১৬ অক্টোবর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

২০২২ বিশ্বকাপ আয়োজকদের চমকে দেয়ার আশা জেমি-জামালের

জাহিদুল আলম জয় ॥ ২০২২ বিশ্বকাপ বাছাই ফুটবলে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে আজ শক্তিশালী কাতারের মুখোমুখি হচ্ছে বাংলাদেশ। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে ম্যাচটি মাঠে গড়াবে সন্ধ্যা ৭টায়। বর্তমান এশিয়ান চ্যাম্পিয়ন কাতারকে নিজেদের চেনা মাঠে চমকে দেয়ার আশায় আছেন বাংলাদেশ কোচ জেমি ডে ও অধিনায়ক জামাল ভুঁইয়া।

এশিয়ান অঞ্চলের বাছাইপর্বে বাংলাদেশ প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে ‘ই’ গ্রুপে। ইতোমধ্যে গ্রুপে একটি ম্যাচ খেলেছে বাংলাদেশ। আফগানিস্তানের কাছে হেরে মিশন শুরু করা লাল-সবুজের প্রতিনিধিদের এবার আরও বড় পরীক্ষা। কাতার এই গ্রুপের সবচেয়ে শক্তিশালী দলই শুধু নয়, বর্তমান এশিয়ান চ্যাম্পিয়নও। স্বাগতিক হওয়ার কারণে তারা সরাসরি খেলবে পরবর্তী বিশ্বকাপে। কিন্তু এই বাছাইটি এশিয়ান কাপেরও; তাই খেলতে হচ্ছে তাদের (২০২২ বিশ্বকাপ ও ২০২৩ সালের এশিয়ান কাপের বাছাইয়ের দ্বিতীয় রাউন্ড)। নিজেদের প্রথম ম্যাচে আফগানিস্তানকে ৬-০ গোলে উড়িয়ে দেয়া কাতার দ্বিতীয় ম্যাচে ভারতের বিরুদ্ধে ঘরের মাঠে গোলশূন্য ড্র করে। এ কারণে শক্তিশালী প্রতিপক্ষ হলেও কাতারের বিরুদ্ধে ভাল কিছু করার স্বপ্ন বুনছে বাংলাদেশ।

বুধবার বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন ভবনে ম্যাচপূর্ব সংবাদ সম্মেলনে লড়াই করার প্রত্যয়ের কথা শুনিয়েছেন কোচ জেমি ডে ও অধিনায়ক জামাল ভুঁইয়া। অধিনায়ক সতীর্থদের ম্যাচটি উপভোগ করার মন্ত্র দিলেও কোচ দেখিয়েছেন আরও বড় সাহস। ব্রিটিশ ভদ্রলোক কাতারকে হারানোরই ছক কষছেন। অধিনায়ক জামালের মূলমন্ত্র হচ্ছে, কাতারের বিরুদ্ধে নার্ভাস না হয়ে সাহস রেখে সমানতালে লড়াই করা। তারকা এই মিডফিল্ডার বলেন, ‘কাতার এশিয়ার এক নম্বর দল। কঠিন এই ম্যাচের দিকে তাকিয়ে আছি আমরা। আমাদের সুযোগগুলো কাজে লাগাতে হবে।’ ডেনমার্কের লীগে খেলা এই ফুটবলার বলেন, ‘যে সুযোগগুলো পাব সেগুলো থেকে গোলে শট নিতে হবে। এটা বোঝাই যাচ্ছে, এই ম্যাচটি আগেরগুলোর চেয়ে কঠিন হবে।’

প্রতিপক্ষকে সমীহ করে জামাল বাস্তবতা মেনে নিচ্ছেন, ‘আমরা খুব বেশি সুযোগ হয়তো পাব না। কিন্তু যেটা পাব সেটা কাজে লাগাতে হবে। তা না হলে তারা আমাদের শাস্তি পেতে হবে। আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে আমরা সুযোগ পেয়েছিলাম, কিন্তু কাজে লাগাতে পারিনি। কাতার ম্যাচে আমদের একই ভুল করা চলবে না।’ কঠিন পরীক্ষা হলেও বাংলাদেশ আরও একটি জায়গা থেকে আত্মবিশ্বাস পাচ্ছে। গত বছরের সেপ্টেম্বরে ইন্দোনেশিয়ায় অনুষ্ঠিত এশিয়ান গেমসে কাতারকে ১-০ গোলে হারিয়ে চমক দেখিয়েছিল বাংলাদেশ। ওই ম্যাচের শেষদিকে জয়সূচক গোলটি করেছিলেন এখনকার অধিনায়ক জামাল ভুঁইয়াই। ম্যাচটি অনুর্ধ-২৩ পর্যায়ের হলেও শক্তির তারতম্য হয়তো খুব বেশি না। দারুণ ওই সাফল্য স্মরণ করে জামাল বলেন, ম্যাচটি নিঃসন্দেহে কঠিন। কিন্তু ভারত যদি তাদের সঙ্গে ড্র করতে পারে, আমরাও তাদের সঙ্গে ড্র করতে পারি। এমনকি জিতেও যেতে পারি।’

বাংলাদেশের ২৩ সদস্যের দলে অনেক তরুণ ফুটবলার। তাদের অভয় দিয়ে বুকে সাহস নিয়ে খেলার পরামর্শ দিয়ে লাল-সবুজের অধিনায়ক বলেন, ‘তরুণ খেলোয়াড়দের প্রতি আমাদের পরামর্শÑ নার্ভাস হওয়া চলবে না, খেলাটা উপভোগ করতে হবে এবং সুযোগটা কাজে লাগাতে হবে।’ ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়েও কাতারের চেয়ে যোজন যোজন পিছিয়ে বাংলাদেশ। এশিয়ান চ্যাম্পিয়নদের অবস্থান যেখানে ৬২তম সেখানে বাংলাদেশের অবস্থান ১৮৭তে। মধ্যপ্রাচ্যের দেশটির বিরুদ্ধে তাই লড়াই করাটাই বড় অর্জন হবে বলে মনে করছেন অনেকে। তবে এটি মানতে নারাজ কোচ জেমি ডে। ব্রিটিশ এই কোচ খেলার আগেই হেরে যেতে চান না। শুধু তাই নয়, জয়ের স্বপ্নও বুনছেন বাংলাদেশকে পাল্টে দেয়া এই কোচ। সংবাদ সম্মেলনে আত্মবিশ্বাসী জেমি বলেন, ‘আমরা জানি ম্যাচটি কঠিন হতে যাচ্ছে। এরপরও সবার মতো আমরাও জিততে চায়। ভভুটানের বিরুদ্ধে দুটি ম্যাচ জিতে আমরা বেশ আত্মবিশ্বাসী। এই ম্যাচে আমাদের সেরা খেলাটা খেলতে হবে। কাতারকে আটকানোর জন্য আমরা কঠোর পরিশ্রম করেছি। তাদের দুর্বলতা কাজে লাগাতে হবে।’

বাস্তবিক দিক দিয়ে কাতারকে হারানো কঠিন হলেও অসম্ভব নয় বলে মনে করেন জেমি। নিজেদের দিনে যে কোন কিছু হতে পারে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘কাতারের দলটি অসাধারণ। তারা এশিয়ান চ্যাম্পিয়ন। দেশটি ব্রাজিল, আর্জেন্টিনা, ইংল্যান্ডের মতো দলগুলোর বিরুদ্ধে খেলার অপেক্ষায় আছে। বাস্তবিক অর্থে বাংলাদেশ তাদের সামনে দুর্বল। কিন্তু ফুটবলে সবসময় চমক থাকে। আমাদের সেরাটা দিয়ে খেলতে হবে।’ এদিকে কাতারের স্প্যানিশ কোচ ফেলিক্স সানচেজ ও অধিনায়ক হাসান আল-হাইদস দু’জনেই জয়ের প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন। র‌্যাঙ্কিংয়ে বাংলাদেশ অনেক পিছিয়ে থাকলেও তাদের খাটো করে দেখছেন না। বরং সতর্ক থেকে জয় নিয়ে ফিরতে চান তারা।

নির্বাচিত সংবাদ
এই মাত্রা পাওয়া