২০ অক্টোবর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বিশ্বমঞ্চে বড় পরীক্ষা বাংলাদেশের

  • জাহিদুল আলম জয়

বিশ্বমঞ্চে বড় পরীক্ষায় অবতীর্ণ হয়েছে বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দল। ইতোমধ্যে ফিফা বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে মিশন শুরু করেছে লাল-সবুজের দেশ। সামনে আরও সাতটি ম্যাচ। এই ম্যাচগুলোতে নিজেদের প্রমাণের সুযোগ পাচ্ছেন বাংলার ফুটবলাররা।

দেশের ফুটবলে সাম্প্রতিক সময়ে উন্নতির ছাপ স্পষ্ট। বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দল ধারাবাহিকভাবে লড়াকু পারফরমেন্স প্রদর্শন করে চলেছে। সদ্যই ভুটানের বিরুদ্ধে দুটি ফিফা আন্তর্জাতিক প্রীতি ফুটবলে দাপুটে জয় পেয়েছে লাল-সবুজের দেশ। এখন এই জয়ের আত্মবিশ্বাস পুঁজি করে বাংলাদেশের লক্ষ্য ২০২২ বিশ্বকাপ বাছাই ফুটবলে ভাল করা। বৃহস্পতিবার হোম ম্যাচে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে পরবর্তী বিশ্বকাপের স্বাগতিক কাতারের বিরুদ্ধে খেলবে জামাল ভুঁইয়ার দল। এরপর ১৫ অক্টোবর গ্রুপে নিজেদের তৃতীয় ম্যাচ খেলতে ভারতের কলকাতার সল্টলেক যাবে কোচ জেমি ডে’র ছাত্ররা। এই দুটি ম্যাচেই বাংলাদেশ দল লড়াই করবে বলে আশাবাদী বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) সভাপতি ও সাবেক কিংবদন্তি ফুটবলার কাজী মোঃ সালাউদ্দিন। বর্তমান দলের খেলায় সন্তোষ প্রকাশ করে বাফুফে বস রবিবার জানিয়েছেন, এই দলটিই বাংলাদেশের ইতিহাসে সেরা দল। ঠিক এক মাস আগেও সালাউদ্দিন এমন মন্তব্য করেছিলেন। তখন তিনি বলেছিলেন, বর্তমান বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দলটি গত ৫০ বছরের সেরা।

এশিয়া অঞ্চলের বিশ্বকাপ বাছাইয়ের দ্বিতীয় রাউন্ডে বাংলাদেশ প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে ‘ই’ গ্রুপে। ইতোমধ্যে একটি ম্যাচ খেলেছে লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা। গত ১০ সেপ্টেম্বর তাজিকিস্তানের দুশানবেতে অনুষ্ঠিত ম্যাচটিতে ভাল খেলেও আফগানিস্তানের কাছে ১-০ গোলে হেরেছে বাংলাদেশ। হারে মিশন শুরু হলেও ঘুরে দাঁড়াতে নিজেদের প্রস্তুত করছেন জামাল, রবিউল, মামুনুলরা। এ লক্ষ্যেই ভুটানের বিরুদ্ধে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে দুটি প্রীতি ম্যাচ খেলেছে বাংলাদেশ। দুটিতেই দাপুটে জয়ে আত্মবিশ্বাস বাড়িয়ে নিয়েছে জেমি ডে’র দল। এখন বিশ্বকাপ বাছাইয়ে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে কাতারের মুখোমুখি হওয়ার অপেক্ষা।

কঠিন চ্যালেঞ্জে দল মাঠে নামার আগে কথা বলেছেন বাফুফে সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন। আসন্ন কাতার ও ভারতের বিরুদ্ধে ম্যাচ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘এরা প্রতিপক্ষ হিসেবে আমাদের জন্য অনেক কঠিন। আমি জানি তাদের বিরুদ্ধে হয়তো আমাদের ছেলেরা সে রকম কিছু করতে পারবে না। তবু তাদেরকে তো চেষ্টা করতে দিতে হবে। ছেলেদের নিজেদের সেরাটা মেলে ধরতে হবে। আমি চাই তারা সেরাটা দিয়ে খেলুক।’ বর্তমান দলের পারফরমেন্সে উচ্ছ্বসিত বাফুফে প্রধান বলেন, ‘আপনার হয়তো আমার সঙ্গে একমত হবেন যে, এটাই এ দেশের ফুটবল ইতিহাসের সেরা দল। আমাদের সময় মানুষ আসতো খেলা দেখতে। এখন সেটা পাল্টে গেছে। মানুষ আর আগের মতো মাঠে আসে না।’

ভারতকে সবসময়ই বাংলাদেশের চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী বলা হয়ে থাকে। কিন্তু বাস্তবতা বুঝতে পারছেন সালাউদ্দিন। তার দৃষ্টিতে সবদিক দিয়েই বেশ এগিয়ে গেছে ভারতের ফুটবল। এ প্রসঙ্গে সালাউদ্দিন বলেন, ‘পাঁচ বছর আগের ভারত আর আজকের ভারত এক নয়। তারা মিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ করেছে। আমরা এ পর্যায়ে পিছিয়ে গেছি। আমার সময় যে ভারতের বিরুদ্ধে খেলেছি সেই ভারত আর এই ভারত এক নয়। তারা অনেক উন্নতি করেছে গত কয় বছরে।’ মাঝখানে বাংলাদেশ জাতীয় দলের ফুটবলারদের গোল পেতে সংগ্রাম করতে হয়েছে। এমনও গেছে লম্বা সময় গোল পাননি ফুটবলাররা। তবে সাম্প্রতিক সময়ে এ বিষয়ে দারুণ উন্নতি পরিলক্ষিত হচ্ছে। ধারাবাহিকভাবেই গোল পাচ্ছেন রবিউল, জামালরা। এ বিষয়ে সালাউদ্দিন বলেন, ‘গোল হচ্ছে, এটা খুব ভাল খবর। আসলে এটা ফুটবলেরই একটা পার্ট। খেলায় গোল হবে এটাই স্বাভাবিক।’

গত মাসেও বাংলাদেশের বর্তমান দলের ভূয়সী প্রশংসা করেছিলেন বাফুফে সভাপতি। বাংলাদেশ সেরা দলটা নিয়েই বিশ্বকাপ বাছাই খেলছে জানিয়ে কাজী সালাউদ্দিন বলেছিলেন, ‘যে টিমটা গঠন করা হয়েছে তারা সবাই নতুন। আমার মতে তারা খুব ভাল খেলছে। আমিও জাতীয় দলের হয়ে ১৩ বছর ফুটবল খেলেছি। কিন্তু এমন সাফল্য আসেনি। আমার বিশ্বাস বিশ্বকাপ বাছাইয়ে দল ভাল করবে।’ সাবেক তারকা এই ফুটবলার আরও বলেছিলেন, ‘আমি আশা করি বর্তমানে যারা জাতীয় দলে আছেন তারা ভাল করবে। ফুটবলটা এখন অন্য পর্যায়ে পৌঁছে গেছে। এই ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে পারলে আগামী চার-পাঁচ বছরের মধ্যে এই তরুণেরা বাংলাদেশের ফুটবলের জন্য ভাল ফলাফল নিয়ে আসবে।’

এর আগে অনেক তারকা ফুটবলারের সমাবেশ থাকলেও সাফল্য পায়নি বাংলাদেশ। তবে কোচ জেমি ডে’ বর্তমান দলকে দারুণভাবে সংগঠিত করেছেন। লড়াই করার মানসিকতা ফিরিয়ে এনেছেন। সবচেয়ে বড় কথা, ফিটনেসে দারুণ উন্নতি ঘটিয়েছেন। আগে একটি কথা প্রচলিত ছিলÑবাংলাদেশের ফুটবলররা ৯০ মিনিট খেলতে পারেন না। তাদের দম আসলে ৪৫ মিনিটের! এই দুর্নামটা এখন ভালমতোই ঘুচিয়েছেন জামাল, রবিউলরা। টগবগে যুবকরা দারুণ ফুটবল উপহার দিয়ে চলেছেন। অনেকের মতে, জেগে ওঠার এই প্রচেষ্টা আরও আগে করলে সুফলও আসতো আগে। কিন্তু নিজের টানা তৃতীয় মেয়াদের শেষদিকে এসে উদ্যোগী হয়েছেন বাফুফে সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন। বিশেষজ্ঞদের দৃষ্টিতে, এই প্রচেষ্টা আগে নেয়া হলে আরও উপকার হতো দেশের ফুটবলের।

এর আগেও বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দল ফিফা বিশ্বকাপ বাছাইয়ে অংশ নিয়েছে (১৯৮৬-২০১৮)। ওই সময়ে খেলেছে মোট ৪৮ ম্যাচ। জিতেছে মাত্র ৮টিতে। ড্র করেছে ৫টিতে। আর হেরেছে ৩৫ ম্যাচে। ৩৩ গোল করার পাশাপাশি হজম করেছে ১১২ গোল। প্রতিবারই বাছাইপর্বেই বাদ পড়তে হয়েছে। তবে এবার ২০২২ বিশ্বকাপ ভাল কিছু করার স্বপ্ন বুনছে বাংলাদেশ। ‘ই’ গ্রুপের পাঁচ দলের মধ্যে ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে সবচেয়ে এগিয়ে কাতার। ৫৫তম অবস্থানে আছে এশিয়ান কাপের চ্যাম্পিয়নরা। বাকিরাও র‌্যাঙ্কিংয়ে এগিয়ে বাংলাদেশের (১৮৩তম) চেয়ে। ওমান ৮৬তম, ভারত ১০১তম এবং আফগানিস্তান ১৪৯তম স্থানে আছে।

কাতারের বিরুদ্ধে হোম ম্যাচের পর ভারতের মাঠে খেলতে যাবে বাংলাদেশ। এই ম্যাচটি ভারতের জন্যও গুরুত্বপূর্ণ। দুই ম্যাচে তারা মাত্র ১ পয়েন্ট পেয়েছে। এ কারণে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে আক্রমণাত্মক খেলার ছক কষছেন দলটির কোচ ইগর স্টিমাচ। কাতারের বিরুদ্ধে নিজেদের শেষ ম্যাচটি নিষ্প্রাণ ড্রয়ে শেষ করেছিল ভারত। রক্ষণাত্মক ভঙ্গিতে খেলায় সমালোচনাও হয়েছে খুব। তাই সব কিছু বাদ দিয়ে নতুন করে শুরুর লক্ষ্য নিয়েছেন ভারতের কোচ। তবে বাংলাদেশের বিপক্ষে জিততে উন্মুখ থাকলেও দলটির কোচ যথেষ্ট সম্মান দিচ্ছেন বাংলাদেশকে। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেণ, দল হিসেবে বাংলাদেশকে সম্মান জানাই। আমরা জানি কী ধরনের কঠিন পরিস্থিতির মুখোমুখি হতে পারি। সেই লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছি।

শেষ ম্যাচে গোল না পাওয়ায় বাংলাদেশের বিপক্ষে ৯০ মিনিটই আক্রমণাত্মক থাকতে চায় তারা। লক্ষ্য বাংলাদেশের রক্ষণ ভেঙে গোল করা। এ প্রসঙ্গে ভারতীয় কোচ বলেন, আমাদের ৯০ মিনিটই আক্রমণ করতে হবে যাতে বাংলাদেশের দুই ডিফেন্সিভ ব্লক ভাঙতে পারি। রুখে দাঁড়াতে বাংলাদেশ। তারা ভাল দল। এ কারণে আমাদের সেরাটাই খেলতে হবে। কাতারের সঙ্গে গোলশূন্য ড্র করলেও নিজেদের প্রথম ম্যাচে ওমানের কাছে ভাল খেলেও ২-১ গোলে হেরেছে ভারত।

নির্বাচিত সংবাদ