২০ অক্টোবর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বিশ্ববিদ্যালয় দিবসে প্রাণের উচ্ছ্বাস

  • হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়

মমিনুল ইসলাম ॥ দেশের উত্তরাঞ্চলে অবস্থিত হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাসে ১১ সেপ্টেম্বর একটি বিশেষ দিন। ১৯৯৯ সালের ১১ সেপ্টেম্বর এই দিনে আধুনিক কৃষি বিজ্ঞান, কম্পিউটার সায়েন্স ও ব্যবসায় প্রশাসনসহ বিভিন্ন বিভাগে দক্ষ জনশক্তি গড়ার লক্ষ্য নিয়ে দেশের অন্যতম শ্রেষ্ঠ এই বিদ্যাপীঠের যাত্রা শুরু হয়। প্রতিষ্ঠার পর থেকেই আধুনিক শিক্ষা বিস্তারে হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় স্বতন্ত্র ভূমিকা পালন করে আসছে।

নানা কর্মসূচী ও উৎসবমুখর পরিবেশে ২০তম বিশ্ববিদ্যালয় দিবসটি উদযাপন করেছে হাবিপ্রবি পরিবার। গত বুধবার সাড়ে ৯টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মু. আবুল কাশেম প্রশাসনিক ভবনের সম্মুখে পায়রা ও বেলুন উড়িয়ে দিবসটির শুভ উদ্বোধন করেন। এ উপলক্ষে এক বর্ণাঢ্য আনন্দ শোভাযাত্রা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ করে। শোভাযাত্রা শেষে কেক কাটা হয়। আলোকসজ্জায় সজ্জিত করা হয় সমস্ত ক্যাম্পাসকে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের সংক্ষিপ্ত ইতিহাস ॥ দেশের পশ্চাৎপদ উত্তরাঞ্চলকে এগিয়ে নেয়াসহ দেশের বিজ্ঞান ও কারিগরি শিক্ষার উন্নয়নের জন্য প্রথমে ১৯৭৯ সালে একটি কৃষি প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট (এটিআই) স্থাপন করা হয়। ১৯৮৮ সালে এটিআইকে কৃষি কলেজে উন্নীত করা হয়। কলেজটি ঐতিহাসিক তেভাগা আন্দোলনের অন্যতম ব্যক্তিত্ব হাজী মোহাম্মদ দানেশের নামে নামকরণ করা হয়।

১৯৯৯ সালের ১১ সেপ্টেম্বর গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তৎকালীন ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এদিন উত্তরবঙ্গে প্রথম বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়- হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, দিনাজপুরের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করে এ বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্যক্রম শুরু করেন।

অবস্থান ও ভৌত অবকাঠামো ॥ দিনাজপুর শহর হতে ১০ কিমি. উত্তরে এবং দিনাজপুর-রংপুর-ঢাকা মহাসড়কসংলগ্ন পশ্চিমে সুরম্য অট্টালিকা ও বহু প্রজাতির সবুজ বৃক্ষ ঘেরা এই দৃষ্টিনন্দন ক্যাম্পাসটি অবস্থিত। মোট ৮৫ একর জমির ওপর প্রতিষ্ঠিত হাবিপ্রবির মনোরম ও দৃষ্টিনন্দন ক্যাম্পাস। কৃষি কলেজের অবকাঠামোর ওপর ভিত্তি করে এর কার্যক্রম শুরু হলেও পরবর্তীতে বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্রমবর্ধমান কর্মকা- সুষ্ঠু ও পরিকল্পিতভাবে পরিচালনার জন্য আরও ভৌত সুবিধাদি গড়ে উঠেছে।

বিদেশী শিক্ষার্থী ॥ দেশের সরকারী বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে সর্বোচ্চ ২২৫ বিদেশী শিক্ষার্থী অধ্যয়ন করছে। এসব শিক্ষার্থী নেপাল, ভারত, জিবুতি, ভুটান, সোমালিয়া ও নাইজিরিয়া থেকে এখানে পড়তে এসেছে।

বর্তমান অবস্থা ॥ প্রতিষ্ঠার শুরুতে কৃষি অনুষদের অধীন বিএসসি এজি (অনার্স) প্রোগ্রামে ১৪টি শিক্ষা বিভাগে ৫৩ শিক্ষক, ১১ কর্মকর্তা, ১১০ কর্মচারী, ৬৭ শ্রমিক ও পূর্ব থেকে ভর্তিকৃত ৭০০ ছাত্রছাত্রী নিয়ে সীমিত পরিসরে অমিত সম্ভাবনা নিয়ে এ বিশ্ববিদ্যালয়ের অগ্রযাত্রা শুরু হয়। বর্তমানে ৯ অনুষদের অধীন ৪৫টি শিক্ষা বিভাগের তত্ত্বাবধানে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা ও গবেষণা কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে। বর্তমানে ১১ হাজার শিক্ষার্থী এখানে লেখাপড়া করছে। রয়েছেন ৩২১ অভিজ্ঞ শিক্ষক। ২০০ এর অধিক কর্মকর্তা এবং ৩০২ জন কর্মচারী রয়েছেন।

নির্বাচিত সংবাদ