২০ নভেম্বর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

হতে পারেন ॥ টেলিকমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ার

বর্তমান সময়ের চাহিদাসম্পন্ন বিষয় টেলিকমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ার। বেশ কয়েকটি বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়ে এ বিষয়ে পড়ার ব্যবস্থা রয়েছে। এর মধ্যে ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অন্যতম। আসুন জেনে নেই, এই বিষয়ে পড়ার বিস্তারিত।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের খ্যাতিমান অধ্যাপকও গ্রন্থের প্রণেতা ড. এবিএম মফিজুল ইসলাম পাটোয়ারী ১৯৯৫ সালে এই ইউনিভার্সিটি প্রতিষ্ঠা করেন। বর্তমানে ইউনিভার্সিটির ছাত্রছাত্রীর সংখ্যা প্রায় ৭ হাজার অধিক। তার মধ্যে ৪ শতাধিক বিদেশী ছাত্র রয়েছে। এ ইউনিভার্সিটিতে বর্তমানে পূর্ণকালীন ও খণ্ডকালীন শিক্ষক ২১০ জন শিক্ষাদান করছেন। এ ভার্সিটির ৮টি বিভাগের মধ্যে অন্যতম হলো, ইলেকট্রিক্যাল, ইলেকট্রনিক্স এ্যান্ড টেলিকমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং (ইইটিই) বিভাগ।

প্রযুক্তিগত শিক্ষাকে এগিয়ে নেয়ার জন্য ইলেকট্রিক্যাল, ইলেকট্রনিক্স এ্যান্ড টেলিকমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্সটি চালু করেন। বর্তমানে এই কোর্সে পড়াশোনা করছেন প্রায় ৯০০ দেশী-বিদেশী শিক্ষার্থী। শিক্ষার্থীদের সুবিধার্থে ইলেকট্রিক্যাল, ইলেকট্রনিক এ্যান্ড টেলিকমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্সটিকে দুটি শাখায় বিভক্ত করা হয়েছে। (১) বিএসসি (অনার্স) ইন ইইটিই (দিবা) শাখা এবং (২) বিএসসি (অনার্স) ইন ইইটিই (সান্ধ্যকালীন) শাখা। এ কোর্সটির অধীন রয়েছে অত্যাধুনিক ১৪টি ল্যাবরেটরি। তাঁর মধ্যে উল্লেখ্যযোগ্য হলো- মেশিন ল্যাব, কন্ট্রোল ল্যাব, সিমুলেশন ল্যাব, মাইক্রো প্রসেসর ল্যাব, টেলিকমিনেকশন ল্যাব এবং সার্কিট ল্যাব। বুয়েট ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের খ্যাতিমান অধ্যাপকের সার্বিক তত্ত্বাবধানে এই ল্যাবরেটরিগুলো স্থাপন ও পরিচালনা করা হচ্ছে। এছাড়া শিক্ষার্থীদের সুবিধার্থে ইন্ডাস্ট্রিয়াল ইলেকট্রিক্যাল ডিজাইন, পিএলসি বেজড ইন্ডাস্ট্রিয়াল অটোশেন এবং রোথটিকস্ এর ওপর প্রোফেশনাল শর্ট সার্টিফিকেট কোর্স চালু করা হয়েছে।

গবেষণা ও প্রকাশনা সেলঃ এ ইউনিভার্সিটিতে একটি স্বয়ংসম্পূর্ণ গবেষণা ও প্রকাশনা সেল রয়েছে। প্রতি বছর উক্ত সেল ডিআইইউ জার্নাল প্রকাশ করে থাকে। প্রত্যেক শিক্ষককে বছরে কমপক্ষে ২টি গবেষণা প্রবন্ধ প্রকাশ করতে হয়।

আবাসিক ব্যবস্থা : ছাত্রছাত্রীদের আবাসিক সমস্যা দূরীকরণের লক্ষ্যে এ ইউনিভার্সিটির স্থায়ী ক্যাম্পাসের সন্নিকটে রয়েছে ৭টি হোস্টেল। তার মধ্যে ছেলেদের জন্য রয়েছে ৫টি এবং মেয়েদের জন্য রয়েছে ২টি হোস্টেল। এছাড়াও নিকুঞ্জ জোয়ার সাহারায় ছেলেদের জন্য ১টি এবং গ্রীনরোডে মেয়েদের জন্য ১টি হোস্টেল রয়েছে।

লাইব্রেরি : এ ইউনিভার্সিটিতে রয়েছে ৩টি সুসজ্জিত সমৃদ্ধ লাইব্রেরি। এখানে রয়েছে দেশী-বিদেশী পর্যাপ্ত বই ও জার্নাল। লাইব্রেরিতে শিক্ষার্থীরা নিরিবিলি পরিবেশে সকাল ৮টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত পড়াশোনা করতে পারে। প্রয়োজনে লাইব্রেরি থেকে বই বাসায় নিয়ে পড়াশোনা করতে পারে। ই-লাইব্রেরির কার্যক্রম চালু রয়েছে।

বৃত্তি : বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয় ২০১০-এর আইন অনুযায়ী দরিদ্র, মেধাবী ও মুক্তিযোদ্ধা সন্তানদের বৃত্তি প্রদান করা হয়। এছাড়া পরীক্ষায় সর্বোচ্চ নম্বরধারীদের বিনা বেতনে অধ্যয়নের সুযোগ রয়েছে। বর্তমানে চার শতাধিক শিক্ষার্থী এ ইউনিভার্সিটিতে সম্পূর্ণ বিনা বেতনে অধ্যয়নরত।

স্থায়ী ক্যাম্পাস : ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির স্থায়ী ক্যাম্পাস বাড্ডার সাঁতারকুলে স্থাপন করা হয়েছে। স্থায়ী ক্যাম্পাসে ওয়াই-ফাই, ক্যান্টিন, ব্যায়ামাগার ও আধুনিক অডিটোরিয়াম রয়েছে। স্থায়ী ক্যাম্পাসে ঢাকার বিভিন্ন জায়গা থেকে আসার জন্য বাস ও শাটল সার্ভিস রয়েছে। বছরের বিভিন্ন সময়ে স্থায়ী ক্যাম্পাসে ইনডোর ও আউটডোর গেমসের আয়োজন করা হয়। সবুজে ঘেরা ও প্রাকৃতিক সৌন্দর্য ভরা এই স্থায়ী ক্যাম্পাসের পরিবেশ মনোমুগ্ধকর।

যোগাযোগ : বাড়ি-০৪, সড়ক-০১, ব্লক-এফ, বনানী, ঢাকা-১২১৩। মোবাইলঃ ০১৯৩৯৮৫১০৬১।

নাজমুল হোসেন

নির্বাচিত সংবাদ