২০ অক্টোবর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

অনিয়ম দুর্নীতি দূর করতে সরকার কঠোর অবস্থান নিয়েছে ॥ রাষ্ট্রপতি

নিজস্ব সংবাদদাতা, কিশোরগঞ্জ, ৯ অক্টোবর ॥ রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ অনিয়ম ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে সরকারের চলমান অভিযান ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে বলে আশা প্রকাশ করে দুর্নীতিবাজদের হুঁশিয়ার করে দিয়েছেন। তিনি বলেন, সমাজ থেকে অনিয়ম-দুর্নীতি দূর করতে ইতোমধ্যে সরকার কঠোর নীতি অবলম্বন করেছে। তার মতে, চলমান অভিযান দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে ইতিবাচক অবদান রাখবে এবং অবকাঠামোসহ উন্নয়নের সব ক্ষেত্রে গুণগতমান নিশ্চিতে ভূমিকা রাখবে। তিনি বুধবার বিকেলে স্বাধীনতা ভাস্কর্য-৭১ উদ্বোধন উপলক্ষে জেলার তাড়াইল মুক্তিযোদ্ধা ডিগ্রী কলেজ মাঠে নাগরিক কমিটি আয়োজিত সুধী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন। রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ সারাজীবন আদর্শ লালন করে রাজনীতি করেছেন, কখনও কোন অবস্থায় সেই আদর্শ থেকে বিচ্যুত হননি উল্লেখ করে জনপ্রতিনিধিদের উদ্দেশ্যে বলেন, এলাকার মানুষের উন্নয়নে নিবেদিত হয়ে কাজ করার পাশাপাশি মানুষের সঙ্গে ভাল ব্যবহার করে তাদের মন জয় করার চেষ্টা করবেন। তাহলে জনগণ ভোট দিয়ে বারবার আপনাদের নির্বাচিত করবে। সুধী সমাবেশ বাস্তবায়ন কমিটির আহ্বায়ক ও সাবেক প্রতিমন্ত্রী মুজিবুল হক চুন্নু এমপির সভাপতিত্বে ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আজিজুল হক মোতাহারের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন তাড়াইল উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জহিরুল ইসলাম ভূঞা শাহীন। এ সময় কিশোরগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য রাষ্ট্রপতির বড় ছেলে রেজওয়ান আহমেদ তৌফিক, কিশোরগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য মোঃ আফজাল হোসেনসহ রাষ্ট্রপতি কার্যালয়ের বিভিন্ন সামরিক-বেসামরিক উর্ধতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

রাষ্ট্রপতি সবার কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে নদী খনন এবং তাড়াইল উপজেলায় স্টেডিয়ামসহ বিভিন্ন অবকাঠামোগত উন্নয়নে সার্বিক সহযোগিতার আশ্বাস দেন।

এর আগে রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ দুপুর একটায় ঢাকা থেকে হেলিকপ্টারযোগে জেলার তাড়াইল উপজেলার শিমুলহাটি হেলিপ্যাডে অবতরণ করেন। পরে সেখান থেকে তিনি তাড়াইল সদরে স্বাধীনতা ৭১ ভাস্কর্য উদ্বোধন করে পার্শ্ববর্তী বালুর মাঠে গার্ড অব অনার গ্রহণ করেন। সুধী সমাবেশে রাষ্ট্রপতির ভাষণ শেষে তিনি তাড়াইল থেকে হেলিকপ্টারযোগে কিশোরগঞ্জে শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম স্টেডিয়ামে অবতরণ করেন। সেখান থেকে রাষ্ট্রপতি সার্কিট হাউসে গিয়ে গার্ড অব অনার গ্রহণ করে সন্ধ্যা সাতটায় জেলার সরকারী কর্মকর্তা, স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দের সঙ্গে মতবিনিময় করেন। পরে ওইদিন তিনি জেলা শহরের খরমপট্টিতে তার নিজ বাসভবনে রাতযাপন করেন।

নির্বাচিত সংবাদ