১৯ অক্টোবর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

পটিয়া থানার পিছনেই গাঁজা বিক্রীর আস্তানা, অভিযানে গ্রেফতার ৪

পটিয়া থানার পিছনেই  গাঁজা বিক্রীর আস্তানা,  অভিযানে গ্রেফতার ৪

নিজস্ব সংবাদদাতা, পটিয়া ॥ গাঁজা বিক্রীর আস্তানা চট্টগ্রামের পটিয়া থানার পিছনের একটি কলোনিতে। দীর্ঘদিন ধরে বেরাইজ্জ্যা কলোনিখ্যাত (দফাদার কলোনি) এখানে ছোলাই মদ ও গাঁজা বিক্রীর রমরমা ব্যবসা চললেও থানা পুলিশ অদৃশ্য কারণে ছিল চুপ। এমনকি ওই কলোনি থেকে কোন মাদক ব্যবসায়ীকে পুলিশ গ্রেফতার পর্যন্ত করেনি। সোমবার বিকেলে পটিয়া থানা পুলিশ বিশেষ অভিযান চালিয়ে দুই কেজির অধিক গাঁজাসহ চারজনকে গ্রেফতার করেছে। সুমি আকতার (২৬), রুবি আকতার (১৯), নাজমুল (২২), মো. আজিজ (২৫)। ঘটনাস্থল থেকে পালিয়েছে ফাতেমা বেগম (৩৭) ও কামাল হোসেন (৫০)।

জানা গেছে, পটিয়া থানার পিছনে রয়েছে বাংলাদেশ রেলওয়ের বেশ কিছু জায়গা। ওই জায়গার একটি কলোনিতে রোহিঙ্গা ছাড়াও দেশের বিভিন্ন জেলার লোকজন বসবাস করে থাকে। এখানেই ছোলাই মদ, গাঁজাসহ বিভিন্ন অপকর্ম চলে আসছিল। এই কলোনি থেকে গাঁজা পটিয়া উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন ও পৌরসদরের বিভিন্ন ওয়ার্ডে পাচার হয়ে থাকে। সারাদেশে পুলিশ, র‌্যাব মাদকবিরোধী অভিযান শুরু করলে অবশেষে পটিয়া থানা পুলিশ অভিযানে নামে। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে ২ কেজির অধিক গাঁজাসহ উদ্ধার করা হয়েছে। পটিয়া থানার ওসি (তদন্ত) জাব্বারুল ইসলামের নেতৃত্বে পুলিশের একটি টিম অভিযান চালিয়ে গাঁজাসহ চারজনকে গ্রেফতার করেছে। এসময় তাদের কাছ থেকে নগদ কিছু টাকাও পাওয়া যায় বলে পুলিশ জানান। এই কলোনিতে মদ ও গাঁজা বিক্রী ছাড়াও মদ্যপায়ীদের আস্তানা রয়েছে বলে স্থানীয়রা জানান।

পটিয়া থানার ওসি (তদন্ত) জাব্বারুল ইসলাম জানিয়েছেন, থানার পিছনে গাঁজা বিক্রীর আস্তানার খবর পেয়ে পুলিশ অভিযান চালিয়েছে। থানার পিছনের কলোনিতে দীর্ঘক্ষণ তল্লাশির পর একটি বাসার চালের ড্রামের নিচ থেকে গাঁজা উদ্ধার করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

নির্বাচিত সংবাদ