর পরতে পরতে থাকে ফুল। যেগুলো একটি লম্বা ছড়িতে একেক একেকটি কলার কাঁদি হিসেবে ঝুলে থাকে। একপর্যায়ে কলা ধরা পর্ব শেষ হলে ওই লম্বাটে থোরটি ঝুলে থাকে। যা তখন কেটে নিয়ে সবজি হিসেবে খাওয়া হয়। যথেষ্ট জনপ্রিয় হওয়ার কারণে ক্রেতাদের কাছে এই কলার থোরের চাহিদা অত্যান্ত বেশী।

আর একেই পেশা হিসেবে নিয়ে জীবন জীবিকা নির্বাহ করছে সদর উপজেলার রামচন্দ্রপুর গ্রামের শ্রমজীবি নারী মফিজান বেওয়া। গ্রামে গ্রামে ঘুরে কলার থোর সংগ্রহ করে ডালিতে মাথায় করে নিয়ে জেলা শহরের পাড়ায় মহল্লায় তা বিক্রি করেন। এছাড়া কলার মোচা বিক্রেতা গাইবান্ধা সদরের কুপতলা ইউনিয়নের আরেক দিনমজুর রশিদ মিয়া দিন মজুরের কাজের ফাঁকে গ্রামের বিভিন্ন স্থানে কলার মোচা সংগ্রহ করে এখন সাইকেল চেপে বাজারে আসে এবং মোচা বিক্রি করে।

কলার মোচা বিক্রেতাদের কাছ থেকে জানা যায়, একটি মোচা তারা কলার গাছ ওয়ালার কাছ থেকে কিনে আনে ১০ থেকে ১৫ টাকায়। শহরে এনে একটি মোচা বিক্রি হয় ২০ থেকে ২৫ টাকায়। প্রচুর চাহিদা থাকায় মুহুর্তেই তা বিক্রি হয়ে যায় বলে এর বেচাকেনা করে শ্রমজীবি মানুষগুলো এখন আত্মনির্ভর হতে চলেছে।