২০ অক্টোবর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

মোনালিসা চট্টোপাধ্যায়ের ছড়া-কবিতা

আলোর ফুলকি

চাঁদের আলো গাছের পড়ে নদীর সাদা জলে

আমার মেয়ে আলোর কথা গাইবে সুরে তালে।

নাচের বোলে রঙিন আলো কোথায় এমন পাবে?

সরল সোজা বাংলা গানে বিশ্ব মাতিয়ে যাবে।

নতুন জামা পরির হাসি আলোর ফুল-মালা-

তুবড়ি জ্বেলে রাখাল বাঁশি সঙ্গে নিয়ে পালা।

কপাট খোলা সরল বাড়ি মাটির হাঁড়ি কুড়ি,

ঘোমটা ঢাকা তোবড়া গালে চরকা কাটে বুড়ি

চাঁদের দেশে আলোর রথ পাঠিয়ে দিলে তুমি

জোনাক তুলে সাজিয়ে দেব শিশুর নব জমি।

বৃষ্টি এলো

আকাশ জুড়ে মেঘের সভা মেঘের পরে মেঘ

ময়ূর নাচে বর্ষা মেঘে নাচের তালে ভেক।

আঁধার মেঘে তিতির পাখি ডালিম গাছে মউ,

মাটির বাড়ি পদ্মপাতা সোনায় মোড়া বউ।

খুকুর পায়ে ঘুঙুর বাজে রিমলি সোনা হাসে

বৃষ্টি মেঘে জলের ছবি আলোর ফোঁটা ঘাসে।

চাতকপাখি জলের গানে খেলছে একা ভিজে।

বজ্রমেঘে শব্দ আসে শ্যামলা কাঁদে মিছে।

হাস্নুহানা ওই ফুটেছে কাজল কালো মেঘে।

বৃষ্টি এলো বৃষ্টি এলো কৃষ্ণকলি মেয়ে।

খোঁপার চুলে ফুলের মালা কদম কেয়া দোলে,

মামার বাড়ি মজার বাড়ি চড়ুই গান তোলে।

আলের ধারে দাঁড়িয়ে আছি ছাগলছানা পাশে,

মায়ের কোলে মুখটি ডাকি বিদ্যুৎ যেই আসে।

আকাশ জুড়ে মেঘের ভেলা শালিক খেলে মাঠে,

ময়ূর নাচে পেখম তুলে খুকুমণির পাঠে।

জলের হাসি মেঘের কথা লিখবে কলম দিয়ে

নদীর বুকে রোদ হেসেছে সোনামণির বিয়ে।

আসছে পুজো

আসছে পুজো চাই খুকুর নতুন লাল জামা

দেখতে যাব ঠাকুর আমি সঙ্গে যাবে জামা।

নতুন জামা বেজায় খুশি বেলুন নেব হাতে

কাঠ-পুতুল সঙ্গে নেব কাঁথা কম্বল কাঁধে।

নানারকম গান শুনিয়ে তুলব আমি সুর-

গান শুনতে ছুটবে আলো যাবে অনেকদূর।

আলোর খেলা রঙিন হাসি দুগ্ধপুজো মাগো

সাজছে খুকু লাল রিবনে, শিউলি ভোরে জাগো

নির্বাচিত সংবাদ