১৬ নভেম্বর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

খন্দকার আনোয়ারুল মন্ত্রিপরিষদ সচিব নিযুক্ত

জনকণ্ঠ ডেস্ক ॥ জনপ্রশাসনের গুরুত্বপূর্ণ পদ মন্ত্রিপরিষদ সচিব হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন সেতু বিভাগের জ্যেষ্ঠ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম। তাকে এই পদে নিয়োগ দেয়া হচ্ছে বলে আগেই জানিয়েছিলেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। রবিবার জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে নিয়োগের প্রজ্ঞাপন হয়। খবর বিডিনিউজের।

বিদায়ী মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলমও অর্থমন্ত্রীর কথা অনুযায়ী বিশ্বব্যাংকে বিকল্প নির্বাহী পরিচালক হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন। সাবেক মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোশাররফ হোসেন ভুঁইয়া এখন বিশ্বব্যাংকে বাংলাদেশের বিকল্প নির্বাহী পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। শফিউল তার স্থলাভিষিক্ত হবেন। খন্দকার আনোয়ার ২০১১ সালের ১৩ নবেম্বর সেতু বিভাগের ভারপ্রাপ্ত সচিব হিসেবে যোগ দেন। ২০১৩ সালে তিনি সচিব এবং ২০১৭ সালে জ্যেষ্ঠ সচিব হিসেবে পদোন্নতি পান। ১৯৮৩ বিসিএস ব্যাচের কর্মকর্তা আনোয়ার পড়াশোনা করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে সমাজ কল্যাণে। ডেভেলপমেন্ট প্ল্যানিংয়ে তার একটি পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ডিপ্লোমাও রয়েছে।

খন্দকার আনোয়ারের স্ত্রী বেগম কামরুন নাহারও একজন সচিব। তিনি মহিলা ও শিশুবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে রয়েছেন। প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী, শফিউল আলমের চুক্তির মেয়াদ ২৯ অক্টোবর থেকে বাতিল হয়ে যাবে। অর্থাৎ এরপর মন্ত্রিপরিষদ সচিব হিসেবে কাজে যোগ দেবেন খন্দকার আনোয়ারুল। আগামী এক নবেম্বর অথবা যোগদানের তারিখ থেকে পরবর্তী তিন বছর মেয়াদে বিশ্বব্যাংকের ‘বিকল্প নির্বাহী পরিচালক’ পদে নিয়োগ পেলেন শফিউল। জ্যেষ্ঠ সচিব শফিউল আলম ২০১৫ সালের ২৯ অক্টোবর থেকে জনপ্রশাসনের গুরুত্বপূর্ণ পদ মন্ত্রিপরিষদ সচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। ১৯৫৯ সালে কক্সবাজারে জন্ম নেয়া শফিউল চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজীতে স্নাতকোত্তর ডিগ্রী নেয়ার পর এলএলবিও করেন। পরে যুক্তরাজ্যের বার্মিংহাম ইউনিভার্সিটি থেকে উন্নয়ন প্রশাসনে এমএসএস ডিগ্রী নেন তিনি।

১৯৮২ সালের বিসিএস ব্যাচের কর্মকর্তা শফিউল কর্মজীবনে রাষ্ট্রপতির কার্যালয়ের সচিব, জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষ এবং বাংলাদেশ বনশিল্প উন্নয়ন কর্পোরেশন ও ভূমি আপীল বোর্ডের চেয়ারম্যানের দায়িত্বও পালন করেন।