২২ নভেম্বর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

হবিগঞ্জে বন্ধুকযুদ্ধে ডাকাত কুদরত নিহত ॥ ৬ পুলিশ আহত

হবিগঞ্জে বন্ধুকযুদ্ধে ডাকাত কুদরত নিহত ॥ ৬ পুলিশ আহত

নিজস্ব সংবাদদাতা, হবিগঞ্জ ॥ হবিগঞ্জের নবগঠিত উপজেলা শায়েস্তাগঞ্জের পুরাসুন্দা এলাকাস্থ সুরাবই গ্রামের বাঁশঝাড় ঝুপে আন্তঃজেলা ডাকাত দলের সর্দার মোস্ট ওয়ান্টেড আসামি কুদরত আলী (৪০) পুলিশের সাথে বন্ধুক যুদ্ধে নিহত হয়েছে। নিহত কুদরতের বাড়ী জেলার সদও উপজেলাধীন নিজামপুর ইউনিয়নের দরিয়াপুর গ্রামে। বাবার নাম ওমর আলী। আজ মঙ্গলবার ভোর রাত সাড়ে ৩ টায় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর-সার্কেল) মোঃ রবিউল ইসলামের নের্তৃত্বে পরিচালিত অভিযান চলাকালে সংঘটিত এই ঘটনায় পুলিশের উপ-পরিদর্শক এসআই আবুল কালাম,আই মোজাম্মেল হক সহ কনস্টেবল রনি, জয়নুল হক, নুরুল ইসলাম ও রিপন গুরুতর আহত হয়েছে। আহত সকলেই হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। এঘটনায় একটি পাইপগান ৫রাউন্ড গুলি,২ টি রামদাসহ ডাকাতির কাজে ব্যবহার করার জন্য আনা প্রচুর দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র উদ্ধার করেছে পুলিশ।

পুলিশ জানায়, গোপন সংবাদে পুলিশ জানতে পারে যে ওই এলাকায় ১০/১২ জনের একদল সশস্ত্র ডাকাত একত্রিত হয়েছে । ফলে এসপি মোহাম্মদ উল্ল্যা বিপিএম-পিপিএম বারের নির্দেশে সদর (সার্কেল) অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ রবিউল ইসলামের নের্তৃত্বে একদল হবিগঞ্জ সদর ও শায়েস্তাগঞ্জ থানার ওসি ডিবির ওসি মানিককে নিয়ে একদল পুলিশ তৎক্ষনাৎ ঘটনাস্থলের উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেন। একপর্যায়ে রাত সাড়ে ৩টার দিকে পুলিশ দেখতে পায় ওই এলাকাস্থ সুরাবই গ্রামের বাঁশ ঝাঁড়ের ঝুঁপে অবস্থান নেয়া সশস্ত্র ডাকাত দল তাদের দিকে গুলি ছুঁড়তে ছুঁড়তে তেড়ে আসছে। ফলে পুলিশও পাল্টা গুলি ছুঁড়ে। শুরু হয় উভয় পক্ষের মাঝে তুমুল লড়াই। এসময় পুলিশ আত্মরক্ষার্থে অন্তত ২০ রাউন্ড গুলি ছুড়ে। এসময় পুলিশের গুলিতে ডাকাত সর্দার কুদরত আলী গুলিবিদ্ধ হলে অন্যান্যরা ডাকাতরা পিছু হটে। পুলিশ গুরুতর আহত কুদরত আলীকে ভোর ৬ টার দিকে হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষনা করেন। এদিকে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ডাকাতির সংঘটিত করার লক্ষ্যে আনা একটি পাইপগান সহ প্রচুর দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র উদ্ধার করে।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর-সার্কেল) মোঃ রবিউল ইসলাম জনকন্ঠকে জানান, ওই ডাকাতের বিরুদ্ধে হবিগঞ্জের বিভিন্ন থানায় ডাকাতি সহ অন্তত ১৩টি স্পর্শকাতর মামলা রয়েছে। ডাকাত কুদরত আলী হবিগঞ্জ সহ সিলেট বিভাগের সিলেট, সুনামগঞ্জ, মৌলভীবাজার ছাড়াও পাশ্ববর্তী বি-বাড়িয়া,কুমিল্লা ও নারায়নগঞ্জ সহ দেশের বিভিন্ন জেলায় দুর্ধষ ডাকাতি সংঘটিত করে আসছিল। এদিকে সাম্প্রতিক সময়ে জেলার লাখাই সহ বেশ কয়েকটি উপজেলায় দুর্ধষ ডাকাতি রোধ করে ব্যাপক প্রশংসা কুড়ানো চৌকস অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ রবিউল ইসলামের নের্তৃত্বে হবিগঞ্জের সুরাবই এলাকায় আরও একটি ডাকাতি রোধ করা ও ডাকাত সর্দার কুদরত আলী নিহত হওয়ায় সংশ্লিস্ট এলাকায় জনগণ তাকে স্বাগত জানিয়ে সকালে আনন্দ-উল্লাসে ঘরের বাইরে নেমে আসে এবং মিষ্টি বিতরন উৎসবে মেতে উঠে। এলাকায় ফিরে এসেছে স্বস্তির নিঃশ্বাস।