১৬ অক্টোবর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

আজ কাতারের মুখোমুখি স্বাগতিক বাংলাদেশ

আজ কাতারের মুখোমুখি স্বাগতিক বাংলাদেশ
  • ফিফা বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব

রুমেল খান ॥ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে ফুটবল র‌্যাঙ্কিংয়ে পাঁচ নম্বরে আছে কাতার। অথচ এএফসি এশিয়ান কাপের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন কিন্তু তারাই। এরকম শক্তিশালী দেশের বিরুদ্ধেই আজ নিজেদের মাটিতে (বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে) সন্ধ্যা ৭টায় ফুটবল লড়াইয়ে অবতীর্ণ হবে বাংলাদেশ। উপলক্ষটা হচ্ছে ফিফা বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব (‘ই’ গ্রুপ)। এটি একই সঙ্গে এএফসি এশিয়ান কাপেরও বাছাইপর্ব। ২০২২ বিশ্বকাপের স্বাগতিক বিধায় কাতার ওই আসরে সরাসরি খেলবে। তবে এশিয়ান কাপের বাছাইপর্বে থাকায় তাদের ফিফা বিশ্বকাপের বাছাইয়েও অংশ নিতে হচ্ছে। আজ বৃহস্পতিবার ঢাকার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে মধ্যপ্রাচ্যের দেশ শক্তিধর কাতারকে মোকাবেলা করবে বাংলাদেশ। ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে দলটি বাংলাদেশ থেকে ১২৫ ধাপ এগিয়ে। যেখানে বাংলাদেশের র‌্যাঙ্কিং ১৮৭, সেখানে কাতারের অবস্থান ৬২ নম্বরে।

শুধু তাই নয়, হেড টু হেডেও যোজন ব্যবধানে কাতারের চেয়ে পিছিয়ে আছে লাল-সবুজরা। এ পর্যন্ত ৩টি ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছে দু’দল। এর মধ্যে ২টি ম্যাচেই জয়ী হয়েছে কাতার। ১টি ম্যাচে ড্র করতে সক্ষম হয়েছে বাংলাদেশ।

দু’দলের প্রথম সাক্ষাত আজ থেকে দীর্ঘ ৪০ বছর আগে, ১৯৭৯ সালের ৩০ এপ্রিল। এএফসি এশিয়ান কাপের ওই ম্যাচটিতে গোলশূন্য ড্র করে কাতারকে রুখে দিতে পেরেছিল বাংলাদেশ। ২৭ বছর পর আবারও একই আসরে দ্বিতীয়বার মুখোমুখি হয় দু’দল। ২০০৬ সালের ১৬ আগস্ট অনুষ্ঠিত ওই ম্যাচে কাতারের কাছে ৪-১ গোলে বিধ্বস্ত হয়েছিল বাংলাদেশ। একই বছর ৬ সেপ্টেম্বর একই আসরের ফিরতি ম্যাচে কাতারের কাছে হেরে যায় বাংলাদেশ। এবারের স্কোরলাইন ছিল ৩-০।

তবে সিনিয়র পর্যায়ে না পারলেও যুব পর্যায়ে ঠিকই কাতারের বিরুদ্ধে জয়ী হওয়ার স্বাদ পেয়েছে বাংলাদেশ। ২০১৮ সালের ১৯ আগস্ট এশিয়ান গেমস ফুটবলে নিজেদের থেকে ৯৬ ধাপ এগিয়ে থাকা কাতারকে ১-০ গোলে হারিয়ে দিয়ে এশিয়ান গেমস ফুটবলের প্রথমবারের মতো দ্বিতীয় রাউন্ডে নাম লিখিয়ে নতুন ইতিহাস সৃষ্টি করেছিল করেছিল বাংলাদেশ অনুর্ধ-২৩ জাতীয় ফুটবল দল।

বিশ্বকাপ বাছাইয়ে বাংলাদেশের বর্তমান দলের বেশিরভাগ ফুটবলারই সেই অনুর্ধ-২৩ দল থেকেই এসেছেন। কাতারকে মোকাবেলার ক’দিন আগে নিজেদের মাটিতেই বাংলাদেশ আগে দুটি ফিফা ফ্রেন্ডলি ম্যাচ খেলেছিল ভুটানের বিরুদ্ধে। ২৯ সেপ্টেম্বর এবং ৩ অক্টোবরের ওই ম্যাচ দুটিতেই জয় কুড়িয়ে নেয় লাল-সবুজরা যথাক্রমে ৪-১ এবং ২-০ গোলে। ফলে প্রস্তুতিটা বেশ ভালই হয় তাদের।

ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে কাতারের চেয়ে যোজন ব্যবধানে পিছিয়ে বাংলাদেশ। বিশ্বকাপ বাছাইয়ের শুরুটাও দু’দলের দুই রকম। আফগানিস্তানকে ৬-০ গোলে হারিয়ে শুরু কাতারের। অন্যদিকে বাংলাদেশের শুরু যুদ্ধ বিধ্বস্ত এই দেশটির কাছে ১-০ গোলে হেরে। তারপরও এশিয়ান চ্যাম্পিয়নদের বিপক্ষে ভাল করার প্রত্যয় বাংলাদেশের ব্রিটিশ কোচ জেমি ডে’র। প্রস্তুতি নিয়ে কোচ জেমির কথা, ‘প্রস্তুতি ভাল। ছেলেরা অসাধারণ ফিটনেসে রয়েছে। আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে আমরা খেলতে চাই।’ ডিফেন্ডার টুটুল হোসেন বাদশা, সুশান্ত ত্রিপুরা ইনজুরিতে পড়েছিলেন। কার্ড সমস্যায় খেলতে পারবেন না আরেক ডিফেন্ডার বিশ্বনাথ ঘোষ। তবে ইনজুরি থেকে সেরে ফের মাঠে ফিরছেন বাদশা ও সুশান্ত।’ ভুটানের সঙ্গে ৪-১ গোলে জয়ের ম্যাচে মাঠ ছিল বৃষ্টিভেজা ও কর্দমাক্ত। ফলে সফরকারী ভুটান বেশি সুবিধা করতে পারেনি। আজকের ম্যাচে যদি বৃষ্টি হয় বা মাঠ ভেজা থাকে তাহলে কতটা সুবিধা আদায় করে নিতে পারবে বাংলাদেশ দল? এ প্রসঙ্গে জেমির ভাষ্য, ‘বৃষ্টি বা ভারি মাঠ হলে আমাদের জন্য খানিকটা সুবিধা হবে, এটা স্বীকার করতেই হবে।’

বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক জামাল ভুঁইয়া বলেন, ‘এশিয়ার সেরা দল কাতার। তাদের বিপক্ষে ভাল খেলার চেষ্টা করব। যদিও ম্যাচটি আমাদের জন্য কঠিন। যদি আমরা নিজেদের শতভাগ দিতে পারি, তাহলে ম্যাচে ভাল ফল করা আমাদের জন্য সম্ভব।’ তিনি যোগ করেন, ‘কাতারের বিপক্ষে ভারত ড্র করেছে। যদি ভারত ড্র করতে পারে, তাহলে আমরাও ভাল কিছু করতে পারব।’ কাতারের স্প্যানিশ কোচ ফেলিক্স সানচেজ পয়েন্ট নিয়ে ঘরে ফিরতে চাইলেও বাংলাদেশকে খাটো করে দেখছেন না। অন্যদিকে বাংলাদেশ দলের লক্ষ্য নিজেদের ঘরে শক্তিধর দলটির বিপক্ষে ভাল ফুটবল উপহার দেয়া। বাংলাদেশ দলের

অধিনায়ক জামাল ভুঁইয়া সম্পর্কে কোচ ফেলিক্স বলেছেন, ‘আমি তাকে দীর্ঘদিন ধরে চিনি। সে দলের অন্যতম ফুটবলার এবং দলকে সে ভালভাবেই প্রভাবিত করতে পারে।’

বাংলাদেশ দলের অনুপ্রেরণা হতে পারে ভারত। ক’দিন আগেই তারা গোলশূন্য ড্র করে রুখে দেয় কাতারকে। বাংলাদেশের কোচ জেমি ডে মনে করেন, কাতারকে রোখা কঠিন। তবে অসম্ভব নয়। আর সেটা করতে হলে খুবই ভাল ফুটবল খেলতে হবে। কাতারের ফুটবল কাঠামো উন্নত। দলে ভাল ভাল ফুটবলার রয়েছে। যারা ব্রাজিল, আর্জেন্টিনা, ইউরোপে খেলে। ২৩ সদস্যের বাংলাদেশ দলে তরুণ খেলোয়াড় আছে বেশ কয়েকজন। যারা রক্ষণভাগ, মিডফিল্ড ও ফরোয়ার্ড পজিশনে খেলে। অধিনায়ক হিসেবে জামাল ভুঁইয়া তাদের কিভাবে উদ্দীপ্ত করবেন, ‘আমি তাদের বলেছি ম্যাচটি উপভোগ করতে। দেশের জন্য খেলতে। তাদের বলেছি এরকম ম্যাচ তোমরা আরও খেলতে পারবে। ম্যাচে ভুল হতে পারে। কিন্তু চাপ নেয়া যাবে না। স্বাভাবিক খেলাটা খেলতে হবে।’ ভারতের বিপক্ষে কাতার ২৯টি গোলের সুযোগ তৈরি করেছিল। কিন্তু একটি থেকেও গোল আদায় করে নিতে পারেনি। বাংলাদেশের বিপক্ষে তারা কতগুলো গোলের সুযোগ পায় সেটাই দেখার বিষয়।

বুধবার কাতারের বিপক্ষে এই ম্যাচকে সামনে রেখে ২৩ সদস্যের দল ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে)। তার মধ্যে গোলরক্ষক ৩ জন, রক্ষণভাগের খেলোয়াড় ৭ জন, মিডফিল্ডার ৮ জন ও স্ট্রাইকার ৫ জন। এই দল নিয়েই এশিয়ার সেরা কাতারের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ।

বাংলাদেশ দল ॥ গোলরক্ষক : আশরাফুল ইসলাম রানা, আনিসুর রহমান ও শহীদুল আলম সোহেল; রক্ষণভাগ : এসএম মঞ্জুরুর রহমান, রহমত মিয়া, ইয়াসিন খান, টুটুল হোসেন বাদশা, রিয়াদুল হাসান, ইয়াসিন আরাফাত ও রায়হান হাসান; মিডফিল্ড : জামাল ভুঁইয়া (অধিনায়ক), বিপলু আহমেদ, রবিউল হাসান, সোহেল রানা, আরিফুর রহমান, মামুনুল ইসলাম, মোহাম্মদ ইব্রাহিম ও জুয়েল রানা; ফরোয়ার্ড : তৌহিদুল আলম সবুজ, নাবিব নেওয়াজ জীবন, মতিন মিয়া, মাহবুবুর রহমান ও সাদ উদ্দিন।

নির্বাচিত সংবাদ
এই মাত্রা পাওয়া