১৭ অক্টোবর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

রোমাঞ্চকর ম্যাচে বাংলাদেশের যুবাদের হার

রোমাঞ্চকর ম্যাচে বাংলাদেশের যুবাদের হার

অনলাইন ডেস্ক ॥ আগের তিন ম্যাচে সহজ জয় পাওয়া বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল এবার পারলো না। রোমাঞ্চকর লড়াইয়ে সফরকারীদের হারিয়ে দিল নিউ জিল্যান্ড অনূর্ধ্ব-১৯ দল।

চতুর্থ যুব ওয়ানডেতে ৪ উইকেটে জিতেছে স্বাগতিকরা। ২৯৬ রানের লক্ষ্য ছুঁয়ে ফেলেছে ৫ বল বাকি থাকতে। পাঁচ ম্যাচের সিরিজে নিউ জিল্যান্ড ৩-১ ব্যবধানে পিছিয়ে।

লিঙ্কনের বার্ট সাটক্লিফ ওভালে বুধবার টস হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভালো করে বাংলাদেশ। সিরিজে প্রথমবারের মতো আগে ব্যাট করা সফরকারীরা উদ্বোধনী জুটিতে প্রথমবারের মতো দেখে পঞ্চাশ রানের জুটি।

বিস্ফোরক ব্যাটিংয়ে টানা তৃতীয় ফিফটি তুলে নেন তানজিদ হাসান। সাবধানী ব্যাটিংয়ে তাকে সঙ্গ দেন দলে ফেরা পারভেজ হোসেন। বেরিয়ে এসে বাঁহাতি স্পিনার জেস টাসকফকে ওড়ানোর চেষ্টায় বোল্ড হয়ে ফিরেন তানজিদ। ভাঙে ৭১ রানের শুরুর জুটি।

৪৪ বলে ৯ চার ও ১ ছক্কায় ৫১ রান করেন তানজিদ। আগের দুই ম্যাচের নায়ক মাহমুদুল হাসান এবার ব্যর্থ। পেসার জক ম্যাকেঞ্জির অফ স্টাম্পের বাইরের বল তাড়া করতে গিয়ে কট বিহাইন্ড হয়ে ফিরেন তিনি। দ্রুত ফিরেন শাহাদাত হোসেনও।

পঞ্চাশ ছুঁয়ে বেশি দূর যেতে পারেননি পারভেজ। ৮২ বলে ৫ চার ও ১ ছক্কায় এই ওপেনার করেন ৫৫ রান। ভালো শুরুর পর দ্রুত কয়েকটি উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে যাওয়া বাংলাদেকে পথ দেখান আকবর আলী ও তৌহিদ হৃদয়।

পাল্টা আক্রমণে চাপটা সরিয়ে নেন আকবর। অধিনায়ক ফিফটি তুলে নেন ৩৪ বলে। শেষ পর্যন্ত ৪৪ বলে ৮ চার ও ২ ছক্কায় ফিরেন ৬৬ রান করে। ভাঙে ১০৪ রানের জুটি। লোয়ার অর্ডার ব্যাটসম্যানদের নিয়ে দলকে তিনশ রানের কাছে নিয়ে যান হৃদয়। ৭৭ বলে তিন ছক্কা ও দুই চারে তিনি করেন ৭৩ রান।

রান তাড়ায় শুরুতেই ভাঙে নিউ জিল্যান্ডের উদ্বোধনী জুটি। দ্বিতীয় উইকেটে শতরানের জুটিতে দলকে দৃঢ় অবস্থানে নিয়ে যান ওলি হোয়াইট ও আগের ম্যাচের সেঞ্চুরিয়ান ফার্গুস লেম্যান।

৬২ বলে ৪৫ রান করা হোয়াইটকে কট বিহাইন্ড করে ১২২ রানের জুটি ভাঙেন আসাদউল্লাহ গালিব। পরের ওভারে থামান ঝড় তোলা লেম্যানকে। ১০ চার ও ২ ছক্কায় ৭১ বলে ৭৬ রান করেন স্বাগতিকদের টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান।

উইলিয়াম ক্লার্কের সঙ্গে ৬৪ রানের জুটিতে দলকে কক্ষপথেই রাখেন টাসকফ। ক্লার্কের বিদায়ের পর ম্যাকেঞ্জি ও বিজে পোমার দ্রুত ফিরলে ম্যাচে ফিরে বাংলাদেশ। কিন্তু এরপর আর উইকেটের দেখা মেলেনি। অশোককে নিয়ে দলকে ৪৩ বলে ৫১ রানের সমীকরণ মিলিয়ে ফেলেন টাসকফ।

তিন চারে ৭৭ বলে ৬৬ রানে অপরাজিত থাকেন তিনি। অশোক করেন ২১ বলে ২৪ রান।

খরুচে বোলিংয়ে ৭৮ রানে ৩ উইকেট নেন সিরিজে প্রথমবারের মতো খেলা পেসার আসাদউল্লাহ গালিব। একটি করে উইকেট নেন শরিফুল ইসলাম ও অভিষেক দাস।

আগামী রবিবার একই ভেন্যুতে পঞ্চম ও শেষ যুব ওয়ানডে দিয়ে নিউ জিল্যান্ড সফর শেষ হবে বাংলাদেশের।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল: ৫০ ওভারে ২৯৫/৮ (তানজিদ ৫১, পারভেজ ৫৫, মাহমুদুল ১৩, শাহাদাত ১২, হৃদয় ৭৩, আকবর ৬৬, শামিম ০, অভিষেক ১৩*, শরিফুল ০, মুরাদ ১*; হ্যানকক ৯-০-৭৩-৩, টাসকফ ১০-০-৩৯-২, অশোক ৬-০-৩৪-১, ম্যাকেঞ্জি ৯-১-৪৫-১, ফিল্ড ৯-১-৬৩-১)

নিউ জিল্যান্ড অনূর্ধ্ব-১৯ দল: ৪৯.১ ওভারে ২৯৬/৪ (হোয়াইট ৪, ভিশভাকা ৮, লেম্যান ৭৬, ক্লার্ক ৩৪, টাকসফ ৬৬*, ম্যাকেঞ্জি ১৩, পোমার ১০, অশোক ২৪*; শরিফুল ১০-২-৪১-১, অভিষেক ১০-২-৪৮-১, শামিম ৬.১-০-৪৩-০, গালিব ৯-০-৭৮-৩, হৃদয় ৪-০-২৯-০, মুরাদ ১০-০-৫১-০)

ফল: নিউ জিল্যান্ড ৪ উইকেটে জয়ী

সিরিজ: ৫ ম্যাচের সিরিজে ৩-১ ব্যবধানে বাংলাদেশ এগিয়ে