১৫ নভেম্বর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বিএসপিএ ম্যারাথনে রুমেল, আরচারিতে চঞ্চল চ্যাম্পিয়ন

বিএসপিএ ম্যারাথনে রুমেল, আরচারিতে চঞ্চল চ্যাম্পিয়ন

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ আজ রবিবার বাংলাদেশ স্পোর্টস প্রেস এ্যাসোসিয়েশনের (বাংলাদেশ ক্রীড়ালেখক সমিতি) আয়োজনে ‘মার্সেল-বিএসপিএ স্পোর্টস কার্নিভাল’-এ দুটি ইভেন্ট অনুষ্ঠিত হয়। ঢাকার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে এদিন প্রথমে অনুষ্ঠিত হয় ম্যারাথন দৌড়। পরে অনুষ্ঠিত হয় তীর-ধনুকের খেলা আরচারি। সমিতির ক্রীড়া ইতিহাসে এবারই প্রথম ম্যারাথন ইভেন্টটি অর্ন্তভুক্ত হয়েছে। আর তাতে অভিষেকেই চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন দৈনিক জনকণ্ঠের স্পোর্টস রিপোর্টার রুমেল খান। রানারআপ হয়েছেন সোনালী নিউজ ডটকমের সাবেক ক্রীড়া সম্পাদক জাফিউল ইসলাম বাবু। তৃতীয় হয়েছেন দৈনিক কালের কণ্ঠের ক্রীড়া সাংবাদিক শামীম হাসান।

আরচারি প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হন দৈনিক বাংলাদেশের খবরের মাহমুদুন্নবী চঞ্চল, দ্বিতীয় হন দৈনিক কালবেলার মজিবুর রহমান এবং তৃতীয় হন দৈনিক আমাদের সময়ের আবীর রহমান।

এছাড়া বিএসপিএ অফিস সহকারীদের নিয়েও আরচারি প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রথম হন জাহাঙ্গীর আলম, দ্বিতীয় হাবীবুর রহমান এবং তৃতীয় হয়েছেন আকাশ হোসেন।

প্রথমবারের মতো ম্যারাথন অনুষ্ঠিত হওয়ায় স্বাভাবিকভাবেই এই ইভেন্টটি নিয়ে সবার ছিল বাড়তি কৌতুহল। কে হবেন এই ইভেন্টের সেরা দৌড়বিদ, এ নিয়ে চলছিল নানা জল্পনা-কল্পনা। শেষ পর্যন্ত প্রথম ম্যারাথনে প্রথম চ্যাম্পিয়ন হিসেবে নিজের নামটি সমিতির ক্রীড়া ইতিহাসে স্থায়ীভাবে লিপিবদ্ধ করেন রুমেল খান। ঢাকা রিপোর্টাস ইউনিটির (ডিআরইউ) দৌড় প্রতিযোগিতায় চার বার অংশ নিয়ে তিনবারই পদক জিতলেও (২০১৪ সালে ৪০০ মিটারে রানারআপ, ২০১৬ সালে ৮০০ মিটারে তৃতীয় এবং ২০১৯ সালে ১০০ মিটারে তৃতীয় স্থান) একবারও প্রথম হতে পারেননি। তবে এবার তার সেই আক্ষেপ ঘুঁচেছে সমিতির ম্যারাথনে চ্যাম্পিয়ন হয়ে।

বাংলাদেশ ক্রীড়ালেখক সমিতির ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় এটা সার্বিকভাবে রুমেলের দশম এবং চলতি আসরে দ্বিতীয় সাফল্য। গত ১৯ অক্টোবর পল্টনের শহীদ তাজউদ্দিন আহমেদ ইনডোর স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ব্যাডমিন্টন দ্বৈতে ডিবিসি নিউজের শেখ আশিককে সঙ্গে নিয়ে অধিকার করেন তৃতীয় স্থান।

রবিবারের ম্যারাথনে শামীম হাসান দৌড় শুরু করে প্রথম থেকেই সবার চেয়ে এগিয়ে ছিলেন। সেই অবস্থান ধরে রাখেন ৬০০ মিটার পর্যন্ত! কিন্তু তারপরই তিনি দমের ঘাটতিতে পড়ে যান এবং গতিও কমে আসে। এই সুযোগটি ভালভাবেই কাজে লাগান জাফিউল ইসলাম বাবু এবং রুমেল খান, যারা দৌড়ের প্রথম থেকেই প্রায় একসঙ্গেই দৌড়াচ্ছিলেন। শামীমকে পেছনে ফেলে তারা ক্রমশ এগিয়ে যান অভীষ্ট লক্ষ্যের পানে। একপর্যায়ে রুমেলকেও কিছুটা পেছনে ফেলে দেন জাফিউল। তখনও বাকি আছে ৮০ মিটার। কিন্তু এগিয়ে থেকেও শেষরক্ষা করতে পারেননি জাফি। রুমেল গতি বাড়িয়ে পেছনে ফেলে দেন তাকে এবং এ্যাথলেটিক ট্র্যাকের ফিনিশিং লাইন অতিক্রম করে প্রথম স্থান অধিকার করেন। জাফিকে রানারআপ হয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হয়। সমিতির সদস্য হবার পর এটাই তার ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় প্রথম কোন পদক। ৬০০ মিটার পর্যন্ত এগিয়ে থেকেও বেচারা শামীম হন তৃতীয়! বিডি স্পোর্টস ২৪ ডটকমের মোস্তাক আহমেদ খান হন চতুর্থ এবং ডেইলি অবজারের মাহতাব উদ্দিন হন পঞ্চম (অংশ নেন মোট ১৫ প্রতিযোগী)।

আগেরদিন বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামের ট্র্যাকে এই ম্যারাথন দৌড়ের অনুশীলন করেছিলেন রুমেল-জাফি-মাহতাব। প্রথম দুজন সাফল্য পেলেও ভাগ্যের শিকে ছেঁড়েনি মাহতাবের।

বিএসপিএ স্পোর্টসে রুমেল খানের সাফল্যগুলো ॥ ২০১২ সালে টি২০ ক্রিকেটে রানার্সআপ মেডেল, ২০১৪ সালে টেবিল টেনিস এককে চ্যাম্পিয়ন, ২০১৬ সালে টেবিল টেনিসে এককে চ্যাম্পিয়ন, টেবিল টেনিস দ্বৈতে চ্যাম্পিয়ন, ২০১৭ সালে টেবিল টেনিস এককে চ্যাম্পিয়ন, টেবিল টেনিস দ্বৈতে চ্যাম্পিয়ন, ২০১৮ সালে টেবিল টেনিস এককে তৃতীয় স্থান, টেবিল টেনিস দ্বৈতে চ্যাম্পিয়ন এবং ২০১৯ সালে ব্যাডমিন্টন দ্বৈতে তৃতীয় স্থান, ম্যারাথনে চ্যাম্পিয়ন।