২০ নভেম্বর ২০১৯  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

রাজশাহীতে ট্রেনে কাটা পড়ে শিশুকন্যাসহ বাবার মৃত্যু

রাজশাহীতে ট্রেনে কাটা পড়ে শিশুকন্যাসহ বাবার মৃত্যু

স্টাফ রিপোর্টার, রাজশাহী ॥ রাজশাহীতে ট্রেনে কেটে বাবা ও মেয়ের মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছে তারা একসঙ্গে আত্মহত্যা করেছে তবে পুলিশ জানিয়েছে রেলক্রসিং পারাপারের সময় এই দুর্ঘটনা ঘটে। সোমবার বেলা সাড়ে ৩টার দিকে রাজশাহী নগরীর ভদ্রা মোড়স্থ জামালপুর রেল ক্রসিংয়ে এ ঘটনা ঘটে।

নিহতদের মধ্যে একজনের লাশ জিআরপি থানা পুলিশের হেফাজতে রয়েছে। অপর জনের লাশ রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে শবাগারে রাখা হয়েছে। এরা হলো- মহানগরীর মতিহার থানার ধরমপুর এলাকার মৃত জাহাঙ্গীর আলম মাখনের ছেলে কামরুজ্জামান রুবেল (৩০) ও তার মেয়ে রুবাইয়া খাতুন (৩)। এরমধ্যে নিহত কামরুজ্জামান রুবেলের লাশ জিআরপি থানা পুলিশ ময়নাতদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পঠিয়েছে। আর ঘটনাস্থল থেকেই মেয়ে রুবাইয়ার লাশ রামেক হাসপাতালে শবাগারে নেওয়া হয়।

রাজশাহীর জিআরপি থানার উপ-পরিদর্শক (এডআই) মশিউর রহমান জানান, দুপুরের পর রেলস্টেশন থেকে ২টা ১৫ মিনিটে খুলনাগামী আন্ত:নগর ট্রেন কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস ছাড়ার কথা ছিল। তবে ট্রেনটি লেট ছিল। ট্রেনটি সাড়ে তিনটার দিকে নগরের ভদ্রা জামালপুর রেলক্রসিং দিয়ে যাওয়ার সময় এই দুর্ঘটনা ঘটে। কামরুজ্জামান রুবেল ও তার মেয়ে রেলক্রসিং পারাপারের সময় ট্রেনে কাটা পড়েন। এরমধ্যে রুবেল ঘটনাস্থলেই মারা যান। আর স্থানীয়ারা মুমূর্ষ অবস্থায় তার শিশু কন্যাকে উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়ে দেন। কিন্তু হাসপাতালে যাওয়ার পর তারও মৃত্যু হয়। এই ঘটনাটি আশপাশের লোকজন আত্মহত্যা বলে উল্লেখ করলেও ঘটনাস্থলে গিয়ে প্রাথমিক তদন্তে বিষয়টির সত্যতা পাওয়া যায়নি বলেও জানান জিআরপি থানার এই পুলিশ কর্মকর্তা।

এদিকে, জিআরপি থানার ওসি সাঈদ ইকবাল বলেন, এটি দুর্ঘটনা। রেলক্রসিংয়ে গিয়ে ট্রেনের নিচে ঝাপ দিয়ে তারা আত্মহত্যা করেছেন বলে এমন কোন তথ্যের সত্যতা তারা পাননি। এরপরও তারা ঘটনাটি তদন্ত করে দেখবেন। এছাড়া নিহতদের লাশ ময়নাতদন্ত করা হবে। এ ঘটনায় জিআরপি থানা ও রাজপাড়া থানায় পৃথক মামলা হয়েছে বলেও জানান জিআরপি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা।

নির্বাচিত সংবাদ