২০ অক্টোবর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

আমতলীতে জমি নিয়ে সংঘর্ষে মহিলাসহ আহত ৯

আমতলীতে জমি নিয়ে সংঘর্ষে মহিলাসহ আহত ৯

নিজস্ব সংবাদদাতা, আমতলী, বরগুনা ॥ বরগুনার আমতলী উপজেলার উত্তর টেপুরা গ্রামে জমির দখল নিয়ে দু’পক্ষের সংঘর্ষে মহিলাসহ ৯ জন আহত হয়েছে। গুরুতর আহতদের বরিশাল পটুয়াখালী ও আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনা ঘটেছে সোমবার সকালে।

স্থানীয় সূত্রে জানাগেছে, উপজেলার উত্তর টেপুরা গ্রামের জয়নুল মাতুব্বরের নিকট থেকে রিপন মাতুব্বব ও মজিবর মাতুব্বর এক একর জমি ক্রয় করে। ওই জমির দখল নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে রিপন মাতুব্বর ও মজিবর মাতুব্বরের মধ্যে বিরোধ চলে আসছিল। এ নিয়ে স্থানীয়ভাবে কয়েক দফায় শালিস বৈঠক হয়।

সোমবার সকালে ওই বিরোধীয় জমিতে মজিবর মাতুব্বর তার লোকজন দিয়ে ঘর তুলতে যায়। এতে বাঁধা দেয় রিপন মাতুব্বর ও তার লোকজন। এ নিয়ে উভয় পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পরে। সংঘর্ষে উভয় পক্ষের মহিলাসহ ৯ জন আহত হয়েছে। আহত জসিম মাতুব্বর, নিজাম মাতুব্বর, জুয়েল, সোবাহান মাতুব্বরকে আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্ষে ভর্তি করা হয়। এদের মধ্যে গুরুতর আহত সোবাহান মাতুব্বরকে পটুয়াখালী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। অপর আহত রুমা বেগম, খাদিজা বেগম, মিজানুর রহমান, জাহাঙ্গির মাতুব্বর ও মোস্তাফিজুর রহমানকে স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।

রিপন মাতুব্বর অভিযোগ করে বলেন, মজিবর মাতুব্বর আমতলী উপজেলা ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক মোঃ আবদুল্লাহ আল মামুন সবুজসহ ২০/২৫ জন সন্ত্রাসী বাহিনী এনে সোমবার সকালে আমার জমিতে জোড় করে ঘর তুলতেছিল। এতে আমি বাঁধা দিলে আমার পক্ষের মহিলাসহ ৬ জনকে কুপিয়ে আহত করেছে।

মজিবর মাতুব্বর ছেলে জাহাঙ্গির মাতুব্বর বলেন, আমার বাবার জমিতে আমরা ঘর তুলতে যাই। ওই ঘর তুলতে রিপন মাতুব্বর বাঁধা দেয় এবং আমার পক্ষের তিন জনকে মারধর করেছে।

আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের উপ-সহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার নিখিল চন্দ্র বলেন, চারজনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এর মধ্যে সোবাহান মাতুব্বর নামের একজনকে পটুয়াখালী মেডিকেল কলেজ হাপসাপাতালে পাঠিয়েছি।

আমতলী উপজেলা ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক আবদুল্লাহ আল মামুন সবুজ বলেন, শালিস বৈঠকের কথা বলে আমাকে নেয়া হয়েছিল। বৈঠক না হওয়ায় আমি চলে এসেছি। আমার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ মিথ্যা। একটি মহল আমার মান ক্ষুন্ন করার জন্য ষড়যন্ত্র করছে।

আমতলী থানার ওসি মোঃ আবুল বাশার বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। কোন অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।